বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

রূপশ্রীর সাফল্য  দেখতে বিশেষ টিম
পূর্ব বর্ধমানে প্রাপকদের বাড়িও যাবে

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: আর্থিকভাবে দুর্বল কন্যা দায়গ্রস্ত পিতাদের কথা চিন্তা করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ‘রূপশ্রী’ প্রকল্প চালু করেছিলেন। প্রকল্প চালু হওয়ার পর থেকে এখনও পর্যন্ত রাজ্যের প্রায় ১২ লক্ষ পাত্রী প্রকল্পের সুবিধা নিয়েছেন। অন্যান্য জেলার মতো পূর্ব বর্ধমানেও কয়েক হাজার অভিভাবক এই প্রকল্পের মাধ্যমে উপকৃত হয়েছেন। তাই রূপশ্রী প্রকল্পের সাফল্য খতিয়ে দেখতে আসছে রাজ্য সরকারের বিশেষ টিম। কয়েক দিনের মধ্যেই এই টিম পূর্ব বর্ধমান জেলায় আসবে। বিগত তিন বছরে কারা কারা প্রকল্পের টাকা পেয়েছেন, তা তারা খতিয়ে দেখবে। প্রয়োজনে উপভোক্তাদের বাড়িতে গিয়েও এই প্রকল্পের সাফল্য নিয়ে খোঁজখবর নেবে এই বিশেষ টিম। 
প্রশাসনের এক আধিকারিক বলেন, রাজ্য সরকার চাইছে প্রতিটি প্রকল্পের টাকা সঠিকভাবে খরচ হোক। সেই কারণেই খতিয়ে দেখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, ব্লক বা শহরগুলিতে কত সংখ্যক উপভোক্তা প্রকল্পের টাকা পেয়েছেন তার তালিকা তৈরি রাখার জন্য বলা হয়েছে। কয়েক দিন আগেই রাজ্য থেকে জেলায় চিঠি এসেছে। তারপরেই সংশ্লিষ্ট দপ্তরের তোড়জোড় শুরু হয়েছে। অতিরিক্ত জেলাশাসক সানা আখতার বলেন, উপভোক্তাদের নামের তালিকা তৈরি রয়েছে।
সংশ্লিষ্ট দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, এই প্রকল্পে বিয়ের জন্য এককালীন ২৫ হাজার টাকা পাওয়া যায়। সাবালিকারা এই প্রকল্পের উপযুক্ত। পরিবারের বার্ষিক আয় দেড় লক্ষ টাকার বেশি হলে সুবিধা পাওয়া যাবে না। আবেদনকারীকে বয়সের প্রমাণপত্র, স্থায়ী বাসিন্দার প্রমাণপত্র জমা করতে হবে। বিয়ের কার্ডও জমা করতে হয়। তথ্য যাচাই হওয়ার পর অর্থ পাওয়া যায়। অনিয়ম বন্ধ করতে সরকারি কর্মীদের আবেদনকারী কন্যাদের বাড়িতে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এক আধিকারিক বলেন, এই প্রকল্পে প্রচরু মানুষ উপকৃত হয়েছেন। কয়েকটি ক্ষেত্রে ভুয়ো আবেদন জমা দেওয়ার এবং টাকা তুলে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। একটি চক্র অনেক দিন আগে বিবাহ হয়ে যাওয়া মহিলাদের নামে টাকা তুলেছে বলেও অভিযোগ পাওয়া যায়। ভুয়ো নথি তৈরির অভিযোগও রয়েছে। মুর্শিদাবাদ জেলায় গতবছর এমনই ঘটনা সামনে আসে। সরকারি কর্মীদেরও একাংশ এই চক্রে জড়িত ছিল বলে অভিযোগ ওঠে। তা নিয়ে তদন্তও চলছে। পূর্ব বর্ধমানেও এই প্রকল্পে উপভোক্তারা কতটা উপকৃত হয়েছেন তা ওই বিশেষ টিম দেখবে। পাশাপাশি এধরনের কোনও অনিয়ম হয়েছে কি না, সেটাও ওই টিম খতিয়ে দেখবে। বর্ধমান শহরেও ২০০ জনের বেশি মহিলা প্রকল্পের সুবিধা পেয়েছেন। প্রয়োজনে ওই টিম তাঁদের কারও সঙ্গে কথা বলতে পারে।  পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের সহ সভাধিপতি দেবু টুডু বলেন, মুখ্যমন্ত্রী সাধারণ বাসিন্দাদের কথা ভেবে বিভিন্ন ধরনের প্রকল্প চালু করেছেন। শিক্ষা ও বিয়ের জন্য অভিভাবকদের যাতে চিন্তা করতে না হয়, তারজন্য দুটি প্রকল্প রাজ্য সরকার চালু করেছে। এখন আর অভিভাবকদের ঋণ নিয়ে বিয়ে দিতে হয় না। আবেদন করলেই টাকা পাওয়া যায়। তবে এই প্রকল্পের টাকা নিয়ে কেউ নয়ছয় করলে সরকার নিশ্চই পদক্ষেপ নেবে। বিশেষ টিম সাফল্যের পাশাপাশি অডিট করেও দেখবে। জেলা প্রশাসন অডিট টিমকে সবরকমভাবে সহযোগিতা করবে। 

18th     January,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ