বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

বোরো চাষের জন্য দুই জেলায় ২৪ হাজার
৬৫৮ একর জমিতে জল দেওয়ার সিদ্ধান্ত

সংবাদদাতা, সিউড়ি: বোরো চাষে জলের সমস্যা মেটাতে বীরভূম ও মুর্শিদাবাদে সেচ খালের মাধ্যমে জল সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বীরভূম জেলা পরিষদ। জেলার তিলপাড়া এবং ঝাড়খণ্ডের ম্যাসাঞ্জোর জলাধারের জলস্তরের ওপর নির্ভর করে এই দুই জেলার সেচ খাল লাগোয়া এলাকার জমিগুলির চাষাবাদ। এবার সেচ খালগুলিতে জল সরবরাহের পরিমাণ বাড়তে পারে বলে চাষিদের আশা। কয়েকদিন আগে সেচদপ্তরের আধিকারিকদের উপস্থিতিতে বীরভূম জেলা পরিষদের কৃষি সংক্রান্ত স্থায়ী সমিতির বৈঠকে এই দুই জেলায় বোরো চাষে জল সরবরাহের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। যদিও এবার বর্ষা নির্দিষ্ট সময়ের বেশ কিছুদিন পর অবধি স্থায়িত্ব ছিল। ফলে, জেলার নদ-নদীগুলির জলস্তর গত বছরের চেয়ে তুলনামূলক ভালোই রয়েছে। তাই এবার কিছুটা কম হলেও বোরো চাষের জন্য পর্যাপ্ত জল পেতে চলেছেন বীরভূম ও মুর্শিদাবাদ জেলার কৃষকরা। আগামী জানুয়ারি মাসের শেষ অথবা ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহ থেকে চাষযোগ্য এলাকাগুলিতে এই জল দেওয়ার কাজ শুরু হবে বলে কৃষিদপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে। যদিও কবে থেকে এই জল দেওয়া শুরু হবে তা এখনও নির্দিষ্ট করা হয়নি। তা নির্ভর করবে শীত কেমন থাকছে তার ওপর। এই জলে বীরভূমের সাতটি ব্লকের সেচ খাল লাগোয়া এলাকা ও মুর্শিদাবাদের বড়ঞা ব্লকের ছ’টি মৌজার বোরো চাষিরা উপকৃত হবেন। 
বীরভূম জেলা পরিষদ সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্তমানে জেলার ময়ূরাক্ষী জলাধারে জলস্তর রয়েছে ৩৮৩.০৫ ফুট এবং ম্যাসাঞ্জোর জলাধারে জলস্তর রয়েছে ৩৮২.৫৫ ফুট। সেই অনুযায়ী গোটা বোরো চাষের মরশুমে বীরভূম ও মুর্শিদাবাদ জেলায় ২৪ হাজার ৬৫৮ একর জমিতে চাষের জন্য জল সরবরাহ করা হবে। এরমধ্যে বীরভূম জেলায় জমি রয়েছে ২৩ হাজার ৩২ একর এবং মুর্শিদাবাদে এই জমির পরিমাণ এক হাজার ৬২৬একর। মূর্শিদাবাদ জেলার বড়ঞা মৌজার বেলিয়ানি, তারাপুর, বিল লাঙলহাটা, মজলিশপুর, মামুদপুর ও জাওহারি এলাকায় বোরো চাষের জল সরবরাহ করবে বীরভূম জেলা। এই জেলায় সিউড়ি-১ ব্লকে জল পাবে ২৪৪৫ একর জমি, সিউড়ি-২ ব্লকে পাবে ৪৮৭৬ একর, সাঁইথিয়া ব্লকে ৩৫১০ একর, মহম্মদবাজার ব্লকে ৫৩৬৫ একর, ময়ূরেশ্বর-১ ব্লকে ২১৫০ একর, লাভপুর ব্লকে ৩৪৩২ একর এবং দুবরাজপুর ব্লকে ১২৫৪ একর জমিতে এই জল দেওয়া হবে। জেলা কৃষি দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, বীরভূম জেলায় প্রতি বছর আনুমানিক প্রায় ৪০হাজার হেক্টর জমিতে বোরো চাষ হয়ে থাকে। তার মধ্যে অর্ধেকের বেশি জমিতে চাষিরা পুকুর বা লাগোয়া জলাশয় ও সাবমার্সিবলের জলে চাষাবাদ করেন। তাই প্রতি বছর শুধুমাত্র সেচ খাল লাগোয়া এলাকাগুলিতেই ক্যানেল থেকে জল সরবরাহ করা হয়। চলতি বছর বর্ষার আগে থেকেই একের পর নিম্নচাপের জন্য বারবার আমন চাষে ব্যাঘাত ঘটেছে বলে চাষিদের দাবি। তাই আগামী বোরো চাষকেই পাখির চোখ করে দুই জেলার চাষিরা ইতিমধ্যে প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন। সেই প্রস্তুতির সঙ্গে সঙ্গে বোরো চাষের পর্যাপ্ত জল সরবরাহ করার আগাম সিদ্ধান্ত নিয়ে বীরভূম জেলা পরিষদ তাঁদের জলের চিন্তা লাঘব করল। জেলা পরিষদের কৃষি কর্মাধ্যক্ষ বিশ্ববিজয় মার্ডি বলেন, আমরা এবার আগে থেকেই দুই জেলার জন্য বোরো চাষে জল সরবরাহ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সেচ খাল লাগোয়া এলাকাগুলিতে বোরো চাষের জন্য পর্যাপ্ত জল নির্দিষ্ট সময়েই পৌঁছে যাবে। 

30th     November,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021