বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

রাজগ্রামে ডিজেল ১০১ টাকা, প্রতিবাদে
অবরোধ, বিক্ষোভ ট্রাক মালিকদের

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: পেট্রল আগেই সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছে। এবার সেই পথেই লিটারপিছু একশো টাকার গণ্ডি পার করল ডিজেলও। সোমবার মুরারইয়ের রাজগ্রাম পাথর শিল্পাঞ্চলে ডিজেলের দাম বেড়ে হয়েছে লিটারপিছু একশো টাকা এক পয়সা। আর এতেই সমস্যায় পড়েছেন শিল্পাঞ্চলের লরি মালিকরা। প্রতিবাদে রাস্তার পাশে সব গাড়ি দাঁড় করিয়ে দিয়েছেন তাঁরা। কারণ, ভাড়া অমিল। তাঁদের দাবি, লরির উপর নির্ভর করেই সংসার, ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা, চিকিৎসা চলে। করোনার জেরে দীর্ঘ আত্মশাসনে ব্যবসা মার খেয়েছে। তার উপরে ডিজেলের দাম অস্বাভাবিক বাড়ায় আমরা অসহায় হয়ে পড়েছি। আর্থিক ক্ষতি রুখতে ওভারলোডেড গাড়ি চালালে পুলিস মোটা টাকা জরিমানা করছে। তেলের দাম না কমলে আমাদের আত্মহত্যা ছাড়া পথ থাকবে না। 
করোনার জন্য এমনিতেই দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি ধুঁকছে। আত্মশাসনে বহু মানুষ কাজ হারিয়েছেন। ইতিমধ্যে সরকারি ও বেসরকারি সবক্ষেত্রই পুরোদমে চালু হয়েছে। লোকাল ট্রেন বন্ধ থাকায় কর্মস্থলে যেতে মানুষকে নাকাল হতে হচ্ছে। অনেকেই ব্যক্তিগত বাইক বা গাড়িতে কর্মস্থলে যাতায়াত করছেন। কিন্তু যেভাবে লাগাতার পেট্রল-ডিজেলের দাম বাড়ছে তাতে সবারই মাথায় হাত। সব থেকে বেশি সমস্যায় পড়েছেন যাঁরা ব্যাঙ্ক ঋণ নিয়ে লরি কিনে ব্যবসা করছেন। তেলের দাম বাড়লেও ভাড়া বাড়েনি। অতীতে কয়েকবার তেলের দাম বাড়লেও ওভারলোড গাড়ি চালিয়ে আর্থিক ক্ষতি সামলেছেন তাঁরা। বর্তমানে ওভারলোড নিয়ে কড়াকাড়ি করেছে প্রশাসন। ধরা পড়লেই মোটা টাকার জরিমানা করা হচ্ছে। তাই রাজগ্রামগামী রাস্তার দু’ধারে যত্রতত্র দাঁড়িয়ে পড়েছে লরি। 
রাজগ্রাম ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সম্পাদক সিদ্দিক হোসেন গাজি বলেন, ডিজেলের দাম রোজই বাড়ছে। এদিন সেই দাম বেড়ে হয়েছে লিটার পিছু ১০১ টাকা এক পয়সা। আমরা আর লরি চালাতে পারছি না। পরিবারের মুখে খাবার তুলে দিতে পারছি না। তাঁর অভিযোগ, ২০-২৫টি করে লরি রয়েছে এমন কিছু বড় মালিক পুলিসের সঙ্গে যোগসাজশে এখনও ওভারলোড চালাচ্ছেন। তাঁরাই পয়সা পাচ্ছেন। আমরা জরিমানার ভয়ে তা করতে পারছি না। আবার আন্ডারলোড  চালালে লোকসান হচ্ছে। বাধ্য হয়ে সব লরি দাঁড়িয়ে পড়েছে। সরকার তেলের দাম না কমালে আমাদের আত্মহত্যা ছাড়া পথ নেই। জানা গিয়েছে, এই শিল্পাঞ্চলে প্রায় দশ হাজারেরও বেশি লরি পাথর লোড করে কলকাতা, মুর্শিদাবাদ সহ উত্তরবঙ্গের নানা জেলায় দৈনিক যাতায়াত করে। যাঁরা এক বা দু’টি লরি নিয়ে ব্যবসা করছিলেন তেলের দাম বাড়ায় তাঁদের অবস্থা করুণ হয়ে উঠেছে। লরি মালিক কাজল শেখ, মহম্মদ রফিকরা বলেন, যেহারে তেলের দাম বাড়ছে তাতে লরি বিক্রি করে অন্য পেশায় যেতে হবে। এছাড়া কোনও উপায় নেই। কারোনার জন্য পাথর শিল্পাঞ্চল ধুঁকছে। লরি দাঁড়িয়ে পড়ায় ব্যবসায়ীরা ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছেন। রাজগ্রাম পাথর ব্যবসায়ী সমিতির কর্ণধার তথা জেলা পরিষদের বিদ্যুৎ কর্মাধ্যক্ষ আসগর আলি বলেন, বিক্রিবাটা না হওয়ায় শ্রমিকদের কাজ দিতে পারছি না। কঠিন অবস্থার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি। তার উপরে গাড়িগুলি বসে গেল কী হবে ভেবে কূল পাচ্ছি না। 

26th     October,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021