বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

নদী চরে ইটভাটা-ভেড়ি রুখতে কঠোর প্রশাসন
পূর্ব মেদিনীপুরে এসডিওদের নিয়ে কমিটি গঠন

শ্রীকান্ত পড়্যা, তমলুক : নদীর পাড়, খাল ও ক্যানেল দখল করে সেচদপ্তরের জায়গায় গজিয়ে ওঠা ইটভাটা, মাছের ভেড়ি সহ যাবতীয় নির্মাণের বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর কঠিন সিদ্ধান্ত নিল পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন। ফি বছর বর্ষায় জেলার বিস্তীর্ণ এলাকা মাসের পর মাস জলমগ্ন থাকার মূল কারণ নিকাশির অব্যবস্থা। সম্প্রতি কেলেঘাই নদীর বাঁধ ভেঙে পটাশপুর ও ভগবানপুর প্লাবিত হওয়ার নেপথ্যেও সেই নদীর পাড় জবরদখল করে ইটভাটা, ভেড়ি ও দোকানপাট তৈরির ঘটনাই সামনে এসেছে। সেচদপ্তরের জায়গা থেকে নির্মাণ সরিয়ে নিকাশি ব্যবস্থাকে সাজানোর পরিকল্পনা নিয়েছে জেলা প্রশাসন। এই কাজ কতটা মসৃণ গতিতে করা যাবে, তা নিয়ে সংশয় থাকলেও প্রশাসন এনিয়ে কোনওরকম নমনীয়তা দেখাবে না বলে জানিয়েছে।
জেলাশাসক পূর্ণেন্দু মাজি বলেন, এসডিওদের মাথায় রেখে প্রতিটি মহকুমায় বিশেষ কমিটি তৈরি করা হচ্ছে। সেচদপ্তরের জায়গা দখল করে নির্মাণের তালিকা তৈরি হবে। তারপর আমরা ব্যবস্থা নেব। ফি-বছর এভাবে কয়েক মাস ধরে জলযন্ত্রণা নিয়ে থাকা যায় না। এর সমাধান হওয়া দরকার।
জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, তমলুক, হলদিয়া, কাঁথি ও এগরার মহকুমা শাসকের নেতৃত্বে বিশেষ টিম গঠন করা হবে। সেই টিমে বিডিও, ব্লক ভূমি ও ভূমি সংস্কার অফিসার, সেচদপ্তর, পুলিস, সব গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান ও পুরসভার প্রতিনিধিরা থাকবেন। ঠিক হয়েছে, সেচদপ্তর প্রতিটি মহকুমা এলাকায় নদী, খাল ও ক্যানেলের পাড়ে নিজেদের জায়গায় গজিয়ে ওঠা দোকানপাট, বসতবাড়ি, ইটভাটা ও মাছের ভেড়ি চিহ্নিত করতে একটি সার্ভে করবে। সেই রিপোর্ট মহকুমা শাসকদের কাছে জমা পড়বে। এভাবেই চার মহকুমা থেকে এনিয়ে রিপোর্ট আসবে জেলায়। এরপরই পুলিস, সেচদপ্তর ও জনপ্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে অভিযান চালানো হবে।প্রতি বছর বর্ষার শুরু থেকেই চার-পাঁচ মাস পাঁশকুড়া, ময়না, শহিদ মাতঙ্গিনী ও কোলাঘাট ব্লকের বিস্তীর্ণ এলাকা জলমগ্ন থাকে। ফি-বছর হাজার হাজার মানুষের এই দুর্ভোগ লেগেই থাকে। এবছর নিম্নচাপের জেরে বেশ কয়েকবার ভারী বৃষ্টি হওয়ায় ওই চার ব্লকের প্রচুর গ্রামীণ রাস্তা, নিচু এলাকায় ঘরবাড়ি, দোকানপাট জলমগ্ন। শহিদ মাতঙ্গিনী বিডিও অফিসও জলমগ্ন। বিডিও নিজের অফিস ছেড়ে ওই প্রেমিসেসে পুরাতন ব্লক ভূমি ও ভূমি সংস্কার অফিসে বসছেন।গত ১৭সেপ্টেম্বর পটাশপুরের তালছিটকিনি গ্রামের কেলেঘাই নদীবাঁধ ভেঙে পটাশপুর ও ভগবানপুর প্লাবিত করে। ৬অক্টোবর রাতে সেই নদীবাঁধ মেরামত হলেও আজও ভগবানপুর-১ ব্লকের কোটবাড়, বিভীষণপুর, কাকড়া, কাজলাগড় প্রভৃতি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা জলমগ্ন। সেপ্টেম্বরের মাঝামাঝি থেকে আজও কয়েক হাজার দুর্গত স্কুলে আশ্রয় নিয়ে আছেন। নদীতে জলস্তর কমলেও কেন প্লাবিত এলাকা থেকে জল গড়াচ্ছে না, তা নিয়ে এলাকা ভিজিট করে প্রশাসন ও সেচদপ্তরের পর্যবেক্ষণ, নিকাশি খাল জবরদখল হয়ে যাওয়ায় এই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। ভগবানপুর-১ ব্লকের নিকাশির গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হল কলাবেড়িয়া খাল। কলাবেড়িয়া বাজারে অন্তত দু’শো দোকান খালের দু’পাড় দখল করে নিয়েছে। ভগবানপুর ও পটাশপুরে বেশকিছু জায়গায় কেলেঘাই নদীর চর জবরদখল করে ইটভাটা তৈরি হয়েছে। নদীর স্বাভাবিক গতিপথ অবরুদ্ধ হওয়ায় বর্ষার সময় জলস্ফীতি হলে নদীবাঁধের উপর অতিরিক্ত চাপ পড়ছে। যেকারণে তালছিটকিনি গ্রামে কেলেঘাই নদীবাঁধ ভেঙে কয়েক লক্ষ মানুষের জীবনকে দুর্বিষহ করে দিয়েছে। এবারের বন্যায় জেলায় মোট ন’জনের প্রাণ গিয়েছে।

26th     October,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021