বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

দীপাবলির আগেই অসম্পূর্ণ
বাড়ি নির্মাণে নয়া কর্মসূচি
 ‘গৃহপ্রবেশ’

নিজস্ব প্রতিনিধি, তমলুক: গত দু’বছর বাংলার আবাস যোজনায় অসম্পূর্ণ ১৬হাজার ৭০০বাড়ি তৈরির লক্ষ্যে ‘গৃহপ্রবেশ’ কর্মসূচি হাতে নিল পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন। একবারে অভিনব পদক্ষেপ। দেওয়ালি উৎসবের মধ্যেই ২৫টি ব্লকে অসম্পূর্ণ থাকা ২০১৯-’২০ এবং ২০২০-’২১আর্থিক বছরের ওই সংখ্যক বাড়ির কাজ সম্পূর্ণ করার টার্গেট নেওয়া হয়েছে। ১৫সেপ্টেম্বর দুয়ারে সরকার কর্মসূচি শেষ হওয়ার পর জেলা প্রশাসনের পাখির চোখ এখন গৃহপ্রবেশ। বাংলার আবাস যোজনায় পূর্ব মেদিনীপুরের পারফরম্যান্স মোটেও ভালো নয়। রাজ্যের অন্যান্য জেলার তুলনায় পূর্ব মেদিনীপুর অনেকটাই পিছনের সারিতে রয়েছে। পিছিয়ে পড়ার মূল কারণ গত বিগত দু’টি আর্থিক বছরে প্রায় ১৭হাজার বাড়ি না হওয়া। এখন উপভোক্তাদের অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়া হয়েছে। দেওয়ালির মধ্যেই বকেয়া কাজ সম্পূর্ণ করতে হবে। দেওয়ালি উৎসবে ৪নভেম্বর জেলাজুড়ে গৃহপ্রবেশ অনুষ্ঠান হবে। এই কর্মসূচি সফল হলে আবাস যোজনায় পূর্ব মেদিনীপুর জেলা ব্যর্থতা কাটিয়ে সামনের সারিতে চলে আসবে বলে জেলা প্রশাসন মনে করছে।
এপর্যন্ত পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় আবাস যোজনা প্রকল্পে ২লক্ষ ৪০১১টি বাড়ি তৈরি হয়েছে। কিন্তু, বিগত দু’টি আর্থিক বছরে ১৬হাজার ৭০০বাড়ি তৈরি হয়নি। অ্যাকাউন্টে টাকা ঢুকলেও অনেকে বাড়ির কাজ শুরু করেননি। আবার কেউ কেউ শুরু করার পর মাঝপথে বন্ধ করে দিয়েছেন। যে কারণে ইউসি(ইউটিলাইজেশন সার্টিফিকেট) দেওয়া হয়নি। সম্প্রতি জেলাজুড়ে এধরনের উপভোক্তাদের চিহ্নিত করে সাতদিনের মধ্যে বাড়ি তৈরির নোটিস ইস্যু করা হয়। কয়েকটি ব্লকে উপভোক্তাদের বিরুদ্ধে বিডিও-রা  এফআইআর করেছিলেন। এগরা-২ব্লকে ২৪জনের বিরুদ্ধে এফআইআর হয়। দু’জনকে পুলিস গ্রেপ্তারও করে।
এফআইআর এবং গ্রেপ্তারের পর অনেকেই বাড়ির কাজ শুরু করেছেন। এরইমধ্যে ৪নভেম্বর দেওয়ালি উৎসবে জেলাজুড়ে গৃহপ্রবেশ কর্মসূচি নিয়েছে প্রশাসন। তার আগেই অসম্পূর্ণ সব বাড়ি সম্পূর্ণ করতে হবে বলে বিডিওদের টার্গেট বেঁধে দেওয়া হয়েছে। যেমন, ভগবানপুর-১ ও ২ব্লকে যথাক্রমে ২৮০০টি ও ১০০০টি, চণ্ডীপুর ব্লকে ১৫০০টি, কাঁথি-১ ও ৩ব্লকে ৫০০টি করে, দেশপ্রাণ ব্লকে ১৫০০টি, এগরা-১ ও ২ব্লকে যথাক্রমে ৩৫০টি এবং ৬০০টি, হলদিয়া ব্লকে ১৫০টি, খেজুরি-১ ও ২ব্লকে যথাক্রমে ৯০০টি ও ৫০০টি, কোলাঘাটে ৩৫০টি, মহিষাদলে ৫০০টি, ময়নায় ২৫০টি, নন্দকুমারে ৭০০টি, নন্দীগ্রাম-১ ও ২ব্লকে যথাক্রমে ৪০০টি ও ৬০০টি, পাঁশকুড়া ব্লকে ৪৫০টি, পটাশপুর-১ ও ২ব্লকে যথাক্রমে ৮০০টি ও ৬০০টি, রামনগর-১ ও ২ ব্লকে যথাক্রমে ২৫০টি ও ৪০০টি, শহিদ মাতঙ্গিনী ব্লকে ৪০০টি, সুতাহাটায় ১০০টি ও তমলুক ব্লকে ৬০০টি বাড়ি তৈরির টার্গেট দিয়েছে প্রশাসন।
অতিরিক্ত জেলাশাসক(জেলা পরিষদ)শ্বেতা আগরওয়াল গত ১৩সেপ্টেম্বর ২৫টি ব্লকের বিডিও-র কাছে গৃহপ্রবেশ কর্মসূচি রূপায়ণের নির্দেশিকা পাঠিয়েছেন। ৪নভেম্বর দেওয়ালিতে জেলাজুড়ে গৃহপ্রবেশ অনুষ্ঠান হবে। তারআগে ১৬হাজার ৭০০বাড়ি তৈরির কাজ সম্পূর্ণ করতে হবে। এখনও পর্যন্ত ৯২টি হয়েছে। ব্লক প্রশাসন অঞ্চল ভিত্তিক অসম্পূর্ণ বাড়ির তালিকা তৈরি করে গ্রাম পঞ্চায়েতকে ঝাঁপিয়ে পড়ার নির্দেশ দিয়েছে।
অতিরিক্ত জেলাশাসক বলেন, আবাস যোজনায় আমাদের জেলার পারফরম্যান্স মোটেও সন্তোষজনক নয়। আমাদের এখান থেকে ঘুরে দাঁড়াতে হবে। সেই জন্য গৃহপ্রবেশ কর্মসূচির মাধ্যমে অসম্পূর্ণ বাড়ি সম্পূর্ণ করার বিশেষ অভিযান নেওয়া হয়েছে।

23rd     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021