বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

তিস্তা-জলঢাকার উপখালের কাজ শুরু হচ্ছে: সেচমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি, জলপাইগুড়ি ও সংবাদদাতা, আলিপুরদুয়ার: আগামী বছর থেকে তিস্তা-জলঢাকা সেচখালের ৪ ও ৬ নম্বর উপখালের কাজ শুরু হবে। যার জেরে জেলায় নতুন করে অন্তত ৫০ হাজার মানুষ প্রত্যক্ষভাবে সুবিধা পেতে চলেছেন। শনিবার জেলাশাসক দপ্তরে প্রশাসনিক বৈঠক শেষে এমনই ইঙ্গিত দিলেন রাজ্যের সেচমন্ত্রী পার্থ ভৌমিক। সেই সঙ্গে দীর্ঘ প্রায় তিরিশ বছর ধরে চলা ওই দুই উপখালের জমিজট, দু’মাসের মধ্যে কাটানোর ব্যাপারে জেলা প্রশাসনের তৎপরতারও ভূয়সী প্রশংসা করেন মন্ত্রী। বলেন জেলায় আরও বেশি পরিমাণ চাষের জমিতে সেচের জল পৌঁছে দিতে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী পরিকল্পনা নিয়েছিলেন। আমরা সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী পুজোর আগে জেলায় আসি। প্রশাসনকে অনুরোধ করে গিয়েছিলাম, ওই দুই উপখালের জমিজট কাটানোর ব্যাপারে। জেলাশাসক ও তাঁর টিম অতি তৎপরতার সঙ্গে সেই জমিজট মিটিয়েছেন। যার জন্য সেচ দপ্তর ওই দুই উপখাল তৈরির কাজে দ্রুত হাত দিতে পারবে। আগামী কিছুদিনের মধ্যে প্রয়োজনীয় প্রশাসনিক প্রক্রিয়া শুরু হবে। এছাড়াও এদিন তিনি বলেন তিস্তা-জলঢাকা সেচখালের ২ নম্বর উপখালের সমস্যার ব্যাপারেও আগামী জানুয়ারি মাসে কথা বলবেন। তাঁর কথায় আমরা নির্ধারিত সময় বেঁধে দিয়ে এখন দপ্তরের কাজ এগোচ্ছি। জলপাইগুড়ি শহরে করলা ও গদাধর ক্যানেল নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। এ ব্যাপারেও কিছু ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা রয়েছে বলে তিনি জানান। একইসঙ্গে তিনি জানান মাল নদীতে হরপা বানের জন্য যে বিপর্যয় হয়েছিল, সে ব্যাপারে আগামী দিনে ভুটান সীমান্তে সেচ সংক্রান্ত বিভিন্ন পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। 
প্রসঙ্গত ওই দপ্তর সূত্রে খবর, তিস্তা জলঢাকা সেচ খালে ৪ নম্বর উপখালের দৈর্ঘ্য প্রায় ১২ কিমি। এই উপখালের কাজ সম্পূর্ণ হলে ১৬০০ হেক্টর জমিতে সেচের জল পৌঁছবে। একইভাবে ৬ নম্বর উপখালের দৈর্ঘ্য ১০ কিমি। এই উপখালের কাজ সম্পুর্ন হলে ১৯৬০ হেক্টর জমিতে সেচের জল যাবে। তিস্তা ব্যারেজ সেচখাল থেকে জলপাইগুড়িতে এখনও পর্যন্ত বিভিন্ন খালের মাধ্যমে ১ লক্ষ ১১ হাজার ৬৩০ একর কৃষি জমিতে জল পৌঁছয়। খালগুলি রয়েছে মূলত জেলার সদর, রাজগঞ্জ, ময়নাগুড়ি, মালবাজারে। একইভাবে উত্তরদিনাজপুরে চোপড়া, ইসলামপুর এলাকায় ২ হাজার ১০০ একর জমিতে ও শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদ এলাকারj ২ হাজার ৭০০ একর চাষের জমিতে জল যায় । 
অন্যদিকে, এদিনই জেলায় কয়েকটি জায়গায় বাঁধ সংস্কার ও নির্মাণ কাজের সূচনা করেন সেচমন্ত্রী। ১৪.৬০ লাখ টাকা ব্যায়ে মেটেলি ব্লকের বাতাবাড়ি সেচ প্রকল্প সংস্কারের কাজ শুরু হল। এই কাজ সম্পূর্ণ হলে উপকৃত হবেন ১৫০০ মানুষ। এরপর ৬২.৫২ লাখ টাকা কিলকট ইংডং ঝোরা সেচ প্রকল্প সংস্কারের কাজের সূচনা হয়। এটি সম্পূর্ণ হলে ৫ হাজার মানুষ উপকৃত হবেন। এছাড়াও নাগরাকাটায় কুর্তি নদী উপকূলবর্তী একটি এলাকাও  পরিদর্শনে করেন মন্ত্রী। পরে তিনি যান আলিপুরদুয়ারে। আজ রবিবার সেচমন্ত্রী সেখানে নারারথলি-কামাখ্যাগুড়ি সেচখালের সংস্কার কাজের শিলান্যাস করবেন। 
 জলপাইগুড়িতে জেলাশাসকের কনফারেন্স হলে বৈঠক করছেন সেচমন্ত্রী পার্থ ভৌমিক। 

27th     November,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ