বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

জলপাইগুড়ি শহরের অনেক 
রাস্তা বেহাল, বাড়ছে ক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিনিধি, জলপাইগুড়ি: রাস্তার পিচের চাদর উঠে গিয়েছে। বেরিয়ে এসেছে পাথর। গর্তে ভরে গিয়েছে গোটা রাস্তা। বৃষ্টির হলেই ওই সব গর্তে  জল জমে যায়। মাঝেমধ্যেই জলভরা ওই গর্তে চাকা পড়ে উল্টে যায় বাইক। ঘটে যায় দুর্ঘটনা। পরিস্থিতি এই পর্যায়ে পৌঁছেছে যে, দুর্ঘটনার ভয়ে অনেক পাড়ার ভিতরের রাস্তায় টোটো ঢুকতে চায় না। দিনের পর দিন এ ধরনের বেহাল রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করতে হচ্ছে স্থানীয় বাসিন্দা ও নিত্যযাত্রীদের। যা নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছেন জলপাইগুড়ি পুরসভার ১, ২, ১৬, নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। বছর পঞ্চান্নর মহিলা চম্পা মণ্ডল এক নম্বর ওয়ার্ডের রাজবাড়ি পাড়ার বাসিন্দা। বলেন, তাঁদের পাড়ার রাস্তা এতটাই খারাপ যে, কোনও টোটোই ঢুকতে চায় না। বয়স্ক মানুষ কোনও কাজে বাইরে গেলে ফেরার পথে টোটো পান না। পাড়ার বাইরে টোটোচালক যাত্রীদের নামিয়ে দিয়ে চলে যান। বহুবার স্থানীয় যিনি কাউন্সিলার ছিলেন, তাঁকে জানিয়েও কাজ হয়নি। 
শুধু তিনি নন, একই অভিযোগ করেন শঙ্করী কর্মকারও। ওই পাড়াতেই সবুজ সঙ্ঘের কাছে এবরো খেবরো রাস্তা। স্থানীয় বাসিন্দা গোবিন্দ বর্ধন বলেন, পাড়ার রাস্তায় অন্তত দীর্ঘদিন কোনও কাজ হয়নি। ১ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূলের প্রাক্তন কাউন্সিলার সম্রাট রায়চৌধুরী রাস্তা খারাপের বিষয়টি স্বীকার করে নিয়ে বলেন, ১ নম্বর ওয়ার্ড বিশাল বড়। রাস্তার বিস্তারও অনেক। তাই বিপুল খরচের কারনে এই পাড়ার বিস্তীর্ণ রাস্তা তৈরির জন্য এসজেডিএকে রাস্তা তৈরি করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। তিনিও স্বীকার করেন বহু বছর ওই ওয়ার্ডের রাস্তাগুলিতে কাজ হয়নি। 
আবার ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা হরি বর্মন বলেন, তাঁদের ওয়ার্ডের সার্ফের মোড় থেকে ৪ নম্বর ঘুমটি পর্যন্ত যাওয়ার জনবহুল গলি রাস্তা অত্যন্ত খারাপ। এবছর দফায় দফায় বৃষ্টির পর রাস্তার অবস্থা আরও করুণ হয়েছে। তার অভিযোগ, গত ৬ বছরে সেখানে রাস্তা মেরামতের কোনও কাজ হয়নি। এখানেও প্রায় দিনই রাস্তা খারাপের কারণে সাইকেল, বাইক, টোটো উল্টে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ তাঁর। আবার ২০ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা স্বদেশ সাহা বলেন, ৫ নম্বর ঘুমটি থেকে জামতলা পর্যন্ত রাস্তা খুবই খারাপ। এই রাস্তাতেও পাথর যেন নখ দাঁত বের করে রয়েছে। মাঝেমধ্যেই দেখি, লোকজন হোঁচট খেয়ে পড়ে যাচ্ছে। এ ব্যাপারে কংগ্রেস নেতা  অম্লান মুন্সি বলেন, জলপাইগুড়ি পুরসভা অঞ্চলের ৭৫ শতাংশ রাস্তাই খারাপ। বহু বছর সেগুলিতে কোনও কাজ হয়নি। বহু মানুষ আমাদের কাছে সমস্যার কথা জানান, আমরা বিরোধী হিসেবে যতটা বলা যায়, বলি। বিজেপির জেলা সভাপতি বাপী গোস্বামী বলেন, কেন্দ্রীয় সরকারের টাকা লুট করে খাওয়া চলছে। রাস্তা মেরামত হবে কোথা থেকে। আগামী পুরভোটে মানুষ এসবের জবাব দেবেন। 
এ ব্যাপারে পুরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান পাপিয়া পাল বলেন, আমাদের পুরপ্ৰশাসক বোর্ড তৈরি হয়েছে করোনা পরিস্থিতির মধ্যে। তারপর থেকে  একটা বড় সময় অতিবাহিত হল কোভিড পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে। ছিল বিধানসভা ভোটের বিধিনিষেধও। আমরা ভেবেছিলাম, পুজোর আগে কিছু রাস্তা করব। পথশ্রীর কাজও কিছু কিছু শুরু হয়েছিল। কিন্তু তা সম্পূর্ণ হয়নি। ইতিমধ্যে কয়েকটি রাস্তার টেন্ডারও করেছি। কিন্তু ওয়ার্কঅর্ডার দিতে পারিনি। কারণ, বেশ কিছুদিন আটকে গিয়েছিলাম বালি, পাথর তোলায় নিষেধাজ্ঞার কারণে। পুজোর পর অফিস খুললেই আমরা রাস্তা তৈরির ব্যাপারে বৈঠকে বসব।   নিজস্ব চিত্র

26th     October,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021