বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

পঞ্চায়েত সমিতির একাধিক পদাধিকারীর
বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের

সংবাদদাতা, হরিশ্চন্দ্রপুর: বন্যাত্রাণ নিয়ে অনিয়মে  যুক্ত থাকার অভিযোগে পঞ্চায়েত সমিতির একাধিক পদাধিকারীর বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে মালদহের হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লক প্রশাসন। এই ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে,তিনজনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধারায় মামলা রুজু করা হয়েছে। ভুয়ো উপভোক্তা তালিকা তৈরি করে ভুয়ো অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে নেওয়ার অভিযোগে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের বিরুদ্ধে এবারে মামলা রুজু করে পুলিস প্রশাসন কড়া ব্যবস্থা নিতে চলেছে বলে সূত্রের খবর। কিছুদিন আগেই ব্লকের বড়ই এলাকার মোবারকপুর অঞ্চলে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাক্তন এক পঞ্চায়েতের সদস্যকে একই অভিযোগে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। তার সঙ্গে চার জন ভুয়ো উপভোক্তাকেও গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই ঘটনার কিছুদিন আগে বরুই গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান তৃণমূলের সোনামণি সাহার বিরুদ্ধে এফআইআর করেন হরিশ্চন্দ্রপুর ১ বিডিও অনির্বাণ বসু। এদিকে নতুন করে শাসক দলের তিন জন পদাধিকারীর বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযোগ দায়ের হওয়ায় এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। দুর্গতদের জন্য বরাদ্দ বন্যা ত্রাণের টাকা আত্মসাতের অভিযোগে তিনজন পদাধিকারীর বিরুদ্ধে এফআইআর করা হলেও তাদের সঙ্গে আরও অনেকেই রয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। উল্লেখ্য, বন্যায় আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত এবং সম্পূর্ণ ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য অনুদান দেওয়া হয় রাজ্য সরকারের তরফে। কিন্তু প্রকৃত উপভোক্তাদের অনেকেই টাকা পাননি বলে তারা প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ জানান। প্রশাসনিক সূত্রে সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৭ সালের বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকায় নাম থাকলেও অনেকে টাকা পাননি বলে প্রশাসনের দ্বারস্থ হন। তদন্তে নেমে প্রশাসন জানতে পারে দুর্গতদের নাম থাকলেও তাঁদের নামের পাশে অন্যের অ্যকাউন্ট নম্বর বসিয়ে দিয়ে টাকা তোলা হয়েছে। এনিয়ে আাদলতে মামলাও করেছেন হরিশ্চন্দ্রপুরের প্রাক্তন কংগ্রেস বিধায়ক মোস্তাক আলম।
অভিযুক্তদের কারও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। অভিযোগকারী বরুই গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরোধী দলনেতা কংগ্রেসের আব্দুল মান্নান বলেন, ২০১৭ সালে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের একটি তালিকা তৈরি হয়। ক্ষতিপূরণের টাকা আসে। কিন্তু প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা সেই টাকা পাননি। দেখা যায় কয়েকজন পদাধিকারী তাদের আত্মীয়দের অ্যাকাউন্টে টাকা পাঠিয়ে দিয়েছেন। আমাদের দাবি প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের টাকা দেওয়া হোক। আর জনপ্রতিনিধি হয়ে পদে থেকে যারা দুর্নীতি করল তাদের উপযুক্ত শাস্তি দাবি করছি। হরিশ্চন্দ্রপুর-১ ব্লক তৃণমূল সভাপতি মানিক দাস বলেন, তৃণমূল কখনও দুর্নীতি সমর্থন করে না। আইন আইনের পথেই চলবে। 
এবিষয়ে চাঁচলের এসডিপিও শুভেন্দু মণ্ডল বলেন, অভিযোগ খতিয়ে দেখে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এই প্রসঙ্গে চাঁচলের মহকুমা শাসক কল্লোল রায় বলেন, তদন্তের পর ব্লক  প্রশাসনের তরফে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।পুরো বিষয়টি পুলিস তদন্ত করে দেখবে। 

28th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021