বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

দুঃস্থদের মানোন্নয়নে এবার
জলপাইগুড়ি জেলায় সমীক্ষা 
আগামী অর্থবর্ষে নেওয়া হবে বিশেষ পরিকল্পনা

নিজস্ব প্রতিনিধি, জলপাইগুড়ি: করোনায় কেউ কাজ হারিয়েছেন, কাউকে ব্যবসার পাততাড়ি গোটাতে হয়েছে। দেড়বছরের বেশি সময় ধরে আর্থিক মন্দা অনেককেই দারিদ্রসীমার নীচে নামিয়ে দিয়েছে। আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া দুঃস্থদের গরিবি হটাতে এবার আসরে নামছে জলপাইগুড়ি জেলা পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন  দপ্তর।আগামী অর্থবর্ষ ২০২২-’২৩ থেকেই তারা এ ব্যাপারে নতুন উদ্যোগ শুরু করতে চলেছে। তারআগে জেলার মোট ৮০টি পঞ্চায়েত এলাকায় দরিদ্র মানুষদের চিহ্নিত করার কাজ শুরু হবে। জেলা পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তর সূত্রে খবর, প্রতিবার পুজোর পর আগামী অর্থবর্ষের নানা পরিকল্পনা নিয়ে কাজ শুরু হয়। যেখানে পঞ্চায়েত এলাকার সার্বিক উন্নয়নই মূল লক্ষ্য থাকে। এবারও সেই কাজটাই হচ্ছে। তবে শুধু রাস্তাঘাট, বিদ্যুতায়নের মতো বিষয়গুলি ছাড়াও আগামী অর্থবর্ষের জন্য নতুন সংযোজন হয়েছে ‘ভিলেজ পোভারটি রিডাকশন প্ল্যান’। যার ফলে গ্রামে দারিদ্রসীমার নীচে থাকা বহু মানুষ উপকৃত হবে। কিন্তু, কিভাবে কার্যকর হবে ‘ভিলেজ পোভারটি রিডাকশন প্ল্যান’? দপ্তর সূত্রে খবর, জেলার সবক’টি পঞ্চায়েত এলাকার স্বনির্ভর গোষ্ঠীগুলি বিভিন্ন এলাকার দুস্থ, গরিব লোকদের খুঁজবে। তাদের চিহ্নিত করবে। কী ধরনের সমস্যায় তাঁরা ভুগছেন জানার চেষ্টা করবে। তারাই গরিব মানুষদের তালিকা তৈরি করবে। সেই তালিকা নিয়ে আলোচনা হবে স্থানীয় গ্রাম পঞ্চায়েতের পাড়া বৈঠকে। সেখান থেকে সেই তালিকা গ্রামসভা হয়ে পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের কাছে আসবে। এরপর সেইসব মানুষদের জন্য বিশেষ পরিকল্পনা নেবে দপ্তর। প্রশাসন সূত্রে খবর, খুব শীঘ্রই জেলার বিভিন্ন দপ্তরকে নিয়ে এ ব্যাপারে একটা প্রশিক্ষণ শিবির হবে। তারাই কাজটি করবে। 
একজন গরিব মানুষকে চিহ্নিত করতে কি কি দেখা হবে? পঞ্চায়েত এলাকাগুলিতে এখনও কাদের ঘর নেই, কারা কারা কাজ খুঁইয়ে ঘরে বসে রয়েছে, সরকারি সুবিধা নিতে আসেননি বা পাননি ইত্যাদিও জানা হবে। এরপর সেই তালিকা পাড়া বৈঠক হয়ে গ্রাম সভায় পাশ হবে যাতে ওই মানুষগুলির স্বচ্ছ্বলতা ফেরানো যায়। 
এ ব্যাপারে জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু বলেন, গ্রাম পঞ্চায়েতে উন্নয়ন পরিকল্পনার ক্ষেত্রে কয়েকটি দিক আছে। তারমধ্যেই একটি ওই পরিকল্পনা। বিষয়টি নিয়ে কয়েকদিনের মধ্যে একটি প্রশিক্ষণ হতে চলেছে। 
এদিকে বিষয়টি নিয়ে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা মনে করছেন, ২০২৩ সালে পঞ্চায়েত ভোট। তারআগে এই পরিকল্পনা গ্রাম বাংলার মানুষের মনজয় করতে ইতিবাচক ভূমিকা নেবে। বিশেষ করে জেলায় গত লোকসভা ভোটে ধস নেমেছিল রাজ্যের শাসক শিবিরে। সেই ক্ষতি পূরণ করতে এই উদ্যোগ কাজে দেবে। এবার জেলায় সাতটি বিধানসভার মধ্যে তিনটিতে তৃণমূল কংগ্রেস এবং চারটিতে বিজেপি জয়ী হয়। জেলার লোকসভা আসনটিও বিজেপির দখলে রয়েছে। এমন অবস্থায় জেলা প্রশাসনের এই পদক্ষেপে গরিব মানুষের অসুবিধা আরও কমাবে। 

28th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021