বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
উত্তরবঙ্গ
 

তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষে
জখম এক কর্মীর মৃত্যু

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কোচবিহার ও সংবাদদাতা, কুমারগ্রাম: তৃণমূল কংগ্রেসের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে গুরুতর আহত হয়ে মৃত্যু হল দলীয় এককর্মীর। রবিবার গভীর রাতে কোচবিহারের একটি নার্সিংহোমে ওই ব্যক্তির মৃত্যু হয়। পুলিস জানিয়েছে, মৃতের নাম ওসমান গনি মণ্ডল (৪৫)। তাঁর বাড়ি দেওচড়াই গ্রাম পঞ্চায়েতের কৃষ্ণপুরের ঘোনাপাড়ায়। রবিবার সকালে কৃষ্ণপুরে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে ব্যাপক মারপিট হয়। ওই ঘটনায় দুই গোষ্ঠীর মোট ২০ জনেরও বেশি আহত হয়েছিলেন। তাঁদের মধ্যে বেশকয়েক জনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। জখমদের মধ্যে ওসমান গনি মণ্ডলের আঘাত গুরুতর ছিল। গভীর তাঁর মৃত্যু হয়। 
জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ওই ঘটনায় শোকপ্রকাশ করা হয়। দলের পক্ষ থেকেও স্বীকার করে নেওয়া হয়, এলাকায় অঞ্চল সভাপতি নিয়ে একটা পুরনো সমস্যা রয়েছে। উল্লেখ্য, দেওচড়াইতে দলের প্রাক্তন জেলা সভাপতি পার্থপ্রতিম রায়ের সময়ে ফারুক মণ্ডলকে অঞ্চল সভাপতি করা হয়েছিল। পরবর্তীতে নাটাবাড়ির প্রাক্তন বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ ঘোষ মজিবর রহমানকে অঞ্চল সভাপতি নিয়োগ করেছিলেন। যা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই দ্বন্দ্ব চলছে। 
কোচবিহারের অতিরিক্ত পুলিস সুপার কুমার সানি রাজ বলেন, দেওচড়াইয়ের সংঘর্ষে আটজন আহত হয়েছিলেন। তাঁদের মধ্যে ওসমান গনি মণ্ডলের মৃত্যু হয়েছে। ওই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। নির্দিষ্ট মামলা দায়ের করা হয়েছে। মজিবর রহমান বলেন, রবিবার রাত সাড়ে ১২টা নাগাদ কোচবিহারের একটি নার্সিংহোমে ওসমান গনি মণ্ডলের মৃত্যু হয়। ওসমান তৃণমূলের একনিষ্ঠ কর্মী ছিলেন। এলাকা বর্তমানে শান্ত রয়েছে। আমরা আবারও বলেছি, কোথাও কোনও গণ্ডগোল করা যাবে না। জেলা তৃণমূলের সভাপতি গিরীন্দ্রনাথ বর্মন বলেন, মৃত্যুর ঘটনা বেদনাদায়ক। আমি পুরো ঘটনার খোঁজ নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করব। দলের কর্মীদের প্রতি আমার বার্তা, যদি কোনও সমস্যা দেখা দেয় তাহলে ব্লক সভাপতিকে তা জানান। ব্লক সভাপতি জেলা সভাপতিকে জানাবেন। কেউ যাতে দ্বন্দ্বে না জড়িয়ে পড়েন। ওই গ্রাম পঞ্চায়েতে দুই সভাপতি নির্বাচন নিয়ে যে দ্বন্দ্ব রয়েছে তাতো এখনও মেটেনি। আমি তা মেটানোর উদ্যোগ নেব। 
দল ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ওসমান গনি মণ্ডল পেশায় সব্জি বিক্রেতা ছিলেন। বাড়িতে তাঁর বাবা, স্ত্রী, এক ছেলে ও মেয়ে আছে। ঘটনার দিন তিনি কৃষ্ণপুর বাজার থেকে সাইকেল চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। বাজার থেকে কিছুটা দূরে তাঁর উপরে আক্রমণ হয়। পেছন থেকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাঁকে আঘাত করা হয় বলে অভিযোগ। তাঁর মাথায় গুরুতর আঘাত লাগে। এরপর তাঁকে কোচবিহার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। সেখান থেকে নার্সিংহোমে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। প্রসঙ্গত, রবিবার সকাল থেকে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরে উত্তাল হয়ে উঠেছিল কৃষ্ণপুর। তারআগে শনিবার একব্যক্তিকে চড় মারাকে কেন্দ্র করে গণ্ডগোলের সূত্রপাত হয়। রবিবার সকালে ওই ঘটনার জেরে এলাকায় অশান্তি ছড়ায়। এতেই অনেকে আহত হন। 

28th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021