বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিদেশ
 

রানির বিদায়ে স্তব্ধ ব্রিটেন
 

নিজস্ব প্রতিনিধি, লন্ডন: যেন থমকে গিয়েছে লন্ডনের চিরপরিচিত বিগ বেন! চারদিক ভরে গিয়েছে ক্যারোলের সুরে। শোকস্তব্ধ গোটা ইংল্যান্ড। খাতায়-কলমে শেষ হয়েছে ১১ দিনের রাষ্ট্রীয় শোক। কিন্তু ব্রিটেনবাসী এ শোক এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেননি। ১৯৫৩ সালে যে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে এলিজাবেথের মাথায় উঠেছিল রাজমুকুট। তারও কয়েক বছর আগে ঠিক এখানেই একে অপরের হাত ধরেছিলেন প্রিন্সেস এলিজাবেথ ও প্রিন্স ফিলিপ। সোমবার সেই ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেই সাক্ষী থাকল ব্রিটেনের রানির শেষযাত্রার। এদিন উইনসরে সমাধিস্থ করা হল প্রয়াত রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথকে। শেষ হল এক অধ্যায়ের।
ইংল্যান্ডের ঘড়িতে তখন ঠিক সকাল ১১টা বেজে ৫৫ মিনিট। দু’মিনিট নীরবতা পালন করা হল গোটা ব্রিটেন জুড়ে। তারপর বেজে উঠল জাতীয় সঙ্গীত— ‘গড সেভ দ্য কিং’। ওয়েস্টমিনস্টার হল থেকে বের করে আনা হয়েছে রানির কফিন। গথিক অ্যাবেতে তখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সহ বিশ্বের তাবড় রাষ্ট্রনেতা ও রাজপরিবারের সদস্যরা উপস্থিত। আমন্ত্রিত অতিথির সংখ্যা প্রায় ২ হাজার। ভারতের তরফে রানির শেষকৃত্যে যোগ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু। এছাড়াও ভারতীয় প্রতিনিধি দলে ছিলেন বিদেশ সচিব বিনয় কাতরা। কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলির রাষ্ট্রপ্রধানদের সঙ্গেই ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে পৌঁছন রাষ্ট্রপতি ও বিদেশ সচিব। অবশ্য, তার আগেই দ্রৌপদী মুর্মুর সঙ্গে কথা হয়েছে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর বোন শেখ রেহানার। রবিবার বাকিংহাম প্যালেসে রাজা তৃতীয় চার্লসের সঙ্গে দেখা করেন রাষ্ট্রপতি।
ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবেতে রানির শোকযাত্রায় পা মেলালেন তাঁর পুত্র রাজা তৃতীয় চার্লস। সঙ্গে এলিজাবেথের আরও তিন সন্তান প্রিন্সেস অ্যান এবং প্রিন্স অ্যান্ড্রু ও এডওয়ার্ড। দেখা গেল চার্লসের দুই ছেলে প্রিন্স উইলিয়াম ও হ্যারিকে। ব্রিটেনের দীর্ঘতম শাসকের শেষকৃত্যে হাজির ছিল রাজপরিবারের দুই খুদে সদস্য উইলিয়ামের দুই সন্তান প্রিন্স জর্জ ও প্রিন্সেস শার্লট।
রানির শেষযাত্রায় যোগ দিয়েছিলেন ব্রিটেনের সশস্ত্র বাহিনীর প্রায় ৬ হাজার সদস্য। সেনাবাহিনীর কাঁধে চড়ে এলিজাবেথের কফিন এগিয়ে চলেছে, প্রয়াত মাকে স্যালুট করে অভিবাদন জানালেন রাজা তৃতীয় চার্লস। যখন ওয়েস্টমিনস্টারে চলছে মহারানির শেষযাত্রার রাজকীয় কর্মকাণ্ড, তখন বাইরে অন্য এক শোকের ছবি। তাঁদের প্রিয় রানিকে হারিয়ে চোখের জলে ভাসছে লন্ডনবাসী। দীর্ঘ ৭০ বছরের রাজত্বকালে রাজ সিংহাসনের পাশাপাশি দেশবাসীর হৃদয় সিংহাসনও জয় করেছিলেন তিনি। সেই প্রিয় এলিজাবেথের নশ্বর দেহ এদিনের পর চিরকালের জন্য হারিয়ে যেতে চলেছে। রানিকে হারানোর শোক এখনও লন্ডন সহ গোটা দেশকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে। যে রাস্তা দিয়ে রানির শেষযাত্রা এগিয়ে গিয়েছে, সেই রাস্তার দু’ধারে রবিবার রাত থেকে মানুষ ভিড় করে দাঁড়িয়ে থেকেছেন। কফিন এগিয়ে যাওয়ার সময় গোলাপ ফুল ছুড়ে এলিজাবেথকে শ্রদ্ধা জানান তাঁরা। সম্মিলিতভাবে শেষবিদায় জানানো হয় যখন রানির কফিন বাকিংহাম প্যালেসের সামনে কুইন ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়ালের পাশ দিয়ে যাচ্ছিল। ওয়েস্টমিনস্টার থেকে রানির মরদেহ নিয়ে শোকযাত্রা পৌঁছয় ওয়েলিংটন আর্চে। এই যাত্রায় রাজপরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ছিল কমনওয়েলথের সশস্ত্র বাহিনী। তারপর হাইড পার্কে রানিকে দেওয়া হয় গান স্যালুট। সেখান এলিজাবেথের শেষযাত্রা পৌঁছয় উইনসর ক্যাসলে। রানির মরদেহ নিয়ে যাওয়া হয় সেন্ট জর্জেস চ্যাপেলে। এই চ্যাপেলে উপস্থিত ছিলেন প্রায় ৮০০ অভ্যাগত। এছাড়াও বিকেলে রাজপরিবারের নিজস্ব একটি শোকসভারও আয়োজন করা হয়। সিক্সথ কিং জর্জ মেমোরিয়াল চ্যাপেলে প্রিন্স ফিলিপের পাশে সমাধিস্থ করা হয় মহারানির নিথর দেহকে। সেইসঙ্গে সমাপ্তি ঘটল সাত দশকের এলিজাবেথ ম্যাজিকের।

20th     September,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ