বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিদেশ
 

টিকার সম্পূর্ণ ডোজে নেপাল,
শ্রীলঙ্কার চেয়ে পিছিয়ে ভারত

নয়াদিল্লি: কোভিড প্রতিরোধী টিকাকরণে ১০০ কোটির লক্ষ্যমাত্রা পূরণে নজিরবিহীন সাফল্য পেল ভারত। সামনে একমাত্র চীন। বাকি গোটা বিশ্ব অনেক পিছনে। এমনকী, আমেরিকা, ব্রিটেন, ইতালি, জাপান, জার্মানির মতো উন্নত বিশ্বের দেশগুলিও অনেক পিছনে। ধারেকাছে নেই দক্ষিণ আফ্রিকা কিংবা ব্রাজিলের মতো দেশও। দৈনিক ভ্যাকসিন দেওয়ার ক্ষেত্রেও আমেরিকা, ব্রিটেন, জাপানের মতো দেশকে অনেক পিছনে ফেলেছে ভারত। ভ্যাকসিন-যুদ্ধের পরিস্থিতি এই মূহূর্তে অনেকটা এরকম—ভারত বনাম বাকি বিশ্ব। কিন্তু প্রদীপের নীচেই রয়েছে অন্ধকারের আর এক চিত্র। মোট জনসংখ্যার সম্পূর্ণ ভ্যাকসিন প্রাপকের নিরিখে বিশ্বের বহু দেশ থেকে পিছিয়ে রয়েছে মোদির ভারত। এমনকী প্রতিবেশী শ্রীলঙ্কা, নেপাল ও ভুটানের চেয়েও পিছিয়ে রয়েছে ভারত। সংযুক্ত আরব আমিরশাহি তাদের মোট জনসংখ্যার ৮৭.২৬ শতাংশকে দু’টি ডোজ দিতে পেরেছে। চীনের প্রায় ৭৫ শতাংশ মানুষ সম্পূর্ণ টিকা পেয়েছেন। সেখানে ভারতে দু’টি টিকাপ্রাপকের সংখ্যা মাত্র সাড়ে ২০ শতাংশ।
অতীতে দেখা গিয়েছে, এত কম সময়ে যক্ষা ও পোলিও প্রতিরোধে টিকাকরণে ভারত এমন সাফল্য পায়নি। তথ্য বলছে, যক্ষা-রোধী টিকাকরণে ১০০ কোটির মাইল ফলক স্পর্শ করতে ভারতের সময় লেগেছিল দীর্ঘ ৩২ বছর। পোলিও রোগের ক্ষেত্রে লেগেছে ২০ বছর। সেক্ষেত্রে কোভিড রুখতে টিকাকরণে ভারতের ঈর্ষণীয় সাফল্য দেখে স্তম্ভিত তাবড় বিশেষজ্ঞরা। 
সম্প্রতি ‘ভ্যাকসিন ট্র্যাকার’ গোটা বিশ্বের টিকাকরণ নিয়ে একটি বিশ্লেষণমূলক গবেষণা চালায়। তাদের রিপোর্টে বলা হয়েছে, টিকাকরণে ভারতের চেয়ে আমেরিকা দু’গুণ পিছিয়ে রয়েছে। ফ্রান্স পিছিয়ে রয়েছে ১০ গুণ। অন্যদিকে, ইউরোপের মধ্যে আর্থিকভাবে শক্তিধর দেশ জার্মানি পিছিয়ে রয়েছে ৯ গুণ। তার কিছুটা আগে জাপান, ভারতের থেকে পিছিয়ে ৫ গুণ। ট্র্যাকারের দাবি, ভ্যাকসিনের উৎপাদন ও সরবরাহ ব্যবস্থার মধ্যে সামঞ্জস্য রাখতে উল্লেখযোগ্য দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে ভারত।

22nd     October,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021