বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিদেশ
 

উৎসবের মধ্যেই গোষ্ঠী সংঘর্ষে উত্তাল
বাংলাদেশ, মন্দিরে হামলা, নিহত ছয়

ঢাকা: দুই বিবদমান গোষ্ঠীর হানাহানির উত্তাপে ফুটছে গোটা বাংলাদেশ। জতুগৃহ মহাপ্রভু চৈতন্যের স্মৃতি বিজড়িত পূণ্যভূমি সিলেট। অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতি কুমিল্লায়। একের পর এক মন্দিরে হামলা চালাতে শুরু করেছে উত্তেজিত জনতা। দুষ্কৃতী হামলার শিকার একাধিক দুর্গাপূজা মণ্ডপও। হামলা, ভাঙচুর হয়েছে ইসকনেও। এর মধ্যেই বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বরাভয়— কুমিল্লা সহ বিভিন্ন ঘটনায় জড়িতদের কাউকে রেয়াত করা হবে না। তাঁর স্পষ্ট বার্তা, ‘প্রতিটি ঘটনার পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্ত হবে। কেউ রেহাই পাবে না, তা তিনি যে ধর্মেরই হোন না কেন। খুঁজে বের করে শাস্তি দেওয়া হবে।’ বুধবার কুমিল্লায় যে ঘটনার সূত্রপাত হয়েছিল, তা ছড়িয়ে পড়েছে সিলেট থেকে ঢাকা। নোয়াখালি থেকে চট্টগ্রাম। গোটা ঘটনায় ক্ষুব্ধ ভারত  অবিলম্বে হাসিনা সরকারকে কড়া হাতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে অনুরোধ করেছে। বাংলাদেশের বুদ্ধিজীবীরাও এই ঘটনার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছেন।
বুধবার কুমিল্লার একটি পুজোমণ্ডপ থেকেই গণ্ডগোলের সূত্রপাত। ঝড়ের গতিতে একটি বিতর্কিত ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে। এরপরই সারা দেশে বিক্ষোভ, হাঙ্গামা শুরু হয়। ওইদিন রাত আটটা নাগাদ হাজিগঞ্জ পৌর এলাকায় ‘তৌহিদি জনতা’র ব্যনারে মিছিল শুরু হয়। পরিস্থিতি উত্তপ্ত হওয়ায় গুলি চালায় পুলিস। তাতে চারজন নিহত হন। জনতার সঙ্গে খণ্ডযুদ্ধে ৫০ জন পুলিসকর্মী জখম হয়েছেন বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট থানার ওসি মোহম্মদ হারুনুর রশিদ। ঘটনার পর থেকে হাজিগঞ্জ বাজার এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে প্রশাসন। এরপরেই সারাদেশে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। এ প্রসঙ্গে চাঁদপুরের পুলিস সুপার মিলন মাহমুদ বলেন, ‘কাউকে উদ্দেশ্য করে গুলি চালানো হয়নি। মন্দিরে ইটপাটকেল ও পুলিসের উপর হামলা হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ১৩৯ রাউন্ড গুলি ছোড়া হয়।’
এদিকে বুধবার থেকে ১০টি জেলায় অন্তত ২২টি মন্দিরে হামলা, ভাঙচুর এবং সংঘর্ষের খবর পাওয়া গিয়েছে। মাদারিপুরের কালকিনি উপজেলায় সংঘর্ষে জখম হয়েছেন দুই পুলিসকর্মী সহ পাঁচজন। এলাকায় বেশ কয়েকটি দোকানে ভাঙচুর চালানো হয়। কাশিমবাজারের তিনটি মন্দিরে হামলা চালানো হয়। প্রতিবাদে মানববন্ধন পালন করেন হিন্দুধর্মাবলম্বীরা। ঘটনার সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগে ১৯ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। 
শনিবারও দুই গোষ্ঠীর হানাহানিতে দু’জনের দেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিস জানিয়েছে, শুক্রবার বেগমগঞ্জে রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখায় কয়েক হাজার মুসলিম ধর্মাবলম্বী। একটি মন্দিরে তখন পুজোর প্রস্তুতি চলছিল। সেসময় হামলা চালায় প্রায় দুশো জন। মন্দির কমিটির সদস্যকে পিটিয়ে খুন করা হয় বলে স্থানীয় থানার পুলিস প্রধান শাহ ইমরান জানিয়েছেন। শনিবার সকালে ওই মন্দিরের কাছে একটি পুকুর থেকে আরও এক ব্যক্তির দেহ উদ্ধার হয়। এই নিয়ে সংঘর্ষে সরকারিভাবে ছ’জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। অপ্রীতিকর পরিস্থিতি এড়াতে দেশের ৬৪ জেলার মধ্যে প্রায় ৩৪টি জেলায় টহল শুরু করেছে বাংলাদেশের আধাসেনা। খুব শীঘ্রই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। 

17th     October,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021