বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিদেশ
 

সন্ত্রাসে মদত নয়, কড়া হুঁশিয়ারি পাকিস্তানকে
রাষ্ট্রসঙ্ঘে নাম না করে আক্রমণ মোদির

সমৃদ্ধ দত্ত  নয়াদিল্লি: ‘সন্ত্রাসবাদে মদত দিলে তার আগুন আপনাদেরও দগ্ধ করবে। নিজেদের স্বার্থে আফগানিস্তানের মাটিকে সন্ত্রাসের আঁতুরঘর হিসেবে ব্যবহার করার চেষ্টা করবেন না।’ শনিবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সভায় দাঁড়িয়ে এই ভাষাতেই নাম না করে পাকিস্তানকে আক্রমণ করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। নিউ ইয়র্কে ১৯৩ দেশের এই মহামঞ্চে ভাষণে তাঁর বেনজির হুঁশিয়ারি, ‘যে দেশটি সন্ত্রাসকে রাজনৈতিক অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করে চলেছে, তাদের সতর্ক করে দিচ্ছি, পরিণতির জন্য তৈরি থাকুন। আফগানিস্তানকে পুতুল বানিয়ে আগুন নিয়ে খেলবেন না।’ সঙ্গে ছিল এক চা-বিক্রেতার সন্তানের চারবার এই মঞ্চে বক্তব্য রাখা নিয়ে গণতন্ত্রের জয়গান। টেনে এনেছেন কোভিড পরিস্থিতিতে বিশ্ব অর্থনীতির শিক্ষা এবং বিজ্ঞানভিত্তিক উন্নয়ন মডেলের কথা।
তবে শুধু রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সভার মঞ্চ নয়। তার আগে চার রাষ্ট্রের কোয়াড বৈঠকেও পাকিস্তানকে নিশানা করেছেন মোদি সহ অন্য রাষ্ট্রনেতারা। ফলে আফগানিস্তানে তালিবান শাসনের সূত্রপাত এবং সন্ত্রাসের আশঙ্কার চর্চায় ইসলামাবাদ রীতিমতো কোণঠাসা হয়ে পড়ল আন্তর্জাতিক মঞ্চে। একা পাকিস্তান নয়, সাম্প্রতিককালের মধ্যে মোদি এই প্রথম চীনকেও দিলেন কঠোর বার্তা। বললেন, ‘কিছু কিছু দেশকে মনে রাখতে হবে সমুদ্ররুটে সবার সমান অধিকার। সমুদ্র বাণিজ্য আন্তর্জাতিক ও সর্বজনীন। সুতরাং সমুদ্রপথকে কুক্ষিগত করে রাখা আন্তর্জাতিক বিধিনিয়মেরই লঙ্ঘন।’ স্পষ্টতই এই হুঁশিয়ারি চীনের উদ্দেশে। 
কিন্তু আন্তর্জাতিক মঞ্চে হঠাৎ তীব্র আক্রমণাত্মক কেন হয়ে উঠলেন মোদি? কারণ, গত দু’দিনের মার্কিন সফরে তাঁর একের পর এক বৈঠকে স্পষ্ট হয়েছে যে, শুধু ভারত নয়, গোটা আন্তর্জাতিক দুনিয়াই উদ্বিগ্ন চীন ও পাকিস্তানকে নিয়ে।  আর তা উপলব্ধি করে এদিন রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সভায় রীতিমতো তুলোধোনা করেন চীন ও পাকিস্তানকে। হোয়াইট হাউসে আমেরিকা, ভারত, জাপান ও অস্ট্রেলিয়ার জোটবৈঠক হয়েছে, যে জোটের নাম কোয়াড। এই বৈঠকের আলোচনায় উঠে এসেছে দু’টি সঙ্কটের কথা। প্রথমত, দক্ষিণ চীন সাগর ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপরাষ্ট্রগুলির উপর আগ্রাসন। দ্বিতীয়ত, আফগানিস্তানের সন্ত্রাসের আঁতুরঘর হয়ে ওঠা। আর এই দু’টি সম্ভাবনাকেই সমূলে বিনষ্ট করতে হবে বলে হুঁশিয়ারি কোয়াড জোটের। চীনকে টার্গেট করে চারটি দেশ স্পষ্ট জানিয়েছে, সমুদ্রপথে সব রাষ্ট্রের সমান অধিকারের রাষ্ট্রসঙ্ঘের বিধি বজায় রাখতেই হবে। এই বিধি লঙ্ঘন করে আগ্রাসী মনোভাব নিলে তা সর্বশক্তি দিয়ে প্রতিহত করা হবে। একইসঙ্গে আফগানিস্তানে সামান্যতম সন্ত্রাসের মদত দেওয়া চলবে না বলে পরোক্ষে পাকিস্তানকেই দেওয়া হয়েছে কড়া বার্তা। বস্তুত, দক্ষিণ চীন সাগরে চীনের আগ্রাসন এবং আফগানিস্তানকে সন্ত্রাসের ভরকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা প্রতিরোধ করতে একটি বৃহত্তর স্ট্র্যাটেজিক ও সামরিক সমঝোতায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছে চার দেশ। পাকিস্তান বিরোধিতার যে সুরের সূত্রপাত হয়েছিল কোয়াড বৈঠকে, তার অনুরণন শনিবার প্রথমে শোনা গিয়েছে রাষ্ট্রসঙ্ঘে ভারতের ফার্স্ট সেক্রেটারি স্নেহা দুবের কণ্ঠেও। তীক্ষ্ণ ভাষায় তাঁর আক্রমণ, পাকিস্তানের এই সন্ত্রাসবাদে মদতদাতার ভূমিকার জন্য  গোটা বিশ্ব একাধিকবার চরম সঙ্কটে পড়েছে। আর দ্বিতীয়ার্ধে মোদির ভাষণে সেই আক্রমণাত্মক সুর ছিল আরও জোরালো। 
রাষ্ট্রসঙ্ঘের সাধারণ সভায় মোদির হাই ভোল্টেজ ভাষণের সমাপ্তি ঘটে বাংলা ভাষার হাত ধরে। তিনি রবীন্দ্রনাথের ‘স্বদেশ’ পর্যায়ের একটি গান উচ্চারণ করে চিরন্তন ভারতের শক্তির বার্তা দেন বিশ্ববাসীকে। বাংলাতেই প্রধানমন্ত্রী উচ্চারণ করেন, ‘শুভ কর্ম পথে ধর নির্ভয় গান, সব দুর্বল সংশয় হোক অবসান’।

26th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021