বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

কেদারনাথ মন্দিরে ভক্তদের ভিড়। বৃহস্পতিবার পিটিআইয়ের তোলা ছবি। 

দু’দশক পর বিনোদনের
দরজা খুলছে কাশ্মীরে
সেপ্টেম্বরেই ভূস্বর্গে প্রথম মাল্টিপ্লেক্স

ফিরদৌস হাসান, শ্রীনগর: দু’ দশক পর বিনোদনের দরজা খুলছে কাশ্মীরে। শেষ কবে বড় পর্দায় সিনেমা দেখেছিলেন, তা মনেই করতে পারেন না উপত্যকার বর্তমান প্রজন্ম। বোমা-গুলি, জঙ্গি, সন্ত্রাসবাদ আর রক্তপাত দেখতে দেখতেই তাঁদের কেটে গিয়েছে বছরের পর বছর। এতদিন তাঁরা দুধের স্বাদ ঘোলে মেটাতেন স্মার্ট ফোনের স্ক্রিনে বা ল্যাপটপ, কম্পিউটারে। অবশেষে কাশ্মীরি পণ্ডিত ধর পরিবারের হাত ধরে আবারও বড় পর্দায় ফিরতে চলেছে সিনেমা। শুধু তাই নয়, বিনোদনের সবরকম আধুনিক উপকরণ নিয়ে ভূস্বর্গে এই প্রথম চালু হতে চলেছে মাল্টিপ্লেক্স। আগামী মাসের প্রথমেই কাশ্মীরের সোনওয়ার বাগে ওই মাল্টিপ্লেক্সে দেশ-বিদেশের সিনেমা দেখতে পারবেন দর্শকরা। থিয়েটার চেইন আইনক্স এই মাল্টিপ্লেক্স তৈরির ব্যাপারে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কাশ্মীরের জনপ্রিয় সিঙ্গল স্ক্রিন হল ব্রডওয়ে যেখানে ছিল, সেই জায়গাতেই গড়ে উঠছে মাল্টিপ্লেক্সটি। জায়গাটি সেনাবাহিনীর ১৫ কোরের সদর দপ্তরের কাছেই। ফলে যথেষ্ট নিরাপত্তার ঘেরাটোপ রয়েছে গোটা এলাকায়। 
১৯৮৯ সালে বিচ্ছিন্নবাদী আন্দোলন মাথাচাড়া দেওয়ার পর থেকেই কাশ্মীরে ধীরে ধীরে ঝাঁপ বন্ধ হতে শুরু করে সিনেমা হলগুলি।  জঙ্গিরা নিশানা করায় প্রায় ১৯টি সিনেমা হল দখল করে নেয় সেনাবাহিনী। বন্ধ হয়ে যায় শ্রীনগরের বিখ্যাত রিগাল, পাল্লাডিয়াম, খায়ম, ফিরদৌস, নীলম, সিরাজ, ব্রডওয়ে এবং শাহ সিনেমা হল। বড় পর্দায় সিনেমা দেখার স্বাদ থেকে বঞ্চিত হন ভূস্বর্গের বাসিন্দারা। নয়ের দশকের শেষের দিকে কিছু সিনেমা হল খোলার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। কিন্তু ১৯৯৯ সালের সেপ্টেম্বরে লালচকের প্রাণকেন্দ্রে রিগাল সিনেমা হলে গ্রেনেড হামলা চালায় জঙ্গিরা। এতেই জাঁকিয়ে বসে আতঙ্ক। যদিও সব ভয় দূরে সরিয়ে রেখে ‘নীলম’ ও ‘ব্রডওয়ে’ হল দু’টি তাদের শো চালিয়ে যেতে থাকে। কিন্তু দর্শকদের সাড়া না মেলায় কিছুদিনের মধ্যে চিরতরে ঝাঁপ বন্ধ হয়ে যায় সেগুলির। পরবর্তীতে সরকার কাশ্মীরে সিনেমা হলগুলি খোলার চেষ্টা করলেও পরিস্থিতির কারণে তা সম্ভব হয়নি। এতদিন পর সিনেমা হল খোলার খবরে রীতিমতো উচ্ছ্বসিত উপত্যকার বাসিন্দারা। 
একই ছাদের নীচে থাকছে তিনটি অত্যাধুনিক স্ক্রিন সহ উন্নত সাউন্ড। একসঙ্গে বসে সিনেমা দেখতে পারবেন ৫২০ জন। তৈরি হচ্ছে ঝা-চকচকে রেস্তরাঁ। সেখানে আর পাঁচটা খাবারের পাশাপাশি পরিবেশন করা হবে স্থানীয় খাবার।  উপকৃত হবেন ব্যবসায়ীরা। কাজ পাবেন যোগ্য স্থানীয়রা। মাল্টিপ্লেক্সের ডিজাইনে থাকছে কাশ্মীরি সংস্কৃতির ছোঁয়া। ৯০ শতাংশ কাজ শেষ। বাকিটুকুও দ্রুত শেষ করতে জোরকদমে কাজ চলছে। দেশের বাকি অংশের যুবক-যুবতীর থেকে কাশ্মীরের ছেলেমেয়েরা যাতে কোনওভাবেই বিনোদনের স্বাদ পাওয়া থেকে বঞ্চিত না হন, সেই লক্ষ্যেই উপত্যকায় এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শ্রীনগর লাগোয়া ওই মাল্টিপ্লেক্সের মালিক বিজয় ধর।
 উদ্বোধনের অপেক্ষায়। -নিজস্ব চিত্র

15th     August,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ