বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

এবার জাতিগত জনগণনার দাবি তুলে মোদিকে
কোণঠাসা করতে বদ্ধপরিকর নীতীশ-তেজস্বী

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: একটি রাজ্যের পালাবদল বিজেপিকে যেন সবদিক থেকে কোণঠাসা করে দিচ্ছে। কারণ বিরোধীদের চতুর্দিক থেকে আক্রমণ। একদিকে কংগ্রেসের মূল্যবৃদ্ধি বিরোধী আক্রমণ জোরদার হচ্ছে। অন্যদিকে রাজ্যে রাজ্যে বিজেপি বিরোধী আঞ্চলিক দলগুলিও আক্রমণের নতুন কৌশল নিয়েছে। নীতীশ কুমার ও তেজস্বী যাদবের নয়া জুটির কৌশল, জাতিগত জনগণনা। এই দাবি বিহার এবং উত্তরপ্রদেশের আঞ্চলিক দলগুলির। 
বিজেপি জোটের মুখ্যমন্ত্রী হয়েও নীতীশ কুমার একাধিকবার বিরোধীদের সুরেই সরব হয়েছেন। এনডিএতে থাকাকালীন তিনি বিরোধী দলনেতা তেজস্বী যাদবের সঙ্গে দিল্লি এসে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি জাতিগত জনগণনার দাবি করেছেন। এবার নতুন মন্ত্রিসভায় আরও আগ্রাসী হচ্ছে এই দাবি। বিধানসভায় প্রস্তাব পাশ করানোর চিন্তাভাবনা এবং উদ্যোগ চলছে। জাতপাতের ভিত্তিতেও জনগণনা হোক, এই দাবিতে ওই প্রস্তাব পাশ করানো হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের কাছে সেই প্রস্তাব রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে পাঠানো হবে। যাতে মোদি সরকার চাপে পড়ে। কারণ, প্রথম থেকেই কাস্ট সেন্সাসে রাজি নয় মোদি সরকার। চিরাচরিতভাবে যে জনগণনা হয় সেখানেই তফসিলি জাতি, উপজাতি অথবা ওবিসিদের উল্লেখ পৃথকভাবে থাকে। কিন্তু সামগ্রিকভাবে কোনও জাতিগত সেন্সাস সম্ভব নয় বলে একাধিকবার জানিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। এই কারণেই আরও বেশি করে এই দাবি তোলা হবে বিহার থেকে। 
আগামী বছর একঝাঁক রাজ্যে ভোট। অনগ্রসরদের দাবিকে সামনে রেখে এই রাজনৈতিক কৌশল নিয়ে বিজেপিকে কোণঠাসা করতে চাইছেন নীতীশ-তেজস্বী। তাঁদের সমর্থন করছেন অখিলেশ যাদবও। এখনও পর্যন্ত কোনও বিজেপি বিরোধী দল এই দাবির বিরোধিতা করেনি। অর্থাৎ প্রায় সব বিরোধীর সমর্থন রয়েছে। অন্তত বিরোধিতা যে করা হবে না, সেটা স্পষ্ট। পক্ষান্তরে বিজেপি তথা মোদি সরকার চাপে পড়ছে। কারণ এই দাবি মেনে নেওয়া হচ্ছে না, এই প্রচার জোরদার করে অনগ্রসর ও দলিত ভোটব্যাঙ্কের কাছে বার্তা পাঠানোর চেষ্টা করা হচ্ছে মোদি সরকার অনগ্রসরদের স্বার্থরক্ষায় আগ্রহী নয়। তাই মূল্যবৃদ্ধি, বেকারত্ব, কাস্ট সেন্সাস, গরিবের প্রকল্প বন্ধ না করা ইত্যাদি একঝাঁক ইস্যুতে বিরোধীরা আক্রমণের মাত্রা বাড়াচ্ছে। দিল্লি এসে সোনিয়া গান্ধীর সঙ্গে দেখা করার পর শুক্রবারও তেজস্বী যাদব বলেছেন, বছরে ২ কোটি চাকরি কোথায় গেল? বাজারে জিনিসপত্রের দাম কত মোদি সরকার জানে? মন্দির মসজিদ নয়, আমাদের একটাই দাবি, বেকার যুবসমাজকে চাকরি দিতে হবে। মূল্যবৃদ্ধি কমাতে হবে। কাস্ট সেন্সাস করতে হবে। 

13th     August,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ