বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে ধাক্কা ভারতের
আবদুল রউফ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণার প্রস্তাবে ভেটো চীনের

রাষ্ট্রসঙ্ঘ ও বেজিং (পিটিআই): সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ফের ভারতের প্রস্তাবে ভেটো দিল চীন। জয়েশ-ই-মহম্মদের ডেপুটি চিফ আবদুল রউফ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি তকমা দিতে সম্মতি দিল না বেজিং। বুধবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে ভারত ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তরফে জয়েশ জঙ্গি রউফকে ‘আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদী’ তকমা দেওয়ার জন্য প্রস্তাব দেওয়া হয়। কিন্তু, আন্তর্জাতিক মঞ্চে সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে ভারতের এই উদ্যোগকে ফের প্রত্যাখ্যান করল বেজিং। চীনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন সাংবাদিকদের বলেন, ‘এই প্রস্তাব বিবেচনা করতে আমাদের আরও সময় লাগবে।’ দু’মাসের মধ্যে এই নিয়ে দ্বিতীয়বার আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণা প্রসঙ্গে ভারত ও আমেরিকার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করল  চীন। গত জুনে আবদুল রহমান মাক্কিকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি ঘোষণার প্রস্তাবেও ভেটো দিয়েছিল চীন। স্বভাবতই বেজিংয়ের এই ‘দ্বৈত ভূমিকা’র কড়া সমালোচনা করেছে নয়াদিল্লি। ভারত বলেছে, সন্ত্রাসবাদ নিয়ে চীনের কথায় ও কাজে কোনও মিল নেই। মুখে জঙ্গিদমন নিয়ে সরব হলেও বাস্তবে তারা সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে ইতিবাচক পদক্ষেপ নিতে চায় না।
বুধবার রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে ভারতের তরফে প্রস্তাব দেওয়া হয়, মাসুদ আজহারের ভাইকে আন্তর্জাতিক জঙ্গি হিসেবে ঘোষণা করা হোক। তাহলে আবদুল রউফ আজহারের যাবতীয় সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা যাবে এবং তাঁর ভ্রমণ ও অস্ত্র ব্যবহারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা যাবে। উল্লেখ্য, এই প্রস্তাব পেশের একদিন আগেই চীনের পৌরোহিত্যে নিরাপত্তা পরিষদের একটি বৈঠকে রাষ্ট্রসঙ্ঘে নিযুক্ত ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি রুচিরা কাম্বোজ ‘এই বিষয়টি’ নিয়েই সতর্ক করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন, উপযুক্ত কারণ ও যুক্তি ছাড়া কোনও প্রস্তাবে ভেটো দেওয়া বন্ধ হওয়া উচিত। কারণ, এতে একদিকে প্রশাসনের বিশ্বাসযোগ্যতা নষ্ট হয়। অন্যদিকে, কুখ্যাত জঙ্গিরাও ছাড় পেয়ে যাচ্ছে। কিন্তু, তার পরেও চীনের ভূমিকার কোনও পরিবর্তন হল না। 
প্রসঙ্গত, পাক জঙ্গি সংগঠন জয়েশের প্রধান মাসুদ আজহারের ভাই আবদুল রউফ আজহারকে ২০১০ সালের ডিসেম্বরেই নিষিদ্ধ ঘোষণা করে আমেরিকা। কিন্তু, চীন সাফ জানিয়ে দিয়েছে, ভারতের প্রস্তাব আরও ভালোভাবে বিবেচনা করে দেখার প্রয়োজন রয়েছে। যদিও, ভারতে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ চালানোর ক্ষেত্রে জয়েশের ভূমিকা ও রউফের জড়িত থাকার একাধিক প্রমাণ নয়াদিল্লি একাধিকবার দিয়েছে।  ২০০১ সালে ভারতের সংসদভবনে হামলা সহ একাধিক নাশকতার ঘটনার নেপথ্যে রয়েছে এই জঙ্গি সংগঠন। ভারতে আত্মঘাতী হামলা চালানোর জন্য ২০০৮ সালে দায়িত্ব দেওয়া হয় আজহারকে। ২০১৬ সালে ভারতের পাঠানকোট বিমানঘাঁটিতে হামলার পিছনেও ছিল জয়েশ জঙ্গিরা। যদিও পাকিস্তান ঘনিষ্ঠ চীন কিন্তু ভারতের দেওয়া এই তথ্যপ্রমাণগুলিতে এখনও সন্তুষ্ট নয়। 

12th     August,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ