বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা
ইয়াসিন মালিকের যাবজ্জীবন
সন্ত্রাসবাদে আর্থিক মদত

নয়াদিল্লি: ফাঁসির দাবি জানিয়েছিল জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ)। কিন্তু, সন্ত্রাসে আর্থিক মদত মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হল কাশ্মীরের বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা ইয়াসিন মালিকের। সেই সঙ্গে তাকে প্রায় ১১ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে এনআইএর বিশেষ আদালত। জম্মু ও কাশ্মীর লিবারেশন ফ্রন্ট (জেকেএলএফ) প্রধানের বিরুদ্ধে জঙ্গি কার্যকলাপ, ষড়যন্ত্র, সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা সহ ইউএপিএর একাধিক ধারায় মামলা দায়ের হয়েছিল। এদিন মোট ৯টি মামলায় তার বিরুদ্ধে সাজা ঘোষণা করেছেন বিশেষ বিচারক প্রবীণ সিং। সবক’টি সাজাই সমান্তরালভাবে চলবে। অবশ্য এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে ইয়াসিন হাইকোর্টে আর্জি জানাতে পারবে।  
বুধবার বেলা সাড়ে তিনটে নাগাদ ইয়াসিনের রায় ঘোষণার কথা ছিল। কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলা হয় আদালত চত্বর। বিকেলে দিল্লির এনআইএর বিশেষ আদালতে নিয়ে আসা হয় ইয়াসিনকে। রায় ঘোষণা করতে গিয়ে বিচারক বলেন, ‘এই অপরাধ ভারতের অন্তরাত্মাতে আঘাত করেছে। ভারতের থেকে জম্মু-কাশ্মীরকে জোর করে বিচ্ছিন্ন করার প্রয়াস এটি। বিদেশি শক্তি এবং জঙ্গিদের মদত নেওয়ায় এই অপরাধ আরও গুরুতর আকার নিয়েছে।’ সন্ধ্যার পর রায় ঘোষণা হতেই তিহার জেলে জোর তত্পরতা শুরু হয়। বৈঠকে বসে কর্তৃপক্ষ। ঠিক হয়েছে, জেলের সাত নম্বর ওয়ার্ডের একটি কুঠুরিতে একাই রাখা হবে ইয়াসিনকে। কড়া নজরদারিতে যাতে তাকে রাখা যায়, সেজন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হচ্ছে বলে জেল সূত্রে খবর। 
কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা (এনআইএ) ইয়াসিনের মৃত্যুদণ্ডের দাবি জানিয়েছিল এই মামলায়। যদিও তার আইনজীবী মৃত্যুদণ্ডের বদলে যাবজ্জীবন সাজার আর্জি জানিয়েছিলেন। তবে বিচ্ছিন্নতাবাদী নেতা সাজা নিয়ে কোনও মন্তব্য করেনি। আইনজীবী মারফত শুধু বলেছে, ‘বিগত ২৮ বছরে আমার বিরুদ্ধে জঙ্গি কার্যকলাপ বা হিংসার কোনও প্রমাণ যদি ভারতীয় গোয়েন্দারা দিতে পারে, তাহলে রাজনীতি ছেড়ে দেব। মৃত্যুদণ্ডে আমার আপত্তি নেই। সাতজন প্রধানমন্ত্রী সঙ্গে কাজ করেছি। আদালতের নির্দেশ মেনে নেব। ১৯৯৪ সালে অস্ত্র তুলে রেখে মহাত্মা গান্ধীর আদর্শে  পথ চলতে শুরু করেছিলাম। তারপর থেকে কাশ্মীরে অহিংস আন্দোলন করছি।’ এনআইএ এদিন আদালতে জানায়, হিন্দু পণ্ডিতদের উত্খাতের ঘটনায় যুক্ত ছিলেন ইয়াসিন। যদিও তাতে বিশেষ গুরুত্ব দেয়নি আদালত। এদিকে, ইয়াসিন মালিকের সাজার সমালোচনা করেছেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী।    
 গত ১৯ মে ইয়াসিনকে দোষী সাব্যস্ত করেন বিশেষ বিচারক প্রবীণ সিং। পাশাপাশি, জেকেএলএফ প্রধানের আর্থিক অবস্থা নিয়েও খোঁজখবর নিতে এনআইএকে নির্দেশ দেন তিনি। ইয়াসিনকে দোষী সাব্যস্ত করার পর আদালত তার পর্যবেক্ষণে জানিয়েছিল, ‘স্বাধীনতা সংগ্রাম’-এর নামে একটা বড় নেটওয়ার্ক তৈরি করেছেন জেকেএলএফ প্রধান। তার মাধ্যমে টাকা সংগ্রহ করে জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গিদের আর্থিক সহযোগিতা করছেন। এই মামলায় লস্কর-ই-তোইবার হাফিজ সইদ ও হিজবুল মুজাহিদিনের সৈয়দ সালাউদ্দিন সহ আরও বেশ কয়েকজনকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। 

26th     May,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ