বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

৬ বছর পর সিংহভাগ সরকারি ব্যাঙ্ক ডিভিডেন্ড
দিচ্ছে, স্টেট ব্যাঙ্ক একাই দেবে ৩৬০০ কোটি
এরপরও বিলগ্নিকরণের পথে হাঁটবে মোদি সরকার?

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: সরকারি ব্যাঙ্ক মুনাফা করছে। সরকারকে ডিভিডেন্ড দিচ্ছে। এই ইতিবাচক উলটপুরাণ সত্ত্বেও ব্যাঙ্কিং মহলের আশঙ্কা, মোদি সরকার ব্যাঙ্ক বেসরকারিকরণের পথে এরপরও অনড়ই থাকবে। প্রায় ৬ বছর পর সিংহভাগ সরকারি ব্যাঙ্ক সরকারকে ডিভিডেন্ড দিচ্ছে। দেশের ব্যাঙ্কিং ব্যবস্থার জন্য বড়সড় এক সুসংবাদ। সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক ছাড়া বাকি কমবেশি সব রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কই মুনাফা করে ডিভিডেন্ড দিয়েছে ও দিচ্ছে। এভাবে কেন্দ্র প্রায় ৯ হাজার কোটি টাকা ডিভিডেন্ড পেতে চলেছে। 
একদিকে যেমন সরকারি ব্যাঙ্কের ডিভিডেন্ড প্রদান অর্থনীতির পক্ষে ইতিবাচক বার্তা, তেমনই আবার প্রশ্ন উঠছে, এরপরও কি মোদি সরকার রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক বিক্রির সিদ্ধান্তে অটল থাকবে? সরকারি ব্যাঙ্কের সংখ্যা কমাতে কমাতে ইতিমধ্যেই ১২টিতে নামিয়ে আনা হয়েছে। আগামীদিনে আরও কমানোর পরিকল্পনা রয়েছে। সংযুক্তিকরণের মাধ্যমে সংখ্যা কমিয়ে আনা হয়েছে। এরপরও মোদি সরকার স্থির করেছে, নতুন করে সংযুক্ত করা হবে কিছু ব্যাঙ্ক। অথবা বিক্রিও করে দেওয়া হতে পারে। সম্প্রতি সিদ্ধান্ত হয়েছে, সেন্ট্রাল ব্যাঙ্কের ৬০০ শাখা বন্ধ করা হবে।
একদিকে যেমন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের শাখা বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে, তেমনই সরকার ঝাঁপিয়েছে ডিজিট্যাল ব্যাঙ্কিংয়ে। ৭৫টি ডিজিট্যাল ব্যাঙ্ক স্থাপন করা হচ্ছে। কয়েকটি ব্যাঙ্ক রেখে আগামীদিনে সবই বেসরকারি হাতে দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। এহেন অবস্থায় স্টেট ব্যাঙ্ক থেকে ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক, প্রায় সব ব্যাঙ্কই মুনাফা করেছে। স্টেট ব্যাঙ্ক একাই সরকারকে ৩৬০০ কোটি টাকা ডিভিডেন্ড দিচ্ছে। ইউনিয়ন ব্যাঙ্ক দেবে ১১০০ কোটি টাকা। কানাড়া ব্যাঙ্কের ডিভিডেন্ড দাঁড়াচ্ছে ৭৪২ কোটি টাকা। ইন্ডিয়ান ব্যাঙ্ক ও ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া দিচ্ছে ৬০০ কোটি টাকা। এখনও কত টাকা ডিভিডেন্ড দেওয়া হবে ঘোষণা করেনি ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্ক ও আইডিবিআই। এই দুই ব্যাঙ্কই বেসরকারিকরণের তালিকায় রয়েছে। জানা গিয়েছে, ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্ক গত আর্থিক বছরে আগের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ লাভ করেছে। ১৭১০ কোটি টাকা মুনাফা হয়েছে। এই ব্যাঙ্কই ২০১৫ সাল থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত লোকসান করেছে। ২০২১ সাল থেকে মুনাফার মুখ দেখেছে। ২০১৬ সাল থেকেই সরকারি ব্যাঙ্কগুলির সিংহভাগ সরকারকে ডিভিডেন্ড দেওয়া বন্ধ করে। এই কারণেই ব্যাঙ্কগুলিকে আর্থিকভাবে মজবুত করতে রাজকোষ থেকে টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র। তারপর একে একে বিক্রি করার কথাও হয়। কিন্তু এখন যেহেতু আশঙ্কা কাটিয়ে ব্যাঙ্কগুলি মুনাফার মুখ দেখছে, তাই প্রশ্ন উঠছে, মোদি সরকার কি সরকারি ব্যাঙ্ককে টিকিয়ে রাখবে? নাকি বিক্রিই ভবিতব্য? 

26th     May,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ