বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

ভুবনেশ্বরে সাধারণতন্ত্র দিবসের প্রস্তুতি চলছে। ছবি: এএনআই

গোটা দেশেই শিশুদের মধ্যে
বাড়ছে স্থূলতার হার, রিপোর্ট

নয়াদিল্লি (পিটিআই): ভারতে পাঁচ বছরের কম বয়সি শিশুদের মধ্যে স্থূলতার হার বেড়েছে। জাতীয় পরিবার স্বাস্থ্য সমীক্ষা (এনএফএইচএস)-র সর্বশেষ রিপোর্টে এমনটাই বলা হয়েছে। এই পরিসংখ্যান অনুযায়ী, ৩৩টি রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের পাঁচ বছরের কম বয়সি শিশুরা অতিরিক্ত ওজনের সমস্যায় ভুগছে। আর এই সমস্যার জন্য দায়ি করা হয়েছে শারীরিক পরিশ্রম কম করা এবং অপুষ্টিকর খাদ্যাভাসকে। আগের রিপোর্টে (এনএফএইচএস-৪) যেখানে ২.১ শতাংশ শিশুর ক্ষেত্রে স্থূলতার সমস্যা ছিল, বর্তমান রিপোর্টে (এনএফএইচএস-৫) তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩.৪ শতাংশে। অবশ্য শুধুমাত্র শিশুদের ক্ষেত্রেই নয়, গত কয়েক বছরে মহিলা ও পুরুষদের মধ্যেও স্থূলতার হার অনেকটাই বেড়েছে। মহিলাদের ক্ষেত্রে স্থূলতার হার ২০.৬ শতাংশ থেকে বেড়ে হয়েছে ২৪ শতাংশ। আর পুরুষদের ক্ষেত্রে এই পরিসংখ্যান ১৮.৯ শতাংশ থেকে বেড়ে হয়েছে ২২.৯ শতাংশ। প্রসঙ্গত,  চতুর্থ পর্যায়ের জাতীয় পরিবার স্বাস্থ্য সমীক্ষাটি চালানো হয়েছে ২০১৫ থেকে ২০১৬-এর মধ্যে।  সাম্প্রতিক সমীক্ষা অনুযায়ী মহারাষ্ট্র, গুজরাত, মিজোরাম, ত্রিপুরা, লাক্ষাদ্বীপ, জম্মু ও কাশ্মীর, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, পশ্চিমবঙ্গ, অন্ধ্রপ্রদেশ ও লাদাখ সহ একাধিক রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পাঁচ বছরের কম বয়সি শিশুদের মধ্যে মোটা হওয়ার সমস্যা উল্লেখযোগ্যভাবে বেড়েছে। ব্যতিক্রম শুধুমাত্র গোয়া, তামিলনাড়ু, দাদরা ও নগর হাভেলি এবং দমন ও দিউ। সেখানে শিশুদের মধ্যে ওজনজনিত সমস্যা কমেছে। 
জন্মনিরোধক ব্যবহারের ক্ষেত্রে উত্তরপ্রদেশ ও বিহারে যে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে, জাতীয় পরিবার স্বাস্থ্য সমীক্ষার সাম্প্রতিক রিপোর্টে তাও উঠে এসেছে। ২০১৫ থেকে ২০২০— এই পাঁচ বছরের মধ্যে আধুনিক জন্মনিরোধক ব্যবহারের মাধ্যমে পরিবার পরিকল্পনা করার ক্ষেত্রে চমকপ্রদ তথ্য মিলেছে। আগের সমীক্ষায় (২০১৫-’১৬) যেখানে জন্মনিরোধক ব্যবহারের হার ছিল ৪৭.৮ শতাংশ, সেখানে বর্তমান সমীক্ষায় (২০১৯-’২০) তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫৬.৫ শতাংশ। পপুলেশন কাউন্সিল অব ইন্ডিয়ার  ডাঃ নীরঞ্জন সাগ্গুরতি জানিয়েছেন, তিনটি কারণের জন্য দেশে জন্মগ্রহণের হার কমেছে— জন্মনিরোধকের ব্যবহার, কম বয়সে বিয়ে বন্ধ হওয়া এবং গর্ভপাত বেড়ে যাওয়া। 
অন্যদিকে, স্ত্রীকে পেটানো নিয়ে জাতীয় পরিবার স্বাস্থ্য সমীক্ষার রিপোর্টটি বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। সাম্প্রতিক সমীক্ষা অনুযায়ী দক্ষিণ ভারতের তিনটি রাজ্যে ৭৫ শতাংশের বেশি মহিলা স্বামীর হাতে মার খাওয়াকে স্বাভাবিক বলেই মেনে নিয়েছেন। 

29th     November,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021