বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

দ্রুত অবস্থান বদলে কয়লা সঙ্কটের দায়
কৃষক আন্দোলনের ঘাড়ে চাপাচ্ছে কেন্দ্র 
দু’দিন আগেই বলা হয়, সমস্যা নেই

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: একদিকে কেন্দ্র বলছে, দেশে কয়লা সঙ্কট নেই। অন্যদিকে, রেলমন্ত্রক জানাচ্ছে, সঙ্কটের সময় কৃষকদের রেল রোকো আন্দোলনের জেরে দু’লক্ষ টন কয়লা পরিবহণই করা যায়নি। এবং এর জন্য দায়ী শুধুমাত্র আন্দোলনকারী কৃষকরাই। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে যে, কৃষক আন্দোলনকে কোণঠাসা করতেই কি এভাবে দু’রকম অবস্থান নিচ্ছে কেন্দ্রের মোদি সরকার? উল্লেখ্য, লখিমপুর কাণ্ডে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অজয় মিশ্র টেনির গ্রেপ্তারি এবং তাঁকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা থেকে বরখাস্তের দাবিতে গত সোমবার দেশজুড়ে রেল রোকো কর্মসূচিতে শামিল হয়েছিলেন কৃষকরা। আন্দোলনকারীদের ওই কর্মসূচির জেরে বিশেষত উত্তরপ্রদেশে ট্রেন চলাচলে ব্যাপক প্রভাব পড়ে। 
বৃহস্পতিবার রেলমন্ত্রকের শীর্ষ সূত্রে জানানো হয়েছে, কৃষকদের ওই আন্দোলনের জেরে কয়লা পরিবহণ ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ৪৬টি রেকে দু’লক্ষ টন কয়লা পরিবহণের কথা ছিল বিভিন্ন পাওয়ার প্ল্যান্টে। কিন্তু কৃষকদের রেল অবরোধের জেরে তা সময়মতো পৌঁছতেই পারেনি। রেল সূত্রে জানানো হয়েছে, প্রায় দু’লক্ষ টন কয়লা ৩২২ মিলিয়ন ইউনিট বিদ্যুৎ উৎপাদন করে। মোটামুটিভাবে যা দু’দিনের বিদ্যুতের জোগান দিতে পারে একটি রাজ্যে। ফলে সময়ে তা না পৌঁছলে অন্ধকারে ডুবে যেতে পারে সংশ্লিষ্ট রাজ্য। রেলমন্ত্রক সূত্রে অভিযোগ করা হয়েছে, এই পরিস্থিতির জন্য দায়ী শুধুমাত্র আন্দোলনকারী কৃষকরাই। তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় হল, অক্টোবরের গোড়ার দিকে যখন তীব্র জল্পনার সৃষ্টি হয়েছিল, অন্ধকারে ডুবে যেতে পারে রাজধানী দিল্লি, সেইসময় কেন্দ্রই জানিয়েছিল পর্যাপ্ত কয়লা মজুত রয়েছে। কোনও সমস্যা হবে না। এমনকী বিদ্যুৎমন্ত্রকের পক্ষ থেকে ‘ফ্যাক্ট শিট’ও প্রকাশ করা হয়েছিল। সেক্ষেত্রে এই মুহূর্তে ভোলবদলে ফের অন্য অবস্থান নেওয়া হচ্ছে কেন, সেই প্রশ্ন তুলছে তথ্যাভিজ্ঞ মহল। সারা ভারত কিষান সভার সাধারণ সম্পাদক হান্নান মোল্লা বলেন, ‘যত দোষ, নন্দ ঘোষ। সব কিছুর জন্য কৃষকরাই দায়ী। কেন্দ্র সেটিই প্রমাণ করতে চাইছে। সংবাদমাধ্যমেই দীর্ঘদিন ধরে লেখালেখি হয়েছে, কয়লা সঙ্কট হতে পারে। তখন কোনও সমস্যা হয়নি। কৃষকরা অবস্থানে বসতেই ছবি বদলে গেল?’ অন্যদিকে, এদিনই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী নরেন্দ্রসিং তোমার এবং কৈলাস চৌধুরীর ইস্তফা দাবি করেছেন আন্দোলনরত কৃষকরা। সংযুক্ত কিষান মোর্চার অভিযোগ, ‘সিঙ্ঘুর ঘটনায় যে গোষ্ঠী জড়িত, সেই নিহাঙ্গ গ্রুপের নেতার সঙ্গেই ছবি রয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর। এর থেকে স্পষ্ট, সিঙ্ঘুর ঘটনায় ষড়যন্ত্র করেছে কেন্দ্রীয় সরকারই।’ সুপ্রিম কোর্টের একজন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিকে দিয়ে তদন্ত করানোর দাবি করেছে সংযুক্ত কিষান মোর্চা।
 পুলিসি ব্যারিকেড সরাচ্ছেন কৃষকরা। ছবি: পিটিআই

22nd     October,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021