বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

রাজ্যসভায় জিতেই মোদির বিরুদ্ধে সরব তৃণমূল সাংসদ সুস্মিতা দেব

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সব কিছু ঠিকঠাক থাকায় প্রত্যাশামতো বাংলা থেকে রাজ্যসভার একটি ভাঙা আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হলেন তৃণমূল প্রার্থী সুস্মিতা দেব। আর জয়ী হয়েই মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সংসদে সরব হওয়ার প্রতিশ্রুতিও দিলেন যথারীতি। আগামী প্রায় আড়াই বছর তিনি সংসদের উচ্চকক্ষের সদস্য হিসেবে থাকবেন। সোমবার বিকেল ৩টেয় মনোনয়ন প্রত্যাহারের সময়সীমা শেষ হওয়ার পর বিধি মেনে তাঁর হাতে বিজয়ীর শংসাপত্র তুলে দেন বিধানসভার সচিব তথা এই নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার সুপ্রতিম ভট্টাচার্য। শংসাপত্র নেওয়ার সময় সুস্মিতাদেবীর পাশে ছিলেন সরকারি মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষ ও উপ-মুখ্য সচেতক তাপস রায়-সহ কয়েকজন তৃণমূল বিধায়ক। সুস্মিতাদেবীর এই টেনশনহীন জয়লাভ সেলিব্রেট করার জন্য শংসাপত্র হস্তান্তর পর্বের পর নির্মলবাবুর ঘরে মিষ্টিমুখও করানো হয় উপস্থিত সকলকে। 
কংগ্রেস ছেড়ে কিছুদিন আগেই তৃণমূলে যোগ দেন রাজীব-জমানার প্রাক্তন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী প্রয়াত সন্তোষমোহন দেবের কন্যা সুস্মিতা। মমতা ও অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের আহ্বানে সাড়া দিয়ে তিনি ত্রিপুরায় বিপ্লব দেবের নেতৃত্বাধীন বিজেপি শাসিত রাজ্যে তৃণমূলের জমি শক্ত করার কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েন। দিন কয়েকের মধ্যেই মানস ভুঁইয়ার ছেড়ে যাওয়া রাজ্যসভার আসনে তাঁকে প্রার্থী করার কথা ঘোষণা করেন দলনেত্রী। মমতার এহেন সিদ্ধান্ত জেনে কার্যত আপ্লুত হন সুস্মিতা। এদিনও তিনি সেই আবেগ ব্যক্ত করে বলেন, সাংসদ হিসেবে আগেও আমি প্রতিনিধিত্ব করেছি অসমের হয়ে। তবে এবার বাংলা থেকে নির্বাচিত হওয়ার বাড়তি গুরুত্ব রয়েছে। কারণ, আমার বাবার সঙ্গে বাংলার রাজনীতির দৃঢ় যোগ ছিল। কলকাতায় আমাদের একটা বাড়িও রয়েছে। সর্বোপরি, জাতীয় রাজনীতিতে এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিত্ব মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আমায় যে এভাবে সম্মান দেবেন তা কল্পনার বাইরে ছিল। এজন্য আমি যার পর নাই কৃতজ্ঞ। এখন থেকে আমি বাংলা-সহ গোটা উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলির বঞ্চনা নিয়ে সংসদে সরব হব। মোদি সরকার যেভাবে ফ্যাসিবাদী কায়দায় সংসদ পরিচালনা করছে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানো অত্যন্ত জরুরি। 
ত্রিপুরা প্রসঙ্গে সুস্মিতার বক্তব্য, ওই রাজ্যে কোনও আইনের শাসন নেই। বিরোধীদের কোনও রাজনৈতিক কার্যকলাপ করতে দিচ্ছে না রাজ্যের বিজেপি সরকার। সর্বোপরি, ওখানকার মুখ্যমন্ত্রী গণতন্ত্রের স্তম্ভগুলি সম্পর্কে আদৌ ওয়াকিবহাল নন। আসলে উনি একজন দায়িত্বজ্ঞানহীন নাগরিক। আদালতের ক্ষমতাকেও চ্যালেঞ্জ করে কথাবার্তা বলছেন। ওঁর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা রুজু করা নিয়ে আমরা দলে আলোচনা চালাচ্ছি।

28th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021