বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

সোমবার পানাজির আজাদ ময়দানে গোয়ার বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে তৃণমূল কংগ্রেসের কর্মসূচি ‘জনতা চার্জশিটে’ উপস্থিত দলের সাংসদ সৌগত রায়, মহুয় মৈত্র এবং সেই রাজ্যের ভারপ্রাপ্ত লুই জিনহো ফেলেইরো। গত ১২ আগস্ট গোয়ার কালাঙ্গুটের সমুদ্র  সৈকতে সিদ্ধি নায়েক নামে এক তরুণীর মৃতদেহ উদ্ধার হয়। পরিবারের তরফে ধর্ষণ করে খুনের অভিযোগ আনা হলেও পুলিস জানায় জলে ডুবে মৃত্যু হয়েছে তরুণীর। বিষয়টি নিয়ে সরগরম গোয়ার রাজনীতি। এদিন নাচিনোলা গ্রামে ওই পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে যান মহুয়া। ঘটনায় বিচার বিভাগীয় তদন্তের দাবি জানিয়েছে তৃণমূল। ছবি: পিটিআই

কোভিডে মৃত্যুতে ৫০ হাজার করে ক্ষতিপূরণ
দেবে রাজ্য, সুপ্রিম কোর্টে হলফনামা কেন্দ্রের

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: কোভিডে মৃত্যুতে পরিবার পাবে ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ। এমনই সুপারিশ কেন্দ্রীয় সরকারের। তবে এই ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে রাজ্যের আপৎকালীন তহবিল বা স্টেট ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট ফান্ড থেকে। বুধবার এই মর্মেই সুপ্রিম কোর্টে ১১ পাতার হলফনামা জমা দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। সেখানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের অধীন ন্যাশনাল ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটির (এনডিএমএ) তরফে গাইডলাইনের কথা উল্লেখ করে বলা হয়েছে, সরাসরি কোভিডে মৃত্যু তো বটেই এমনকী করোনা ত্রাণের সঙ্গে যুক্ত কেউ যদি মারা যান, তাঁর পরিবারও পাবে সেই ক্ষতিপূরণ। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রকের বেঁধে দেওয়া গাইডলাইন অনুযায়ী, ডেথ সার্টিফিকেটে মৃত্যুর কারণ হিসেবে অবশ্যই কোভিড লেখা থাকতে হবে। এই নিয়ম বলবৎ থাকবে পরবর্তী বিজ্ঞপ্তি জারি না হওয়া পর্যন্ত। ইতিমধ্যেই কিন্তু দেশজুড়ে করোনায় মৃতের সংখ্যা প্রায় ৪ লক্ষ ৪৫ হাজার। 
জেলাস্তরে ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট অথরিটির কাছে নির্দিষ্ট একটি ফর্ম পূরণ করে ক্ষতিপূরণের দাবি জানাতে হবে পরিবারের সদস্যদের। তাঁর সঙ্গে জমা দিতে হবে ডেথ সার্টিফিকেট, মৃতের বাড়ির ঠিকানা, পরিবারের সদস্যের (যাঁর কাছে টাকা যাবে) ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, মৃতের সঙ্গে দাবিদারের সম্পর্কের মতো বিস্তারিত তথ্য। আবেদনের ৩০ দিনের মধ্যে সরাসরি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে চলে যাবে সেই অর্থ। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, কোভিড ক্ষতিপূরণ সংক্রান্ত এক মামলায় বুধবার সুপ্রিম কোর্টে হলফনামায় এনডিএম-র গাইডলাইনের বিষয়টি উল্লেখ করা হলেও গত ১১ সেপ্টেম্বর সব রাজ্যের মুখ্যসচিবকে চিঠি দিয়ে আগেই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই মামলায় গত ৩০ জুন কেন্দ্রকে ছ’সপ্তাহের মধ্যে আর্থিক ক্ষতিপূরণ সংক্রান্ত গাইডলাইন তৈরির নির্দেশ দিয়েছিল। এদিন সেটিই আদালতকে জানিয়েছে কেন্দ্র। কোভিডে মৃতের পরিবারকে ৪ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি উঠেছিল। তারই ভিত্তিতে এই মামলার শুনানিতে কেন্দ্রকে একটি গাইডলাইন তৈরি করার নির্দেশ দেয় সর্বোচ্চ আদালত। সংক্রমণের একেবারে গোড়ার দিকে মৃতের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে‌ বলেই জানিয়েছিল স্বাস্থ্যমন্ত্রক। কিন্তু মৃত্যু বাড়তে থাকায় সেই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। 
এখন প্রশ্ন হচ্ছে, আর্থিক ক্ষতিপূরণ রাজ্যের ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট তহবিল থেকে যাবে কেন? শুধু তাই নয়, এর জন্য রাজ্যের ভাঁড়ারে পর্যাপ্ত অর্থও থাকতে হবে। ফলে এই বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য টানাপোড়েন চলার সম্ভাবনা প্রবল। সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্র জানিয়েছে, এমনিতেই কোভিড মোকাবিলায় রাজ্য তথা কেন্দ্রের তহবিল থেকে প্রচুর অর্থ খরচ হচ্ছে। বাজেটে বিশেষ অর্থ বরাদ্দ হলেও কোভিডে মৃতের পরিবারকে চিকিৎসা ও অন্যান্য খাতের রাহাখরচ দেওয়া সম্ভব নয়। তাছাড়া মৃতের সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। ভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ভবিষ্যতে আরও কত ভয়ঙ্কর হতে পারে জানা নেই। তবুও মৃত ব্যক্তির পরিবারের পাশে থাকতেই এই সুপারিশ করেছে এনডিএমএ। আর এখানেই আপত্তি তুলেছে পশ্চিমবঙ্গ। রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম জানান, করোনা মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আলাদা ফান্ড করেছেন। নিয়েছেন আরও একাধিক পদক্ষেপ। উল্টোদিকে, কেন্দ্রের কাছ থেকে আমরা প্রাপ্য টাকাও পাই না। সব কিছু রাজ্যের উপর চাপিয়ে দিলে চলবে কি করে? একই প্রশ্ন কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়নের। 

23rd     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021