বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

সরকারি ব্যাঙ্কের খদ্দের খুঁজতে বৈঠক বুধবার
প্রাথমিক লক্ষ্য ব্যাঙ্ক অব মহারাষ্ট্র,
ইন্ডিয়ান ওভারসিজ বিক্রি

সমৃদ্ধ দত্ত, নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণ প্রক্রিয়ার চূড়ান্ত রূপরেখা... আরও স্পষ্ট করে বললে কারা কিনতে পারবেন সরকারি ব্যাঙ্ক, তা স্থির হবে আগামী সপ্তাহেই। বুধবার অর্থমন্ত্রক, রিজার্ভ ব্যাঙ্ক, নীতি আয়োগ এবং অর্থমন্ত্রকের অধীনে থাকা ফিনান্সিয়াল সার্ভিস ও ইকনমিক অ্যাফেয়ার্স বিভাগের মধ্যে একটি উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক হবে। ‘বাছাই করা’ রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিকে বিক্রির ক্ষেত্রে কোন ধরনের ক্রেতা প্রাধান্য পাবেন, তা ঠিক হবে বৈঠকে। অর্থাৎ, কারা যোগ্য? বেসরকারি ব্যাঙ্ক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, নাকি বিদেশি ব্যাঙ্ক? এই উত্তর খুঁজবে মোদি সরকার। প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হওয়ার এক মাসের মধ্যেই শুরু হয়ে যাবে বিক্রি। নীতি আয়োগ এখন পর্যন্ত পাঁচটি ব্যাঙ্ক বেসরকারিকরণের প্রস্তাব দিয়েছে। তবে প্রাথমিকভাবে চূড়ান্ত হয়েছে দু’টি নাম—ব্যাঙ্ক অব মহারাষ্ট্র ও ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্ক। তবে, আরও তিনটি ব্যাঙ্ক আলোচনার তালিকায় থাকবে। পাশাপাশি রাষ্ট্রায়ত্ত বিমা সংস্থার বিলগ্নিকরণ নিয়েও সেদিন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হবে। 
ঘটনাচক্রে এর ইতিবাচক প্রভাব কিন্তু পড়তে শুরু করেছে শেয়ার বাজারে। শুক্রবার দেখা গিয়েছে, বেছে বেছে যে ব্যাঙ্কগুলির বেসরকারিকরণ প্রক্রিয়া নিয়ে সরকার অগ্রসর হচ্ছে, ঠিক সেগুলির শেয়ার দর এক ধাক্কায় অনেকটা বেড়েছে। ব্যাঙ্ক অব মহারাষ্ট্রের শেয়ার দর একদিনে বেড়েছে ১৫.৩ শতাংশ। ইন্ডিয়ান ওভারসিজ ব্যাঙ্কের ১২ শতাংশের বেশি। সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার শেয়ার ১০ শতাংশ বেড়ে গিয়েছে একদিনে। এই প্রবণতাগুলি ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জের (এনএসই) হিসেবে। এছাড়া অন্য রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলির মধ্যেও ইতিবাচক সাড়া দেখা যাচ্ছে। এই আবহে আরও উৎসাহিত হয়েছে সরকার। কোন ব্যাঙ্কের আর্থিক স্বাস্থ্য কেমন, বাজারে ঋণের পরিমাণ কত এবং অনুৎপাদী সম্পদের বোঝা আছে কতটা, এই তিনটি বিষয়কে সামনে রেখে ব্যাঙ্কের বিক্রয়যোগ্যতার মাপকাঠি তৈরি করেছে নীতি আয়োগ। 
২০২১-২২ সালের বাজেটেই অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ঘোষণা করেছিলেন রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের বেসরকারিকরণের কথা। তবে গত বছরের আগস্ট মাসে সংযুক্তিকরণের মাধ্যমে ১০টি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ককে চারটিতে নামিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। ২০১৭ সাল থেকে এই প্রক্রিয়া শুরু হয়। সম্প্রতি নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান রাজীব কুমার বলেন, এপ্রিল মাস থেকে শুরু হওয়া নতুন আর্থিক বছরে ব্যাঙ্কিং সেক্টরের বিপুল সংস্কার করা হবে। সরকারের পরিকাঠামো প্রকল্পগুলিকে টাকা জোগানোর দায়ভার থেকেও ব্যাঙ্কগুলিকে মুক্ত করা হবে। এজন্য তৈরি করা হবে মেগা পরিকাঠামো তহবিল। আর ব্যাঙ্কের সংস্কারের অন্যতম প্রধান লক্ষ্য হবে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের সংখ্যা কমিয়ে আনা। সরকার স্থির করেছে, প্রথমে চেষ্টা করা হবে বিভিন্ন আর্থিকভাবে লড়াই করতে থাকা ব্যাঙ্কের সংযুক্তিকরণ ঘটিয়ে সেগুলির স্বাস্থ্য ফেরানোর। আর সেটা একান্তই ব্যর্থ হলে ব্যাঙ্ক বেসরকারি হাতে বিক্রি করে দেওয়া হবে। সেই প্রক্রিয়ার সূত্রপাত হবে আগামী বুধবারের বৈঠকে। সেদিনই স্থির হয়ে যাবে, কোন ধরনের আর্থিক প্রতিষ্ঠানের হাতে চলে যেতে পারে রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের পরিচালন ভার। ছবি: পিটিআই

10th     April,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021