বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

১. সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে জারি হয়েছে বিধিনিষেধ। শুনশান মুম্বইয়ের মেরিন ড্রাইভ। ২. করোনা সংক্রমণ বাড়ায় দোকানপাট বন্ধ রেখেছেন লখনউয়ের জনপথ মার্কেটের দোকানিরা। ৩. কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মৃতদের শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হচ্ছে নয়াদিল্লির নিগমবোধ ঘাটে। ৪. মৃতদেহ পোড়ানোর ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ার পর টিন দিয়ে ঢেকে দেওয়া হচ্ছে লখনউয়ের বৈশ্যকুন্ড শশ্মানঘাট। ৫. আমেদাবাদে কোভিড হাসপাতালের বাইরে কান্নায় ভেঙে পড়েছেন আক্রান্তদের আত্মীয়-পরিজনেরা। বৃহস্পতিবার পিটিআইয়ের তোলা ছবি। 

অপহৃত জওয়ানের ছবি প্রকাশ মাওবাদীদের
দ্রুত মধ্যস্থতাকারীর নাম ঘোষণার দাবি

নয়াদিল্লি: ছত্তিশগড়ের বিজাপুরে হামলার চারদিন পর অপহৃত জওয়ানের ছবি প্রকাশ করল মাওবাদীরা। ওই জওয়ানের নাম রাকেশ্বর সিং মানহাস। তিনি ২১০ কোবরা ব্যাটালিয়নের সদস্য। বাড়ি জম্মুর বুরনাইয়ে। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, তালপাতার অস্থায়ী ছাউনিতে প্লাস্টিকের মাদুরের উপর বসে রয়েছেন অপহৃত ওই জওয়ান। এটি মাওবাদী ক্যাম্পের ছবি বলেই প্রাথমিকভাবে মনে করা হচ্ছে।
গত শনিবার সুকমা-বিজাপুর সীমানায় গেরিলা কায়দায় ২২ জন জওয়ানকে নৃশংসভাবে হত্যা করে মাওবাদীরা। জখম হন আরও কয়েকজন। তারপর থেকে নিখোঁজ ছিলেন রাকেশ্বর। বুধবার তাঁর ছবি প্রকাশ্যে আনল মাওবাদীরা। একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর, ছবিটি তাদের নিখোঁজ জওয়ানের বলে জানিয়েছে সিআরপিএফ। মঙ্গলবারই মাওবাদীরা একটি বিবৃতি জারি করেছিল। তাতে সরকারের উপর চাপ তৈরির কৌশল নেয় তারা। চিঠির আকারে লেখা দু’পাতার ওই বিবৃতিতে মাওবাদীরা জানায়, মানহাস তাদের হেফাজতে রয়েছে। সেইসঙ্গে, কোবরা কমান্ডোকে ছাড়াতে তারা কেন্দ্রের সঙ্গে মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেয়। এজন্য দ্রুত মধ্যস্থতাকারীর নাম প্রকাশেরও দাবি জানায় ওই নিষিদ্ধ সংগঠন। চিঠিতে তারা লিখেছে, একজন জওয়ান আমাদের হেফাজতে রয়েছেন। আমরা সরকারের সঙ্গে মধ্যস্থতায় তৈরি। ওরা মধ্যস্থতাকারীর নাম ঘোষণা করুক। আমরা জওয়ানকে ছেড়ে দেব। পুলিস-জওয়ানরা আমাদের শত্রু নন।
এদিকে, মানহাসের দ্রুত মুক্তির দাবিতে জম্মু-পুঞ্চ জাতীয় সড়ক অবরোধ করলেন তাঁর আত্মীয়-পরিজনেরা। তাঁদের দাবি, জওয়ানকে সুরক্ষিতভাবে উদ্ধার করে আনার দায়িত্ব কেন্দ্রের। এ প্রসঙ্গে রাকেশ্বরের স্ত্রী মীনু বলেন, ওকে সুরক্ষিতভাবে ফিরিয়ে দায়িত্ব সরকারের। দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। যাতে নিরাপদে রাকেশ্বর আমাদের কাছে ফিরে আসতে পারে। ওর মুক্তির জন্য সরকার কী করছে, তা আমাদের জানানো হোক। পাশাপাশি, ঘটনার পর চারদিন কেটে গেলেও কেন্দ্র কেন কিছু বলছে না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন জওয়ানের স্ত্রী। তাঁর কথায়, কোনও জওয়ান ডিউটি যোগ দিতে একদিন দেরি করলেই, তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হয়। কিন্তু, রাকেশ্বর শনিবার থেকে নিখোঁজ। কেউ কোনও ভ্রুক্ষেপই করছে না।  

8th     April,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
15th     April,   2021