বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

এবার শাখা ডাকঘরে একদিনে ৫০
হাজার টাকা পর্যন্ত লেনদেনের সুযোগ

বিশেষভাবে উপকৃত হবেন আমানতকারী ও পেনশনভোগীরা  

বাপ্পাদিত্য রায়চৌধুরী, কলকাতা: এবার গ্রামের ব্রাঞ্চ পোস্ট অফিস বা শাখা ডাকঘরগুলিতে একদিনে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত লেনদেনের সুযোগ পাবেন গ্রাহকরা। এর ফলে যাঁরা ডাকঘরের সঞ্চয় প্রকল্পগুলিতে টাকা রাখতে চান তাঁরা যেমন সুবিধা পাবেন, তেমনই পেনশন প্রাপকরাও বড় সুবিধা পেতে চলেছেন।
বড় পোস্ট অফিস বা সাধারণ পোস্ট অফিসের পাশাপাশি রাজ্যে রয়েছে অনেক সাব-পোস্ট অফিস। আবার সাব-পোস্ট অফিসগুলির আওতায় গ্রামের বিভিন্ন প্রান্তে ছড়িয়ে রয়েছে শাখা ডাকঘর। এগুলো মূলত একজন কর্মী বিশিষ্ট ডাকঘর, যেখানে পোস্টমাস্টার বিভিন্ন পরিষেবা দিয়ে থাকেন। শুধু পশ্চিমবঙ্গেই নয়, দেশের প্রায় ১ লক্ষ ৫৫ হাজার পোস্ট অফিসের মধ্যে এই ব্রাঞ্চ অফিসের সংখ্যাই সবচেয়ে বেশি। গ্রাহকরা জানাচ্ছেন, এতদিন পর্যন্ত সেখানে গ্রাহক পিছু প্রতিদিন সর্বাধিক লেনদেনের অঙ্ক ছিল পাঁচ হাজার টাকা। যেহেতু এই অঙ্ক অনেকটাই কম, তাই লেনদেনের ক্ষেত্রে নানান সমস্যার সম্মুখীন হতেন গ্রাহকরা। সেই সমস্যার কথা চিন্তা করেই নিয়মে বদল আনল ভারতীয় ডাক বিভাগ। দিল্লি থেকে ডাক বিভাগের প্রতিটি সার্কেল হেডকে জানানো হয়েছে, এখন গ্রাহক কিছু প্রতিদিন ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত লেনদেন করতে পারবেন ব্রাঞ্চ পোস্ট অফিসের পোস্টমাস্টার।
প্রতিটি ব্রাঞ্চ পোস্ট অফিসে যাতে আধার সংযোগের মাধ্যমে লেনদেন করা যায়, তার জন্য ‘দর্পণ’ নামে একটি প্রকল্প ইতিমধ্যেই চালু হয়েছে। এর ফলে বিভিন্ন স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পের টাকা জমা করার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাতে প্রযুক্তিগত কারণে নানা অসুবিধা হয়, এমনটাই জানাচ্ছেন গ্রাহকরা। এদিকে দিল্লি থেকে যে নির্দেশিকা এসেছে, তাতে বলা হয়েছে সাধারণ গ্রাহক পাবলিক প্রভিডেন্ট ফান্ড, সিনিয়র সিটিজেন সেভিংস স্কিম, সুকন্যা সমৃদ্ধি অ্যাকাউন্ট, ন্যাশনাল সেভিংস সার্টিফিকেট বা মান্থলি ইনকাম স্কিমের মত প্রকল্পগুলিতে এখন টাকা রাখতে পারবেন। তবে যা জমা করতে হবে উইথড্রল ফর্ম বা চেকের মাধ্যমে।
ডাকঘরের স্বল্প সঞ্চয় প্রকল্পগুলিকে জনপ্রিয় করতে দীর্ঘদিন ধরে চেষ্টা চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় সরকার। এই স্কিমগুলিতে সুদের হার ধাপে ধাপে অনেকটাই কমিয়ে আনার ফলে অনেকেই এই প্রকল্পগুলি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছেন। সেই কারণেই এগুলোকে ফের জনপ্রিয় করতে নানা পরিকল্পনা করেছে ডাক বিভাগ। ইতিমধ্যেই জেলায় জেলায় ক্যাম্প করে প্রকল্প বিক্রি করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। যেহেতু এই প্রকল্পগুলি মূলত এজেন্ট নির্ভর, তাই মাস কয়েক আগে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, ব্রাঞ্চ পোস্ট অফিসে থাকা গ্রামীণ ডাকসেবকরাও এজেন্সি নিতে পারবেন। এর ফলে তাঁরা যেমন কমিশন পাবেন, তেমনই সাধারণ মানুষকে স্বল্প সঞ্চয় উৎসাহ দিতে পারবেন। যেহেতু শাখা পোস্ট অফিসগুলি প্রত্যন্ত গ্রামে ছড়িয়ে রয়েছে, তাই সেখানকার মানুষকে সঞ্চয়ে আগ্রহী করা সম্ভব হবে, এমনটাই দাবি করেছেন ডাক বিভাগের কর্তারা। 

8th     March,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
10th     April,   2021