বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

পুজোর উন্মাদনা একাদশীর মণ্ডপেও

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাজপথে অস্থায়ী আলো ক্রমশ ফিকে হচ্ছে। বিজ্ঞাপনী হোর্ডিং নামছে আস্তে আস্তে। একাধিক মণ্ডপের সামনে হাজির বড় বড় ট্রেলার। এবার ‘মা দুগ্গা’ সপরিবারে ফিরছেন কৈলাসে! কিন্তু বিজয়ার আবহেও বহমান মানুষের ভিড়। একাদশীর দুপুরে কাঠফাটা রোদে অনেকে বেরিয়ে পড়েছেন ঠাকুর দেখতে। পুজোর চারদিন প্রচণ্ড ভিড় ছিল তিলোত্তমাজুড়ে। কাজেই বেরতে সাহস পাননি বয়স্করা। এবার তাঁদের মণ্ডপ পরিক্রমার পালা। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জনস্রোত আছড়ে পড়েছে বিখ্যাত সেই সব প্যান্ডেলে, যেখানে এখনও স্বমহিমায় বিরাজমান দেবী দুর্গা। নবমীর তুলনায় হয়তো কম, কিন্তু উন্মাদনায় ভাটা পড়েনি।
একডালিয়ার মণ্ডপে দাঁড়িয়ে সেকথাই বলছিলেন সুস্মিতা দত্ত। বিজয়ার প্রণাম করতে এসে বাবা-মাকে নিয়ে নিউটাউনের বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়েছেন দুপুরেই। জানালেন, ভবানীপুরের বকুলবাগান থেকে শুরু করেছি। আরও বেশ কয়েকটা ঠাকুর দেখব। একডালিয়া থেকে হিন্দুস্তান পার্ক—ভরদুপুরেও মানুষের মিছিল ছিল অব্যাহত। ত্রিধারা অবশ্য এদিনও এগিয়ে ছিল। দিনের আলোতে বহু মানুষকে প্রতিমার দিকে মোবাইল তাক করে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেল। তবে একাদশীর ভোর হোক কিংবা সন্ধ্যা, যথারীতি ছক্কা হাঁকিয়েছে শ্রীভূমি। সেই মহালয়া থেকে যেখানে জনসমাগমে ভাটা নেই। উত্তর কলকাতার বাগবাজার, সন্তোষ মিত্র স্কোয়ার, কলেজ স্কোয়ারেও ভিড় জমিয়েছিলেন সাধারণ মানুষ।
পুজো কেটে যাওয়ার পর ছুটি পেয়ে বেঙ্গালুরু থেকে কলকাতায় এসেছেন সৌমার্য বিশ্বাস। অগত্যা একাদশীতেই বেরিয়েছেন ঠাকুর দেখতে। বলছিলেন, ‘বড় প্যান্ডেলের ঠাকুর তো কার্নিভালে যোগ দেবে। তাই যতক্ষণ ঠাকুর আছে দেখেনি।’ আগামী কাল, শনিবার রেড রোডে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে রাজ্য সরকার আয়োজিত দুর্গাপুজোর কার্নিভাল। এদিন সেই সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে বৈঠকে বসে পুলিস। সিদ্ধান্ত হয়, কার্নিভালে প্রত্যেক পুজো কমিটির জন্য থাকবে তিনটি ট্রেলার। দুপুর ১২ টার মধ্যে তাদের হেস্টিংসে হাজির হওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। ময়দানে থাকবে গাড়ি রাখার ব্যবস্থা।
বিভিন্ন জেলায় আজ, শুক্রবারই কার্নিভাল অনুষ্ঠিত হবে। বারাকপুরের বেশ কয়েকটি পুজো কমিটি প্রতিমা নিরঞ্জন করেনি। তারা বারাসাতের কার্নিভালে যোগ দেবে। ইতিমধ্যেই প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। আলিপুর মহকুমার তিনটি ব্লকের তিনটি বারোয়ারি পুজো কমিটি কার্নিভালে অংশ নেওয়ার জন্য নির্বাচিত হয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ২৪টি সেরা প্রতিমা নিয়ে এবছর শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে। বারাসত, বনগাঁ, বারাকপুর মহকুমার সেরা প্রতিমাগুলি তাতে অংশ নেবে। তবে বসিরহাট থেকে কোন‌ও প্রতিমা এবছর কার্নিভালে থাকছে না। জেলা প্রশাসন সূত্রে খবর, শুক্রবার বিকেল ৪টে থেকে শুরু হবে কার্নিভাল। বারাসত-টাকি রোড সংলগ্ন শতদল ক্লাবের মাঠ থেকে শোভাযাত্রা শুরু হবে। 

7th     October,   2022
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ