বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্ত
কমল রেশন গ্রাহকদের
জন্য কেরোসিনের বরাদ্দ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কেন্দ্রীয় সরকার অক্টোবর মাস থেকে রাজ্যে রেশন গ্রাহকদের জন্য কেরোসিনের সামগ্ৰিক বরাদ্দ কমিয়ে অর্ধেক করে দিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে রেশন গ্ৰাহকদের মাথাপিছু যে পরিমাণ কেরোসিন দেওয়ার কথা সেটাও কমে যাওয়ার কথা। কিন্তু এমাসে অন্তত সেটা করা হয়নি। মাথাপিছু বরাদ্দ একই রাখা হয়েছে। ডিজিটাল রেশন কার্ডের মাথাপিছু  ৫০০ মিলিমিটার বরাদ্দ থাকছে। জঙ্গলমহল সহ কিছু নির্দিষ্ট এলাকায় বরাদ্দ ১ লিটার রাখা হয়েছে। রেশন গ্ৰাহকরা কতটা কেরোসিন পাবেন তা ঠিক করে রাজ্য খাদ্য দপ্তর। জানা গিয়েছে, কৌশলগত কারণে আপাতত মাথাপিছু বরাদ্দ কমানো হয়নি। 
আগের তুলনায় কেরোসিনের দাম রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থারা কিছুটা কমিয়েছে। কিন্তু দাম এখনও যথেষ্ট চড়া। বহু রেশন গ্ৰাহক তাই কেরোসিন কিনছেন না। এই অবস্থায় মাথাপিছু বরাদ্দ কমিয়ে দিলে, কেন্দ্র এখন যে পরিমাণ কেরোসিন দিচ্ছে সেটাই পুরোপুরি ব্যবহার করা নাও যেতে পারে এমনটাই মনে করছেন খাদ্য দপ্তরের আধিকারিকরা। এটা হলে আগামী জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া কোয়ার্টারে কেন্দ্র বরাদ্দ আরও কমাতে পারে। কোটা অর্ধেক হলেও এখনও রাজ্যগুলির মধ্যে পশ্চিমবঙ্গ সবথেকে বেশি কেরোসিন পায়। তাই মাথাপিছু বরাদ্দ এক রেখে কেরোসিন কতটা ব্যবহার করা যাচ্ছে তা এমাসে দেখে নিতে চাইছে দপ্তর। পরিস্থিতি দেখে পরের মাসে বন্টনের পরিমাণ নিয়ে নতুন সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। এমাসে আগে আসার ভিত্তিতে রেশন গ্ৰাহকদের কেরোসিন দেওয়ার জন্য ডিলারদের পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। কোনও ডিলারের কেরোসিন শেষ হয়ে যাওয়ার পর গ্ৰাহক এলে অন্য ডিলারের কাছে পাঠানোর ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে। এতে কিছুটা জটিলতা হতে পারে বলে মনে করছে কেরোসিন ডিলারদের সংগঠন। 
সেপ্টেম্বর পর্যন্ত রাজ্যকে প্রতি কোয়ার্টারে ১ লক্ষ ৭৬ হাজার কিলোলিটার কেরোসিন বরাদ্দ করত কেন্দ্র। অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া কোয়ার্টারে তা  কমিয়ে ৮৮৩৩২ কিলোলিটার করা হয়েছে। কলকাতা হাইকোর্টের একটি মামলায় স্থগিতাদেশ থাকার জন্য অন্য সব রাজ্যর মতো পশ্চিমবঙ্গের কোটা কমানো যায়নি।  কেরোসিন হোলসেলার এজেন্টদের একটি সংগঠন ওই মামলাটি করে ২০১৬ সালে। সম্প্রতি ওই সংগঠনের পক্ষে সাধারণ সম্পাদক দেবাশিস জোয়ারদার  মামলাটি তুলে নেন। রাজ্যে যে পরিমাণ কেরোসিন দেওয়া হচ্ছে তা ব্যবহার করা যাচ্ছে না এই কারণ দেখিয়ে মামলা প্রত্যাহার করেন তিনি। এর পরিপ্রেক্ষিতে বিচারপতি অভিজিত গঙ্গোপাধ্যায় মামলাটি প্রত্যাহারের নির্দেশ জারি করেন। 
কেরোসিন ডিলারদের সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অশোক গুপ্তর অভিযোগ,  বিশেষ কারণে হঠাৎ ই মামলা প্রত্যাহারের আবেদন করা হয়।  মামলা তোলার বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার জন্য হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিত গঙ্গোপাধ্যায়ের আদালতে আবেদন 
করেছিলেন এজেন্ট সংগঠনের কয়েকজন সদস্য। ওই সদস্যদের অভিযোগ ছিল, তাঁদের মতামত ছাড়াই মামলা তোলা হয়েছে। এরপর বিচারপতির নির্দেশে দেবাশিস বাবুকে সম্প্রতি আদালতে হাজির হয়ে মামলা প্রত্যহার সংক্রান্ত বক্তব্য পেশ করতে হয়। বিচারপতি মামলা প্রত্যাহারের বিষয়টির পুনর্বিবেচনা করেননি।

6th     October,   2022
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ