বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

বাংলা ভাগ নয়, দিলীপের মন্তব্যে
ফাটল আরও চওড়া বঙ্গ বিজেপির

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: বাংলা ভাগের দাবি নেহাৎ আবোলতাবোল ছাড়া আর কিছু নয়। এই ইস্যুতে রাজ্য বিজেপির একাংশের উস্কানি কার্যত উড়িয়ে দিলেন রাজ্যের প্রাক্তন সভাপতি তথা বর্তমানে সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ। স্পষ্ট ভাষায় জানালেন, ‘আমরা মোটেই বাংলা ভাগ চাই না। এটা বিজেপির লক্ষ্য নয়। তাই যাঁরা বাংলা ভাগের কথা বলছেন, তাঁদের সঙ্গে একমত নই। রাজ্যের কোনও কোনও জেলায় উন্নয়নের অভাব রয়েছে ঠিকই, কিন্তু তাই বলে পশ্চিমবঙ্গকে টুকরো করার কোনও টার্গেট বিজেপির নেই।’ বিধানসভা নির্বাচনে ভরাডুবির পর থেকেই বঙ্গ বিজেপিতে দ্বন্দ্ব চরমে। তারপর সাংগঠনিক কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে ফাটল ক্রমশ আরও চওড়া হয়েছে। দল ছেড়েছেন বহু নেতা-বিধায়ক-সাংসদ। এদিন দিলীপবাবুর মন্তব্য সেই বিতর্কে নয়া ইন্ধন দিল বলেই মনে করা হচ্ছে।
দলের এমপি জন বার্লা, সৌমিত্র খাঁর পাশাপাশি রাজ্য বিজেপির কিছু অংশ প্রায়শই পশ্চিমবঙ্গকে ভাগের দাবি তুলছেন। কেউ পাহাড়কে আলাদা রাজ্য হিসেবে দেখতে চান, কেউ জঙ্গলমহলকে। বিজেপির যদি এমন কোনও এজেন্ডা না থাকে, তাহলে বারংবার এমন দাবি কেন? স্বভাবতই উঠছে সেই প্রশ্ন। দিলীপবাবুর অবশ্য সোজাসাপ্টা জবাব, ‘অনেকে বিজেপিতে নতুন এসেছেন, তাই তাঁরা দলের নীতি ঠিকমতো জানেন না। আবোলতাবোল বকেন।’ 
একের পর এক এমন ঘটনায় বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের প্রতি ক্ষোভ বাড়ছে বঙ্গ বিজেপির পুরনো নেতাদের। এমতপরিস্থিতিতেই আজ, বুধবার দিল্লিতে সাংগঠনিক দুর্বলতা নিয়ে আলোচনায় বসছেন শীর্ষ নেতারা। গোটা দেশে ৭৫ হাজার বুথে দলের সংগঠন দুর্বল বলেই হিসেব কষেছে গেরুয়া শিবির। তবে পশ্চিমবঙ্গে তার নেপথ্যে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের সমঝদারির অভাবকেই দায়ী করেছেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘দলে যাঁরা পুরনো, কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব তাঁদের ঠিকমতো গুরুত্বই দিচ্ছে না। সদ্য যাঁরা দল বদল করে এসেছেন, তাঁদের গুরুত্ব দিচ্ছেন। ভাবছেন ওঁদের খুশি করে যদি ধরে রাখা যায়। কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব বুঝতেই পারছে না যে বা যাঁরা এসেছেন, তাঁরা বিজেপিকে ভালোবেসে আসেননি। ক্ষমতার সঙ্গে জুড়ে থাকার লোভেই দল বদল করেছিলেন। আশা করি এখন এ-ও ছেড়ে চলে যাওয়ায় তা টের পাচ্ছে ওঁরা।’ দলে পুরনোদেরই গুরুত্ব দেওয়ার পক্ষে আজ সাংগঠনিক বৈঠকে সওয়াল করবেন দিলীপবাবু। কেন্দ্রে মোদি সরকার থাকা সত্ত্বেও যে বাংলায় দল দুর্বল, সেকথাও তিনি স্বীকার করেছেন। যদিও তার জন্য বর্তমান সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে দোষা দিচ্ছেন না। তাঁর কথায়, ‘ও নতুন দায়িত্ব পেয়েছে। শিখতে সময় লাগবে।’

25th     May,   2022
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ