বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

আহারে মগ্ন। বারাসত গভর্নমেন্ট কলেজে তোলা নিজস্ব চিত্র। 

উত্তরপ্রদেশে মমতাকে পাশে চেয়ে
কালীঘাটে আজ অখিলেশের দূত

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বাংলার পুনরাবৃত্তি হোক উত্তরপ্রদেশে। লাইনচ্যুত হোক বিজেপির ডবল ইঞ্জিনের তত্ত্ব। এটাই এখন মূল লক্ষ্য সমাজবাদী পার্টির। আব কী বার, ২০০ পার—বিজেপির স্বপ্ন চুরমার করে দিয়েছেন ‘মোদি-শাহমর্দিনী’ তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই জায়েন্ট কিলারকে উত্তরপ্রদেশে সহযোগী হিসেবে চাইছেন সমাজবাদী পার্টির কর্তা অখিলেশ যাদব। সেই লক্ষ্যকে সামনে রেখেই মমতার কাছে ‘দূত’ পাঠাচ্ছেন তিনি। আজ, মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে চারটের সময় কালীঘাটে গিয়ে মমতার সঙ্গে বৈঠক করবেন সমাজবাদী পার্টির সহ-সভাপতি কিরণময় নন্দ। আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে উত্তর প্রদেশবাসীকে মমতা শোনান, বিজেপি বধের কাহিনী, এমনটাই চাইছে সমাজবাদী পার্টি। ‌যা নিয়ে আজকের বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হওয়ার কথা। বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে রীতিমতো বিবৃতি দিয়ে তৃণমূলকে সমর্থনের কথা ঘোষণা করেছিলেন অখিলেশ। এবার উত্তর প্রদেশ নির্বাচনে তাঁর পাশে থাকার বার্তা দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো। তবে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়া ললিতেশপতি ত্রিপাঠির জন্য উত্তর প্রদেশে একটি আসনের ‘আব্দার’ অখিলেশের দূতের কাছে জানানো হবে বলে তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে।  
মোদি-শাহের ‘তানাশাহি’র প্রতিবাদে দেশজুড়ে কার্যত গণ আন্দোলন শুরু হয়েছে। আন্দোলন করে কেন্দ্র সরকারকে মাথানত করতে বাধ্য করিয়েছেন কৃষকরা। এই আবর্তেই ফেব্রুয়ারি মাস থেকে শুরু হয়ে যাচ্ছে উত্তরপ্রদেশ বিধানসভা নির্বাচন। ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে উত্তরপ্রদেশ নিয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জের মুখে দাঁড়িয়ে বিজেপি। ঘটনাচক্রে আরও গুরুত্বপূর্ণ হল উত্তরপ্রদেশে বিজেপি শিবিরে বড়সড় ভাঙ্গন। অনেকেই মনে করছেন, অখিলেশ যাদবের নেতৃত্বে সমাজবাদী পার্টির ‘সাইকেল’ এবার দ্রুত গতিতে ছুটতে শুরু করেছে। বিজেপি বিরোধী এই লড়াইয়ে অখিলেশ পাশে পেতে চান মমতাকে। সেই কারণেই তিনি সমাজবাদী পার্টির শীর্ষনেতা কিরণময় নন্দকে কলকাতায় পাঠিয়েছেন। আজ, মঙ্গলবার কালীঘাটে গিয়ে আসন্ন উত্তরপ্রদেশের নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করবেন কিরণময়বাবু। সমাজবাদী পার্টি চাইছে, মমতা একবার উত্তরপ্রদেশে আসুন। অখিলেশের পাশে বসে তিনি উত্তরপ্রদেশবাসীর প্রতি বার্তা দিন। অখিলেশ-মমতার একটি সাংবাদিক বৈঠক অথবা সমাজবাদী পার্টির কর্মী সভায় মমতা বক্তব্য রাখুন,  এমনটাই চাইছে উত্তরপ্রদেশের প্রধান বিরোধীদল। কিন্তু, আগামী ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত উত্তরপ্রদেশে প্রচারের ক্ষেত্রে এবার একাধিক বিধি-নিষেধ আরোপ হয়েছে। এই পর্বে মমতার পক্ষে ভার্চুয়াল বার্তা দেওয়া সম্ভব কি না, সেটা নিয়েও আলোচনা হতে পারে আজ। কিরণময় নন্দ বলেছেন, বাংলার মানুষের বিপুল জনসমর্থন নিয়ে বিজেপিকে হারিয়েছেন মমতা। তারপর থেকে উত্তরপ্রদেশে মমতাকে ঘিরে বিরাট উৎসাহ ও উচ্ছ্বাস তৈরি হয়েছে। এই অবস্থায় অখিলেশ যাদব ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের যৌথ বার্তা আরও সাড়া ফেলবে। সেই যৌথ বার্তার প্রক্রিয়া নিয়ে আলোচনা হবে। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, আমাদের সকলের লক্ষ্য বিজেপিকে হারানো। বাংলায় যেমন বিজেপি পরাজিত হয়েছে, তেমনই এবার উত্তরপ্রদেশের মানুষ মনস্থির করে ফেলেছেন বিজেপিকে ভোট দেবেন না। মঙ্গলবারের এই বৈঠককে গুরুত্ব দিয়ে দেখছে তৃণমূল। দলের রাজ্যসভার সাংসদ সুখেন্দু শেখর রায় বলেন, মঙ্গলবারের বৈঠক অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ। সমাজবাদী পার্টির শক্তি ক্রমশ বাড়ছে। ফলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা গুরুত্বপূর্ণ মোড় নেবে। বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই আরও শক্তিশালী হবে।

18th     January,   2022
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ