বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

আহারে মগ্ন। বারাসত গভর্নমেন্ট কলেজে তোলা নিজস্ব চিত্র। 

চিঠির কোনও জবাব না দিয়ে মমতাদের
কদর্য ভাষায় আক্রমণ কেন্দ্রের বিবৃতিতে

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি ও কলকাতা: সাধারণতন্ত্র দিবসে দিল্লির কুচকাওয়াজে নেতাজি শীর্ষক বাংলার ট্যাবলো বাতিল হওয়ার প্রতিবাদে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি পাঠিয়েছিলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই ট্যাবলোর ছাড়পত্র দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। সেই চিঠির আনুষ্ঠানিক কোনও জবাব মেলেনি। উল্টে সোমবার সন্ধ্যায় কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে মন্ত্রকবিহীন একটি প্রেস বিবৃতি পৌঁছে দেওয়া হয় সংবাদমাধ্যমের কাছে। বাংলা সহ যে তিন রাজ্য সাধারণতন্ত্র দিবসের ট্যাবলো নিয়ে নিজেদের প্রতিবাদী অবস্থান তুলে ধরেছিল,  সেই তিন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকেই কদর্য ভাষায় আক্রমণ করা হয়েছে ওই প্রেস বিবৃতিতে। মুখ্যমন্ত্রীদের বিরুদ্ধে প্রতিবছর একই চিত্রনাট্যের পুনরাবৃত্তি, পজিটিভ কোনও এজেন্ডা না থাকায় কেন্দ্রের সঙ্গে বিবাদ এবং যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোকে ধ্বংস করার মতো মারাত্মক অভিযোগ আনা হয়েছে। এরই পাশাপাশি কেন্দ্রের সাফাই, এবার সিপিডব্লুডি’র ট্যাবলোতে থাকছেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু। তাই তাঁকে অপমান করার কোনও প্রশ্নই ওঠে না।  প্রেস বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ট্যাবলো নির্বাচনের ক্ষেত্রে সরকার প্রত্যক্ষভাবে জড়িত নয়। প্রতিরক্ষামন্ত্রকের বিশেষজ্ঞ কমিটি এ ব্যাপারে যাবতীয় সিদ্ধান্ত নেয়। ওই কমিটিতে শিল্প সংস্কৃতি মহলের মানুষজন থাকেন। 
সোমবার কেন্দ্রীয় সরকার আরও জানিয়েছে, বিভিন্ন রাজ্য সরকার ও মন্ত্রকের থেকে এবার মোট ৫৬টি ট্যাবলোর মডেল জমা পড়েছিল। তার মধ্যে থেকে ২১টিকে বেছে নেওয়া হয়েছে। প্রতিবারই তা হয়। তাই ট্যাবলো বাতিল হওয়ায় বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যেভাবে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখে কেন্দ্র-রাজ্য বিবাদের পরিবেশ তৈরি করতে চাইছেন, তা ঠিক নয়। উল্লেখ্য, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সুরেই ট্যাবলো ইস্যুতে নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছেন তামিলনাড়ুর মুখ্যমন্ত্রী তথা ডিএমকে সুপ্রিমো এম কে স্ট্যালিন। কেন্দ্র সাফাই দিলেও দিল্লির রাজপথে পশ্চিমবঙ্গের নেতাজি সংক্রান্ত ট্যাবলো রাখা কেন্দ্রের উচিত ছিল বলেই মন্তব্য করেছেন বিজেপি নেতা তথাগত রায়ও। নেতাজির ট্যাবলো বাদ দেওয়ার ইস্যুতে রাজ্যজুড়ে কার্যত আলোড়ন পড়ে গিয়েছে।
মন্ত্রকবিহীন ওই প্রেস বিবৃতির মাধ্যমে মুখ্যমন্ত্রীদের কুৎসা করার কেন্দ্রীয় প্রচেষ্টায় প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ মমতা। ঘনিষ্ঠ মহলে সেই ক্ষোভ উজার করে দিয়েছেন তিনি। এই বিষয়ে রাজ্য মন্ত্রিসভার অন্যতম সদস্য পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, মন্ত্রকবিহীন ওই বিবৃতি দিয়ে কেন্দ্র বুঝিয়ে দিয়েছে, তারা কতটা ভীরু ও কাপুরুষ। বাঙালির মননের নায়ক নেতাজির নামে ট্যাবলো বাতিল হওয়ার প্রতিবাদ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। তার প্রেক্ষিতে নিজেদের যে অবস্থান স্পষ্ট করল কেন্দ্র, তাতে তাদের বাংলা ও বাঙালি বিরোধী চরিত্র স্পষ্ট হল। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর অবমাননার প্রতিবাদ জানাচ্ছি। 
এবার সাধারণতন্ত্র দিবসে দিল্লির কুচকাওয়াজে পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি  দিল্লি, কেরল, তামিলনাড়ুর ট্যাবলোও বাতিল করেছে কেন্দ্র। বাদ গিয়েছে  অন্ধ্রপ্রদেশও। অথচ রয়ে গিয়েছে বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশ, হরিয়ানা, কর্ণাটক, উত্তরাখণ্ড, গুজরাত, গোয়া। পাশাপাশি পাঞ্জাব, ছত্তিশগড়, মহারাষ্ট্র, জম্মু-কাশ্মীর, মেঘালয় এবং অরুণাচল প্রদেশের মতো সব মিলিয়ে থাকছে ১২ টি রাজ্য‌র ট্যাবলো। থাকছে কেন্দ্রের ন’টি মন্ত্রকেরও ট্যাবলো। সংস্কৃতিমন্ত্রক তুলে ধরছে শ্রীঅরবিন্দ। বাঙালি এই বিপ্লবীর এবার ১৫০ তম জন্মবর্ষ। তাই অরবিন্দর বিভিন্ন মডেল, বন্দেমাতরম পত্রিকার অংশবিশেষ, শ্রীমা সহ অরবিন্দের বাণী সমৃদ্ধ এই ট্যাবলো দেখা যাবে। উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, কোভিড পরিস্থিতিতে যে মন্ত্রক সবচেয়ে আলোচিত, সেই স্বাস্থ্যমন্ত্রকের কোনও ট্যাবলোও থাকছে না। অন্য঩দিকে, স্বাধীনতার ৭৫ বছরকে মাথায় রেখে রাজপথের মাথায় উড়বে ৭৫ টি যুদ্ধবিমান। থাকবে পাঁচটি রাফালও। 

18th     January,   2022
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ