বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

আহারে মগ্ন। বারাসত গভর্নমেন্ট কলেজে তোলা নিজস্ব চিত্র। 

২৬ জানুয়ারি রাজধানীতে বাংলার 
ট্যাবলো বাতিল নিয়ে ব্যথিত মমতা
সিদ্ধান্ত বদলের দাবি জানিয়ে চিঠি প্রধানমন্ত্রীকে

নিজস্ব প্রতিনিধি কলকাতা: সাধারণতন্ত্র দিবসে দেশের রাজধানীর বুকে বাংলার ট্যাবলো বাদ দিয়েছে কেন্দ্রের মোদি সরকার। যা নিয়ে হতবাক এবং ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার দাবি জানিয়ে রবিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী। তাতে তিনি স্পষ্ট করে বলেছেন, কেন্দ্রের সিদ্ধান্তে বাংলার সকলেই মর্মাহত।
স্বাধীনতার ৭৫ বছরকে মাথায় রেখে কেন্দ্রের তরফে এবার ঠিক করা হয়েছে, ‘আজাদি কা অমৃত মহোৎসব’ পালন করা হবে। সেইসঙ্গে জুড়েছে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ১২৫তম জন্মবার্ষিকী। ফলে এই বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়ে সাধারণতন্ত্র দিবসের অনুষ্ঠানে দিল্লির বুকে ট্যাবলো পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। যেখানে রাজ্যের তরফে সুভাষচন্দ্রের জীবন ও স্বাধীনতা সংগ্রামে তাঁর ভূমিকা তুলে ধরা হবে ট্যাবলোতে। কিন্তু আশ্চর্যজনকভাবে বাংলার পাঠানো ট্যাবলো বাতিল করেছে মোদি সরকার। যে ঘটনায় দিল্লির বিরুদ্ধে রাজ্যের মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। নেতাজি এবং আইএনএ নিয়ে প্রস্তাবিত ট্যাবলো বাতিলের সিদ্ধান্ত দুর্ভাগ্যজনক বলেই মনে করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কোনও কারণ না দেখিয়ে কেন্দ্রের এই ট্যাবলো বাতিলের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেছে মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কলম। প্রধানমন্ত্রীকে পাঠানো চিঠিতে মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তে আমি অত্যন্ত ব্যথিত। রাজ্যের মানুষ ব্যথিত ও মর্মাহত। কোনও কারণ ছাড়াই কেন্দ্রীয় সরকার বাংলার ট্যাবলো বাতিল করেছে। ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনে বাংলার অবদান অনস্বীকার্য। বাংলার স্বাধীনতা সংগ্রামীরা দেশের জন্য সামনে থেকে লড়াই করেছেন। তাই রাজ্যের সকল বাসিন্দা শোকাহত।
দেশের জন্য নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসু, দেশবন্ধু চিত্তরঞ্জন দাশ, মহাত্মা গান্ধী, বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, স্বামী বিবেকানন্দ, অরবিন্দ, মাতঙ্গিনী হাজরা, কাজী নজরুল ইসলাম, বিরসা মুন্ডা, রমেশচন্দ্র দত্তের অবদানের কথা বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। যা উঠে এসেছে মমতার চিঠিতে। এছাড়াও মমতার চিঠিতে রয়েছে ক্ষুদিরাম বসু, বাঘাযতীন, মাস্টারদা সূর্য সেন প্রমুখ বরেণ্য সংগ্রামীদের কথা। তিনি উল্লেখ করেছেন, ঋষি বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় জাতীয়তাবাদের মন্ত্র বন্দেমাতরম লিখেছিলেন। পরে যা জাতীয় সঙ্গীত হয়। সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় তৈরি করেছিলেন ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন।
ফলে দেশের স্বাধীনতায় বাংলার ভূমিকা যে অগ্রগণ্য সেটাই বোঝাতে চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই তিনি মনে করেন, ট্যাবলো বাতিল কার্যত বাংলার প্রতি অপমান এবং ইতিহাসকে অস্বীকার করা। সেইসঙ্গে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের অপমান।
তাই প্রধানমন্ত্রীর কাছে তিনি আবেদন করেছেন, বাংলার ট্যাবলো বাতিলের সিদ্ধান্ত কেন্দ্র যেন পুনর্বিবেচনা করে। বিশেষ করে বাংলার মানুষ কষ্ট পেয়েছেন এটাই উপলব্ধি করেছেন মমতা। তাই তাঁর আবেদন কেন্দ্রের কাছে। কিন্তু কেন্দ্র যদি এই সিদ্ধান্তেই অনড় থাকে তাহলে বরেণ্য মনীষীদের খাটো করা হবে বলে মনে করেন মুখ্যমন্ত্রী।
ইতিমধ্যে এই ট্যাবলো বাতিল নিয়ে দেশজুড়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেছেন, সংস্কৃতি-ঐতিহ্য ইতিহাসকে তুলে ধরার সুযোগ পাচ্ছে অন্য রাজ্য। অথচ বাংলাকে বঞ্চনা করেই চলেছে কেন্দ্র। অ-বিজেপি রাজ্যগুলির প্রতি কেন্দ্রের এত বঞ্চনা কেন? বাংলাকে প্রাপ্য অর্থ দিচ্ছে না, পর্যাপ্ত ভ্যাকসিন পাঠাচ্ছে না, আর এবার ট্যাবলো বাতিল করে দিল, যা দুর্ভাগ্যজনক। পাল্টা রাজ্য বিজেপির মুখপাত্র শমীক ভট্টাচার্য বলেছেন, কোনও টেকনিক্যাল কারণে হয়তো বাতিল হয়েছে ট্যাবলো। প্রধানমন্ত্রীকে মুখ্যমন্ত্রীর চিঠি পাঠানো প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত। আশা রাখি, সমস্যার সমাধান হবে। 

17th     January,   2022
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ