বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

রাজ্য সরকারের লাগাতার চাপ,
৫ কোটি শ্রমদিবস বাড়াল কেন্দ্র

সঞ্জয় গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: ১০০ দিনের কাজের প্রকল্পে শ্রমদিবস তৈরিতে কেন্দ্রীয় সরকারের দেওয়া লক্ষ্যমাত্রা মাত্র সাড়ে ছ’মাসেই অতিক্রম করেছে বাংলা। বর্তমান আর্থিক বছরে কেন্দ্র শ্রমদিবস তৈরির লক্ষ্যমাত্রা দিয়েছিল ২২ কোটি। ১৮ অক্টোবর সেই লক্ষমাত্রা ছুঁয়ে ফেলে রাজ্য। এরপর আরও শ্রমদিবস বা লেবার বাজেট বাড়ানোর জন্য রাজ্য পঞ্চায়েত দপ্তর থেকে কেন্দ্রীয় গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রককে দফায় দফায় চিঠি লেখা হয়। শেষে একমাস পরে সেই বাজেট বাড়িয়ে করা হল ২৭ কোটি। অর্থাৎ এখনও পর্যন্ত ৫ কোটি শ্রমদিবস বাড়াল কেন্দ্র। 
সোমবার পর্যন্ত শ্রমদিবস তৈরি হয়েছে ২৫ কোটি ১৮ লক্ষ ৭ হাজার। রাজ্যে যেভাবে কাজের গতি চলছে, তাতে আর্থিক বছর শেষ হওয়ার আগেই ২৭ কোটির লক্ষ্যমাত্রা পূরণ হয়ে যাবে। আবারও বাড়াতে হবে শ্রমদিবস। গত আর্থিক বছরে যা ছিল ৪১ কোটি। 
তবে ১০০ দিনের কাজে নতুন নতুন দিগন্ত খোলার উপরে জোর দিচ্ছে পঞ্চায়েত দপ্তর। ইতিমধ্যে নতুন পঞ্চায়েতমন্ত্রী পুলক রায় ১০০ দিনের কাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত অফিসার-সহ দপ্তরের কর্তাব্যক্তিদের সঙ্গে বৈঠকে এ বিষয়ে আলোচনা করেছেন। সেখানে তিনি চিরাচরিত কাজ থেকে বেরিয়ে আসার উপরে জোর দিয়েছেন। আগে ১০০ দিনের কাজ মানে রাস্তা তৈরি, পুকুর খনন, সেচখাল কাটা, সবুজায়নের কাজ হতো। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে আরও নতুন নতুন কাজ খুঁজছে পঞ্চায়েত দপ্তর। যাতে আরও বেশি সংখ্যক মানুষকে ১০০ দিনের কাজের সঙ্গে যুক্ত করা যায়।
বর্তমানে রাজ্যে ৯৪ লক্ষ ৯ হাজার মানুষ ১০০ দিনের কাজে যুক্ত রয়েছেন। এখনও পর্যন্ত বর্তমান আর্থিক বছরে এই প্রকল্পে খরচ হয়েছে ৮ হাজার ৫৫৩ কোটি ২৪ লক্ষ ৪৬ হাজার টাকা। ১০০ দিনের কাজের সঙ্গে যুক্ত শ্রমিকরা দৈনিক মাথাপিছু ২০২ টাকা পান। লকডাউনের সময় গ্রামীণ অর্থনীতি সচল থাকার অন্যতম মাধ্যম ছিল ১০০ দিনের কাজ। উম-পুন, যশ প্রভৃতি বিপর্যয়ের সময়েও এই প্রকল্পে যুক্ত শ্রমিকদের কাজে লাগানো হয়েছিল। গ্রামের মানুষের অন্যতম আয় ছিল ১০০ দিনের কাজ। কিন্তু রাজ্যের কাজের গতি দেখে কেন্দ্রীয় সরকারের সন্দেহ দেখা দেওয়ায় দফায় দফায় কেন্দ্রীয় টিম পাঠায়। তারা কিছু ক্ষেত্রে অসঙ্গতি ধরলেও বড়সড় ভুল কিছু পায়নি। 
উল্টে কেন্দ্রীয় সরকারের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ করে এই প্রকল্পে জোরকদমে এগিয়ে চলেছে বাংলা। যেখানে অন্যসব রাজ্যকে পিছনে ফেলে দিয়েছে। এবার কাজের গুণগত পরিবর্তনের উপর জোর দিয়েছে পঞ্চায়েত দপ্তর। কী করে আরও উন্নত মানের কাজ করা যায়, তা নিয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু হয়েছে ওই দপ্তরে। ১০০ দিনের প্রকল্পে বৈচিত্র্য এবং বিভিন্ন দপ্তরের কাজে সমন্বয় আনতে চান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। -ফাইল চিত্র

2nd     December,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021