বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

বাংলা সীমান্তে বিএসএফের চৌহদ্দি বৃদ্ধি
রাজ্য পুলিসের সঙ্গে সংঘাতের শঙ্কা, ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: পাকিস্তান লাগোয়া পাঞ্জাব এবং বাংলাদেশ লাগোয়া পশ্চিমবঙ্গ ও অসমে বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্সের (বিএসএফ) ‘অপারেশনাল’ ক্ষমতার চৌহদ্দি বাড়িয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। তা নিয়ে দেশজুড়ে শুরু হয়েছে তুমুল বিতর্ক। গত সোমবার (১১ অক্টোবর) একটি গেজেট নোটিফিকেশন জারি করে কেন্দ্র। তাতেই বিএসএফের ‘ক্ষমতা’ বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করা হয়েছে। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, এখন থেকে এই তিন রাজ্যে সীমান্ত থেকে মূল ভূখণ্ডের ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত এলাকায় অপারেশনাল কাজকর্ম অর্থাৎ সার্চ, সিজার এবং অ্যারেস্ট করতে পারবে বিএসএফ। আগে এই চৌহদ্দি ছিল মাত্র ১৫ কিলোমিটার। আর গেরুয়া শিবিরের ‘পোস্টার স্টেট’ গুজরাতে বিএসএফের অপারেশনাল কাজের পরিধি ৮০ থেকে কমিয়ে ৫০ কিলোমিটার করা হয়েছে। এই তিন রাজ্যে অপারেশনাল কাজকর্মের চৌহদ্দি বেড়ে যাওয়ায় সীমান্তবর্তী এলাকার বাসিন্দা এবং সংশ্লিষ্ট রাজ্য পুলিসের সঙ্গে বিএসএফের সংঘাত প্রায় অনিবার্য হয়ে পড়বে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল। 
এ রাজ্যের সঙ্গে বাংলাদেশের সীমানা রয়েছে ২২১৭ কিলোমিটার। কোচবিহার, জলপাইগুড়ি, দুই দিনাজপুর, মালদহ, মুর্শিদাবাদ, নদীয়া এবং উত্তর ২৪ পরগনার বেশ কিছু অংশে সাধারণ মানুষ বিএসএফের বিরুদ্ধে জোরজুলুম এবং অত্যাচারের অভিযোগ করে আসছেন। অপারেশনাল কাজকর্মের চৌহদ্দি বেড়ে যাওয়ায় স্থানীয়দের সঙ্গে বিএসএফের সংঘাত আরও বাড়বে বলেই আশঙ্কা সবপক্ষের। ফলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এই সিদ্ধান্ত ঘিরে শুরু হয়েছে প্রবল বিতর্ক। বিষয়টি নিয়ে ঘনিষ্ঠ মহলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর কথায়, নানা এজেন্সির মতোই এবার বিএসএফের সাহায্যে রাজ্যের অধিকার খর্ব করতে চাইছে বিজেপি সরকার। যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোয় আঘাত করা হচ্ছে। এই সিদ্ধান্ত অনৈতিক এবং অসাংবিধানিক। রাজ্যের শাসকদল তৃণমূলের পক্ষ থেকেও এই বিষয়ে কড়া প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করা হয়েছে। প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেতা যশবন্ত সিনহা টুইটে লিখেছেন, ‘দিল্লিতে ভয়ঙ্কর দু’টি লোক রাজত্ব করছে ইডি, আইটি, সিবিআই, এনআইএ, এনসিবি সহ বিভিন্ন এজেন্সির সাহায্যে। সেই তালিকায় এবার বিএসএফকে অন্তর্ভুক্ত করা হল। যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো নরকে যাক!’ রাজ্যের অধিকার খর্ব করার এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরিও। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এই সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছেন কংগ্রেসশাসিত পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী চরণজিৎ সিং চান্নি। বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছেন এনসিপি প্রধান শারদ পাওয়ার।  
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক সূত্রে জানা গিয়েছে বিএসএফ অ্যাক্ট, ১৯৬৮’এর ১৩৯ ধারা অনুযায়ী, অপারেশনাল কাজকর্মের চৌহদ্দির সীমানা বাড়ানোর ক্ষমতা রয়েছে সীমান্তরক্ষী বাহিনীর। এই ধারা ২০১৪ সালে শেষবার সংশোধন করা হয়েছিল। সেখানে বিভিন্ন রাজ্যের ক্ষেত্রে পরিধি ভিন্ন ছিল। তা ‘ইউনিফর্ম’ করার জন্যই এবারের সংশোধনী। গোরু, মাদক, জাল নোট পাচার এবং অনুপ্রবেশ রোধে এই সংশোধনী সহায়ক হবে। পাশাপাশি এও জানা গিয়েছে, আন্তর্জাতিক সীমান্ত পেরিয়ে পাঞ্জাবে ড্রোন ঢুকে পড়ার একাধিক ঘটনা ঘটেছে। সেগুলির পুঙ্খানুপুঙ্খ তদন্তে যাতে ব্যাঘাত না ঘটে, বিএসএফের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে সেই পথ প্রশস্ত করা হয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে, বাংলায় সেই ঘটনা না ঘটলেও একই নিয়ম কেন প্রযোজ্য হল?

17th     October,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021