বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

পিস্তল উঁচিয়ে দিলীপের রক্ষীদের তাণ্ডব
শেষ দিনের প্রচারে রণক্ষেত্র
ভবানীপুর , গুরুতর জখম ২

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ঘড়ির কাঁটা এগারোটা ছুঁই ছুঁই। ভবানীপুরের যদুবাবুর বাজারে তখন প্রচারে আসা বিজেপি নেতা দিলীপ ঘোষকে ঘিরে জটলা। চলছে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান। জবাবে ‘জয় বাংলা’ ধ্বনি উঠতেও দেরি হয়নি। তৃণমূল-বিজেপির স্লোগান-যুদ্ধ দেখতে ততক্ষণে এগিয়ে এসেছেন স্থানীয়রা। আর সুযোগ বুঝে তাঁরাও সরব রান্নার গ্যাস, পেট্রল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে। বেগতিক বুঝে হুঙ্কার ছাড়লেন বঙ্গ বিজেপির সদ্য প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি, ‘গলায় পা তুলে দেব।’ ব্যস, স্থানীয়দের ক্ষোভের আগুনে যেন ঘি পড়ল! প্রথমে তীব্র প্রতিবাদ, ধীরে ধীরে তা রূপ নেয় ধস্তাধস্তির। পরিস্থিতি খারাপ বুঝে প্রথমে দিলীপবাবুকে ঘিরে বেষ্টনী বানান রক্ষীরা। আর তারপরই বিক্ষোভরত সাধারণ মানুষের দিকে লোডেড পিস্তল তাক করে এগিয়ে যান সেই রক্ষীদের একজন। ঘটনায় দু’পক্ষের একজন করে সমর্থক গুরুতর জখম হন। তাঁরা বর্তমানে এসএসকেএম হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। উপনির্বাচনের প্রচার পর্বের শেষ দিনে এই ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠল গোটা ভবানীপুর বিধানসভা। অবস্থা এতটাই অন্য চেহারা নিল যে, হস্তক্ষেপ করতে বাধ্য হল খোদ নির্বাচন কমিশন। চেয়ে পাঠানো হল রিপোর্ট। ভোটের ৪৮ ঘণ্টা আগে এই ঘটনায় উদ্বেগ রাজ্যের শাসক দলের অন্দরেও। কর্মীদের মাথা ঠান্ডা রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। কোনও অবস্থাতেই বিজেপির প্ররোচনায় পা নয়—স্পষ্ট বার্তা তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্বের।
ভবানীপুরে উপনির্বাচন বৃহস্পতিবার। সোমবারই ছিল প্রচারের শেষ দিন। ‘ঘরের মেয়ে’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিপুল ভোটে জয়ী করতে টানা প্রচারে খামতি রাখেনি তৃণমূল। অন্যদিকে, বিজেপি এদিন সকাল থেকে ভবানীপুরের আটটি ওয়ার্ডে একযোগে ৮০টি কর্মসূচি নিয়েছিল। যদুবাবুর বাজারে প্রচারে যান বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ এবং দলের সাংসদ অর্জুন সিং। পুরসভার একটি টিকাকরণ কেন্দ্রে তাঁরা প্রবেশ করেন। সেখানে হাজির ছিলেন কয়েকজন তৃণমূলের কর্মী  ছিলেন। তাঁরাই প্রথমে দুই বিজেপি নেতার সামনে ‘গো ব্যাক’ স্লোগান তোলেন। তারপরই শুরু হয় ‘জয় বাংলা’ বনাম ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান-যুদ্ধ। দিলীপ ঘোষকে ঘিরে ধরে শুরু হয় সাধারণ মানুষের বিক্ষোভও। তা দেখেই এগিয়ে এসে হুঙ্কার দেন দিলীপবাবু। তাতেই পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে।
ছবিতে দেখা গিয়েছে, ধস্তাধস্তির মধ্যে কার্যত গুলি চালানোর মতো পরিস্থিতি তৈরি করেছেন দিলীপবাবুর এক নিরাপত্তারক্ষী। আর এই ঘটনা তোলপাড় ফেলে দেয় ভবানীপুরে। বিধানসভা নির্বাচনে শীতলকুচির ঘটনা এখনও রাজ্যবাসীর মন থেকে মুছে যায়নি। সেখানে কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে প্রাণ গিয়েছিল সাধারণ মানুষের। সেই প্রসঙ্গ টেনেই রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের প্রতিক্রিয়া, অশান্তি তৈরি করতে চাইছে বিজেপি। সাধারণ মানুষের দিকে প্রকাশ্যে পিস্তল তাক করার ছবি তুলে ধরে সরব হয় তৃণমূল। দিলীপ ঘোষের অবশ্য বক্তব্য, ‘প্রথম দিন থেকে আমাদের আটকানো হচ্ছে। আজ আমাকেও আটকানো হয়। তাই নিরাপত্তারক্ষীরা বন্দুক বের করেন।’- নিজস্ব চিত্র

28th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021