বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

৭ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ শীঘ্র
অন্তর্ভুক্ত বাতিল ৩১৭৯ পদও, সিদ্ধান্ত রাজ্য মন্ত্রিসভার

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: প্রায় চার হাজার শূন্যপদে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ হতে চলেছে শীঘ্রই। সোমবার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য মন্ত্রিসভা। প্রকৃত শূন্যপদের সংখ্যা ৩ হাজার ৯২৫টি। পাশাপাশি, বাম আমলে দুর্নীতির অভিযোগে বাতিল হওয়া নিয়োগও নতুন করে শুরু করছে রাজ্য সরকার। সে জন্য ৩ হাজার ১৭৯টি শূন্যপদ সৃষ্টির অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তাঁদের নিয়োগ করা হবে মালদহ এবং উত্তর ২৪ পরগনায়। সোমবার বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। ফলে সব মিলিয়ে সাত হাজারেরও বেশি শূন্যপদে দ্রুত শিক্ষক নিয়োগ হতে চলেছে।
এ বছর ৩১ জানুয়ারি প্রাথমিকের টেট হয়। সেই ফলও দ্রুত প্রকাশিত হতে চলেছে। পুজোর পর পরই সেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ হবে বলে আশা করছে ওয়াকিবহাল মহল। তার জন্যই ৩ হাজার ৯২৫টি শূন্যপদ তৈরি করা হয়েছে বলে বিকাশ ভবন সূত্রে খবর। তবে ২০১৪ সালের টেট উত্তীর্ণ এবং প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের বেছে নিয়ে ইতিমধ্যেই চাকরি দেওয়া হয়ে গিয়েছে। স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী এই নির্দেশ দিয়েছিলেন। আর এবার নিয়োগ হতে চলেছে বাকি শূন্যপদে।
২০০৯ সালে স্বজনপোষণের অভিযোগে মালদহ, উত্তর ২৪ পরগনা, দক্ষিণ ২৪ পরগনা, হাওড়া নদীয়া সহ বেশ কয়েকটি জেলার প্রাথমিক শিক্ষকের প্যানেল বাতিল করেছিল আদালত। তৃণমূল সরকার ধাপে ধাপে এই জেলাগুলিতে নিয়োগ করলেও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, মালদহ এবং উত্তর ২৪ পরগনায় নিয়োগ বাকি থেকে যায়। তার প্রধান কারণ ছিল আইনি জটিলতা। নিয়োগের পক্ষে এবং বিপক্ষে হাইকোর্টে পৃথক মামলা হয়। জানুয়ারিতে আদালত নির্দেশ দেয়, মালদহ এবং উত্তর ২৪ পরগনা জেলায় দ্রুত নিয়োগ করতে হবে। বেঁধে দেওয়া হয় ১৫ দিনের সময়সীমা। আরও বলা হয়, শূন্যপদ না থাকলে তা তৈরি করতে হবে। সেই মর্মে জারি হয় নির্দেশ। তারপরও অবশ্য বিভিন্ন কারণে আইনি এবং অন্যান্য জটিলতায় নিয়োগ করা সম্ভব হয়নি। নির্বাচন, করোনার বাড়াবাড়ি প্রভৃতির পাশাপাশি অন্তরায় হয়ে দাঁড়ায় জেলাগুলিতে পদের অভাব। সেই নতুন পদই দু’টি জেলায় তৈরি করা হয়েছে। আর তাতে চাকরিপ্রার্থীরা অনেকটাই স্বস্তিতে। বহু প্রার্থী মালদহের জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের দপ্তরের বাইরে জমায়েত হয়ে স্লোগানও দেন। এরপরও অবশ্য দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার প্রার্থীদের অপেক্ষা মিটল না। পশ্চিমবঙ্গ তৃণমূল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির রাজ্য সভাপতি অশোক রুদ্র বলেন, ‘এই নিয়োগের প্যানেল বাতিল হয়েছিল ২০০৯ সালে। তখন ছিল বাম সরকার। তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পরে নতুন নিয়োগ যেমন করেছে, তেমনই বাম আমলের দায় নিয়ে এই প্যানেলগুলিতেও নিয়োগের জন্য পদক্ষেপও হয়েছে। সরকারের এই ঘোষণায় আমরা খুশি। খুব তাড়াতাড়ি অনেক যোগ্য বেকার প্রার্থী চাকরি পাবেন।’

14th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021