বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ড: ঋণ
মিলবে সমবায় ব্যাঙ্ক থেকে
প্রফেশনাল কোর্সের আবেদনকারীদের অগ্রাধিকার

নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের ঋণ আপাতত সমবায় ব্যাঙ্কের মাধ্যমে দেওয়া হবে বলে ঠিক হয়েছে। সেক্ষেত্রে যে সব আবেদন অন্যান্য ব্যাঙ্কে জমা পড়েছে, সেগুলি সেখান থেকে বিভিন্ন জেলার সমবায় ব্যাঙ্কগুলিতে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। এই প্রক্রিয়া ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। এছাড়াও ঋণ অনুমোদনের ক্ষেত্রে কাদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে, তা চূড়ান্ত করে ফেলেছে উচ্চ শিক্ষা দপ্তর। এখন ছাত্রছাত্রীরা ক্রেডিট কার্ড হাতে পাওয়ার অপেক্ষায়।  সূচনালগ্ন থেকেই এই প্রকল্পের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে। জমা পড়ে গিয়েছে প্রায় ৫০ হাজার আবেদন। ভিন রাজ্যে পড়তে যাওয়া পড়ুয়াদের  মধ্যে কর্ণাটক থেকে এসেছে সব চেয়ে বেশি আবেদন। এই সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়েছে। টাকার হিসেবে দেখলে ঋণের অঙ্ক ১৫০০ কোটি ছাড়িয়ে যাবে। পড়ুয়ারা বেশিরভাগই স্টুডেন্টস ক্রেডিট কার্ডের জন্য রাষ্ট্রায়ত্ত এবং বেসরকারি ব্যাঙ্কে আবেদন জমা করেছে। কিছু আবেদন আবার সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান বা উচ্চ শিক্ষা দপ্তরে যাচাইয়ের জন্য পড়ে রয়েছে। তবে প্রকল্প চালুর পর প্রায় মাসখানেক হয়ে গেল, অথচ একজন পড়ুয়ারও ঋণের আবেদন এখনও মঞ্জুর হয়নি।
কোন ব্যাঙ্কের মাধ্যমে এই ঋণ দেওয়া হবে, তা নিয়ে নতুন করে সিদ্ধান্ত হয়েছে। সরকার ঠিক করেছে, এই ঋণ দেওয়া হবে শুধু স্টেট কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্ক থেকে। যেসব পড়ুয়া প্রফেশনাল কোর্সে ভর্তি হতে চেয়ে এই ক্রেডিট কার্ডের আবেদন করেছেন, তাঁদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে বলে ঠিক হয়েছে। এর মধ্যে এমবিএ, ইঞ্জিনিয়ারিং, আইন ইত্যাদি কোর্স রয়েছে। দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, আবেদনকারীদের একবারে অনুমোদন না দিয়ে ধাপে ধাপে তা দেওয়া হবে।  এই ধরনের প্রফেশনাল কোর্সের জন্য প্রায় ২৫ হাজার আবেদন জমা পড়েছে। তার মধ্যে বেশিরভাগই জমা হয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত এবং বেসরকারি ব্যাঙ্কে। সূত্রের খবর, প্রায় ২০ হাজারের মতো আবেদন জেলার সমবায় ব্যাঙ্কগুলিতে স্থানান্তর করা হবে। কেন এই সিদ্ধান্ত? দপ্তরের কর্তাদের সাফাই, কিছু জটিলতার কারণে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাছাড়া এটি রাজ্যের প্রকল্প বলে সরকার সমবায় ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ দেওয়ার পক্ষপাতী। জানা গিয়েছে, অন্যান্য ব্যাঙ্কের সঙ্গে সরকারের এনিয়ে কোনও চুক্তি সই হয়নি। এদিকে, পড়ুয়াদের কাছে প্রথমে সংশ্লিষ্ট রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক থেকে মেসেজ এলেও পরে ফের নতুন করে মেসেজ এসেছে। তাতে বলা হয়েছে, ঋণের আবেদন কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কে ট্রান্সফার করা হয়েছে। হঠাৎ ব্যাঙ্ক বদলের ফলে চিন্তায় পড়েছেন অনেকেই। এই দুঃশ্চিন্তা কাটাতে আশ্বাস দিয়েছে দপ্তর। মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে জটিলতা কাটিয়ে ঋণ অনুমোদনের বিষয়ে আলোচনা করেছেন। তাঁদের তরফে এবিষয়ে আশ্বাসও এসেছে বলে খবর।

31st     July,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021