বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

উচ্চ মাধ্যমিকের প্রথম
দশে ৮৬, শীর্ষে রুমানা
পাশ ৯৭.৬৯ শতাংশ, সর্ব্বোচ্চ ৪৯৯

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: প্রকাশ হল উচ্চ মাধ্যমিকের ফল। করোনা পর্বে সংক্রমণের আতঙ্কে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব হয়নি। কিন্তু সময়ও যে থমকে নেই। তাই মাধ্যমিক, একাদশ এবং অভ্যন্তরীণ মূল্যায়নের ফর্মুলায় ছাত্রছাত্রীদের ভাগ্য এদিন নির্ধারিত হল। আর উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, ৫০০ নম্বরের মধ্যে ৪৯৯ পেয়ে শীর্ষস্থান অর্জন করলেন মুর্শিদাবাদের কান্দির রুমানা সুলতানা। সংখ্যালঘু ছাত্রী হিসেবে রুমানার এই ফল উচ্চ মাধ্যমিকের ইতিহাসে প্রথম। শুধু তাই নয়, মাধ্যমিকে যেখানে সর্বোচ্চ নম্বর ৭৯ জন পেয়েছে, সেখানে রুমানা এককভাবে এই কৃতিত্বের অধিকারী। তবে, এবার পরীক্ষা না হলেও তাঁর এই নজির কোনওভাবে খাটো করা যায় না। কারণ, মুর্শিদাবাদের আগাগোড়া অতি মেধাবী এই ছাত্রীই মাধ্যমিকে পঞ্চম স্থান অধিকার করেছিল। এদিন ফলপ্রকাশের পরই তাঁকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ট্যুইট করে এলাকার মেয়ে রুমানাকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন কংগ্রেস এমপি অধীররঞ্জন চৌধুরীও। 
সার্বিকভাবে উচ্চ মাধ্যমিকে পাশের হার এবার ৯৭.৬৯ শতাংশ। মাধ্যমিকের মতো ১০০ শতাংশ পাশের নজির এক্ষেত্রে হয়নি। সংসদের তথ্য বলছে, ৪৯৯ থেকে ৪৯০ পর্যন্ত মোট ৮৬ জন ছাত্রছাত্রী রয়েছেন। তার মধ্যে ছাত্রীর সংখ্যাই ৩২ জন। সংসদ সভাপতি মহুয়া দাস সাংবাদিক বৈঠকে কোনও মেধা তালিকা প্রকাশ করেননি। তবে, পরবর্তীতে তা ভিন্ন সূত্রে ছড়িয়ে পড়ে। ৪৯৮ পেয়ে দ্বিতীয় স্থানেও রয়েছে সোহেল মল্লিক নামে বারাসতের এক সংখ্যালঘু ছাত্র। সার্বিকভাবে সংখ্যালঘুদের পাশের হারও (৯৭.৪৬ শতাংশ) সার্বিক হারের কাছাকাছি। এ বছর মোট নথিভুক্ত পরীক্ষার্থী ছিলেন ৮ লক্ষ ১৯ হাজার ২০২ জন। পাশ করেছেন ৭ লক্ষ ৯৯ হাজার ৮৮ জন। পাশের হারে ছাত্র এবং ছাত্রীরা প্রায় সমান। সব জেলাতেই পাশের হার ৯০ শতাংশ বা তার বেশি। তবে পাশের হারে প্রথম তিনে রয়েছে যথাক্রমে বীরভূম (৯৮.৫৬ শতাংশ), আলিপুরদুয়ার (৯৮.৪৪ শতাংশ) এবং মালদহ (৯৮.৩২ শতাংশ) জেলা। এটাও বেশ চমকপ্রদ তথ্য। পাশের হারে কলকাতা (৯৬.৮১ শতাংশ) রয়েছে ২১তম স্থানে। কলকাতার নীচে রয়েছে শুধুমাত্র ঝাড়গ্রাম এবং কালিম্পং। গোটা রাজ্যে কলা বিভাগে ৯৭.৩৯ শতাংশ, বিজ্ঞানে ৯৯.২৮ শতাংশ এবং বাণিজ্য বিভাগে ৯৯.০৮ শতাংশ ছাত্রছাত্রী পাশ করেছেন।
এ বছর পরীক্ষা না হওয়ায় মাধ্যমিকে প্রাপ্ত নম্বর, একাদশের বার্ষিক পরীক্ষার প্রাপ্ত নম্বর এবং অভ্যন্তরীণ মূল্যায়নের নম্বরে পৃথক পৃথকভাবে গুরুত্ব (ওয়েটেজ) দিয়ে তৈরি করা হয়েছে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল। তাই মাধ্যমিক বা একাদশে যেমন ফল হয়েছে, তারই প্রতিফলন দেখা গিয়েছে উচ্চ মাধ্যমিকেও। তবে, ছাত্রছাত্রীদের একটা বড় অংশের মধ্যে ইতিমধ্যেই অসন্তোষ দেখা দিয়েছে। পাশের হার ব্যাপক বাড়লেও বেশি নম্বর পাওয়া পরীক্ষার্থীর সংখ্যা অনেকটাই কমেছে। এক্ষেত্রে পরবর্তী কালে পরীক্ষায় বসতে চাওয়া ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা অনেকটাই বেশি হবে বলে অনেকে মনে করছেন।
মেয়েকে মিষ্টিমুখ করাচ্ছেন রুমানা সুলতানার বাবা। -নিজস্ব চিত্র

23rd     July,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021