বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

কমিশনের মদত ছাড়া ৩০
পেরত না বিজেপি: মমতা

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নির্বাচন কমিশন ‘রিগিং’ ঠেকাবে। এটাই দেখে আসছে মানুষ। কিন্তু এখন পুরো উল্টো চিত্র। নির্বাচন কমিশনের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় ’রিগিং’ হয়েছে। কমিশনের সাহায্য না পেলে বিজেপি ৩০টা আসনও পেত না। শনিবার বিধানসভায় দাঁড়িয়ে প্রথম বক্তৃতাতেই বিজেপি-কমিশনকে তীব্র আক্রমণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আট দফায় ভোট নিয়ে তিনি শুরু থেকেই সরব ছিলেন। ‌ভোটপর্বে একের পর এক ঘটনার জেরে প্রশ্ন তুলেছিলেন কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়ে।‌ আর তৃতীয়বারের জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর এদিন আরও আক্রমণাত্মক ছিলেন মমতা। দেশের প্রাক্তন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার টি এন শেষনের নাম উল্লেখ করে তিনি নির্বাচন কমিশনকে একহাত নিয়েছেন। স্পষ্ট বলেছেন, ‘এটা আমাদের কাছে দুঃখের, লজ্জারও।’
মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে এদিন তৃতীয়বারের জন্য রাজ্য বিধানসভার স্পিকার নির্বাচিত হন বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিনের স্পিকার নির্বাচন বয়কট করার কথা আগেই জানিয়েছিল বিজেপি। ছিলেন শুধু নির্দল বিধায়ক নীরজ জিম্বা এবং আইএসএফের নৌশাদ সিদ্দিকি। গত ৫ মে মুখ্যমন্ত্রীর শপথও বয়কট করেছিল বিজেপি। ‌তাই সংক্ষিপ্ত অধিবেশনে বক্তব্য রাখতে উঠে বিজেপিকে চাঁচাছোলা ভাষায় কটাক্ষ করেন মমতা। স্পষ্ট বলেন, অনেক চক্রান্ত হয়েছে। চিরকুটে লিখে অফিসারদের বদলি করেছে কমিশন। জেলাশাসক, পুলিস সুপারদের বদলির সময় রাজ্যের কাছ থেকে কোনও প্যানেল চাওয়া হয়নি। বিজেপি অফিস থেকে যা বলা হয়েছে, কমিশন তাই করেছে। ‌কমিশনের দয়ায় জিতে এসেছে ওরা।
বক্তৃতার শুরুতে অবশ্য বেশ নরমই ছিলেন মমতা। প্রথমেই ধন্যবাদ জানান বাংলার মানুষকে। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়করা গড়ে নির্বাচিত হয়েছেন ৩১ হাজার ভোটের ব্যবধানে। যা ভারতের কোনও  বিধানসভায় হয়নি। এটা ইতিহাস, অবিশ্বাস্য ঘটনা! মানুষের সম্পূর্ণ সহযোগিতা না পেলে এমনটা হতে পারে না।’ এই রেকর্ড গড়ার নেপথ্যে যে মহিলা ভোটারদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে, সে কথা বলার অপেক্ষা রাখে না। মমতাও তা স্বীকার করেছেন। বলেছেন, ‘আমার  মাথা নত হয়ে গিয়েছে বাংলার নারী শক্তির কাছে। মা-বোনেদের এই কাজ মনে রেখে তাঁদের আরও কীভাবে সম্মানিত করা যায়, সেদিকে আমাদের সরকার নজর দেবে। নতুন প্রজন্মের প্রতিটি ভোট আমরা পেয়েছি।’
ভোট-পরবর্তী বিক্ষিপ্ত অশান্তি নিয়েও এদিন বিধানসভায় সরব ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপির উদ্দেশে বলেছেন, ‘হেরে গিয়েছেন, হারটা মেনে নিন। কিন্তু ওঁরা কিছুতেই তা মেনে নিতে পারছেন না।’ কাতর আর্জিও ছিল তাঁর গলায়, ‘দয়া করে হিংসা ছড়াবেন না। কোথাও কোনও অশান্তি সহ্য করব না। পুলিস প্রশাসন ব্যবস্থা নেবে।’ আপাতত করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলা প্রধান লক্ষ্য মমতার। কেন্দ্রের উপর চাপ বাড়াতে দ্বিধা করছেন না। তবে নির্বাচনী প্রচারে বিজেপি যে পরিমাণ টাকা খরচ করেছে, তা দিয়ে সার্বিক টিকাকরণ হয়ে যেত বলে মনে করেন তিনি।
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেচ্ছা স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়ের। ছবি: অতূণ বন্দ্যোপাধ্যায়

9th     May,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021