বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

৫০ বছর ধরে আইনি লড়াই চালানো
কর্মচ্যুত কর্মীর পক্ষে রায় হাইকের্টের

পল্লব চট্টোপাধ্যায়, কলকাতা: বেসরকারি সংস্থা থেকে অন্যান্য কর্মীদের সঙ্গে তিনিও ছাঁটাই হয়েছিলেন ১৯৭০ সালে। শ্রম আদালত থেকে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত তাঁর পক্ষে একের পর এক রায় ঘোষিত হয়েছে। কিন্তু, চাকরি বা বকেয়া পাওনা তিনি পাননি। বকেয়া আদায়ে তাঁর পরের আবেদন শ্রম আদালত খারিজ করে। যা ভুল বলে ঘোষণা করে প্রায় ৫০ বছর ধরে আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়া বলরাম বন্দ্যোপাধ্যায়ের পক্ষে রায় ঘোষণা করলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়। যাঁর বয়স এখন ৯০।   
গ্ল্যাডস্টোন লায়াল কোম্পানি ১৯৭০ সালের ২৩ নভেম্বর এক সঙ্গে ৩৩ জন কর্মীকে ছাঁটাই করে। ১৯৭৩ সালে শ্রম ট্রাইব্যুনাল সাফ জানায়, এঁদের প্রত্যেকের বকেয়া বেতনের ২৫ শতাংশ প্রাপ্য। সেইসঙ্গে পুনর্বহালেরও যোগ্য। ট্রাইব্যুনালের এই সিদ্ধান্ত কলকাতা হাইকোর্টের একক ও দুই বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ হাত দেয়নি। এমনকী, ওই সংস্থার সুপ্রিম কোর্টে করা আবেদনও খারিজ হয়। তাঁর অবসর নেওয়ার দিন ছিল ১৯৯০ সালের ৩১ ডিসেম্বর। ফলে শ্রমদপ্তরের নির্দেশমতো বকেয়া বেতনের ২৫ শতাংশ পাওয়া ছাড়াও তাঁর চাকরিতে পুনর্বহাল হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু, সংস্থাটি তাঁকে ১৭,৪৩০.৭১ টাকা দিয়ে হাত ধুয়ে ফেলে। তাঁকে চাকরিতে ফিরিয়ে নেওয়া হয়নি। তিনি চাওয়া সত্ত্বেও। যা সম্পূর্ণ বেআইনি বলে ঘোষণা করল হাইকোর্ট। 
প্রসঙ্গত, ১৯৮৪ সালের ৬ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট তাঁর পক্ষে রায় দেওয়ার ৭ বছর পরে সংস্থাটি লিকুইডেশনের পথে চলে যায়। সোজা কথায়, ওই সাত বছর ধরে সংস্থাটি দেশের সর্বোচ্চ আইনি প্রতিষ্ঠানের সিদ্ধান্ত অমান্য করেছে বলে অভিমত হাইকোর্টের। অথচ, সংস্থাটির এক অধিকর্তার দাবি মেনে কলকাতার ফার্স্ট লেবার কোর্ট ২০১৪ সালে জানায়, যেহেতু সংস্থাটি লিকুইডেশনে চলে গিয়েছে, তাই বলরামকে কত টাকা দিতে হবে, তা শ্রম আদালতের পক্ষে ঠিক করে দেওয়া সম্ভব নয়। ‌এজন্য তাঁকে সরকারি লিকুইডেটরের কাছে আবেদন করতে হবে। ট্রাইব্যুনালের এই সিদ্ধান্ত ভ্রান্ত ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট। 
উল্লেখ্য, ট্রাইব্যুনালের ওই সিদ্ধান্ত চ্যালেঞ্জ করে হওয়া মামলার জেরেই বিচারপতি তাঁর রায়ে বলেছেন, ৪১ বছর আগেই শ্রম ট্রাইব্যুনাল বলে দিয়েছিল ছাঁটাই প্রক্রিয়া সঠিক ছিল না। অন্যদিকে, তাঁর অবসরগ্রহণের তারিখের প্রায় একবছর পরে সংস্থাটি দেউলিয়া হওয়ার পথে চলে যায়। ফলে ওই লিকুইডেশনের সঙ্গে মামলাকারীর পাওনার কোনও সম্পর্কই ছিল না। তা সত্ত্বেও ট্রাইব্যুনাল ভুল পথে চলেছে। তাই ট্রাইব্যুনালের সিদ্ধান্ত খারিজ করা হল। ওই ট্রাইব্যুনালকেই এই রায় হাতে পাওয়ার ৪৫ দিনের মধ্যে বলরামের মোট পাওনার পরিমাণ নির্ধারণ করে দিতে হবে। সংস্থাটির প্রতিনিধিকে ৭ লক্ষ টাকা হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে জমা করতে হবে। ট্রাইব্যুনালের ওই হিসাব রেজিস্ট্রার জেনারেলকে পাঠাতে হবে। তিনি ওই জমা টাকা মামলাকারী অথবা তাঁর আইনসম্মত প্রতিনিধির হাতে তুলে দেবেন। তবে সংস্থার প্রতিনিধিকে এর সঙ্গে আরও এক লক্ষ টাকা মামলাকারীর হাতে তুলে দিতে হবে মামলার খরচ হিসেবে।   

16th     April,   2021

মুখ্যমন্ত্রীর ৪টি চিঠি নিয়ে মুখে কুলুপ
মমতাকে এড়িয়ে ডিএমদের সঙ্গে
কোভিড-বৈঠক ‘উদ্বিগ্ন’ মোদির

রাজ্যে রাজ্যে বাড়ছে সংক্রমণ এবং মৃত্যু। টিকা, অক্সিজেন, হাসপাতালে বেডের আকাল দেশজুড়ে। এই সঙ্কটকালে সার্বিক টিকাকরণ এবং অক্সিজেনের দাবিতে বারবার প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন একাধিক অবিজেপি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা। এদিনও ১২ জন বিরোধী নেতা মিলিতভাবে চিঠি দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদিকে। যদিও পত্রাঘাত পর্বে অন্যতম অবশ্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বিগত কয়েকদিনে নরেন্দ্র মোদিকে চারটি চিঠি পাঠিয়েছেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন অনুভব করেননি।

 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021