বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে আক্রান্তদের
অর্ধেকই তরুণ-তরুণী, উদ্বেগে রাজ্য 

বিশ্বজিৎ দাস, কলকাতা : ক্রমেই ভয়াবহ আকার নিচ্ছে কোভিড পরিস্থিতি। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না কমবয়সিরাও। ২০২১ সালের শুরু থেকেই রাজ্যে তরুণদের মধ্যে করোনার শিকার বাড়ছে। এর মধ্যে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে এল স্বাস্থ্যদপ্তরের নথিতে। তাতে দেখা যাচ্ছে, চলতি মাসের মাঝামাঝি পর্যন্ত রাজ্যে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে আক্রান্তদের প্রায় অর্ধেকই তরুণ-তরুণী। আরও স্পষ্ট করে বললে, তাদের বেশিরভাগের বয়স ২০ থেকে ৪৪ বছরের মধ্যে। অর্থাৎ, টিকাকরণের বাইরে থাকা এই বয়ঃসীমাতেই এখন সংক্রমণের বাড়বাড়ন্ত। স্বাস্থ্যদপ্তরের তথ্য বলছে, চলতি বছরের জানুয়ারিতেই এই প্রবণতা ধরা পড়েছিল। কিন্তু তখন আক্রান্তদের সংখ্যা কম থাকায় সেভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি।


এ তো শুধু পরিসংখ্যান! বাস্তব পরিস্থিতি কী সত্যিই এতটা খারাপ? উত্তরে কলকাতার অন্যতম প্রধান কোভিড হাসপাতাল বেলেঘাটা আইডির জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ডাঃ সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায় জানাচ্ছেন, পরিসংখ্যানের সঙ্গে বাস্তবের মিল অনেকটাই। আমরা কুড়ির কোঠার রোগীদের অবশ্য তেমন পাইনি। সেটা হয়তো কম বয়সের কারণে তাঁদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি বলেই। কিন্তু ৩৫ থেকে ৪৫ বছর বয়সি অসংখ্য রোগী এখানে আসছেন, ভর্তি হচ্ছেন। অনেকেরই অবস্থা আশঙ্কাজনক। বয়স্কদের সঙ্গে তাঁদের উপসর্গের কোনও প্রভেদ নেই। বুধবারই আইডিতে ৫০টি শয্যার ‘জি বি ৬’ ওয়ার্ড চালু হয়েছে। আর ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই সেই ওয়ার্ড প্রায় ভর্তি।
এই পরিস্থিতিতে ৪৫ বছরের নীচেও টিকাকরণ চালু করার দাবি জোরালো হচ্ছে। দেশের মোট জনসংখ্যার একটা বড় অংশই এই বয়সের মধ্যে পড়েন। আইসিএমআরের মহামারীবিদ্যার প্রধান ডাঃ সমীরণ পাণ্ডা অবশ্য জানিয়েছেন, যতদিন না ৪৫ বছরের ঊর্ধ্বে নাগরিকদের টিকাকরণ ৮০ শতাংশ সম্পূর্ণ হচ্ছে, ততদিন হার্ড ইমিউনিটি তৈরি হবে না। টিকাকরণ যে গতিতে চলছে, তাতে এ কাজে অন্তত চার মাস লাগবে। এই সময়ে ৪৫ বছরের নীচে ভ্যাকসিন দেওয়া সম্ভব নয়।
ফলে ৪৫ অনূর্ধ্বদের মধ্যে উদ্বেগ তৈরি হয়েছে। এমনই একজন পেশায় স্বাস্থ্যকর্মী তীর্থদীপ দাস। তিনি অবশ্য স্বাস্থ্যদপ্তরের কাজে যুক্ত থাকার জন্য ভ্যাকসিন পেয়েছেন। তবু নিশ্চিন্ত নন। বলছেন, আমার কপাল ভালো। কিন্তু স্ত্রী-সন্তান! তাদের কী হবে? 

16th     April,   2021

মুখ্যমন্ত্রীর ৪টি চিঠি নিয়ে মুখে কুলুপ
মমতাকে এড়িয়ে ডিএমদের সঙ্গে
কোভিড-বৈঠক ‘উদ্বিগ্ন’ মোদির

রাজ্যে রাজ্যে বাড়ছে সংক্রমণ এবং মৃত্যু। টিকা, অক্সিজেন, হাসপাতালে বেডের আকাল দেশজুড়ে। এই সঙ্কটকালে সার্বিক টিকাকরণ এবং অক্সিজেনের দাবিতে বারবার প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন একাধিক অবিজেপি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা। এদিনও ১২ জন বিরোধী নেতা মিলিতভাবে চিঠি দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদিকে। যদিও পত্রাঘাত পর্বে অন্যতম অবশ্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বিগত কয়েকদিনে নরেন্দ্র মোদিকে চারটি চিঠি পাঠিয়েছেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন অনুভব করেননি।

 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021