বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

সওয়া এক ঘণ্টা বাদে এসেও
মাঠ ভরাতে ব্যর্থ অমিত শাহ
বিধাননগর

 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সভার নির্ধারিত সময় ছিল বিকেল পাঁচটা। অমিত শাহ মঞ্চে পা রাখলেন সন্ধ্যা ৬টা বেজে ১৫ মিনিটে। সল্টলেকের এফ ডি ব্লকের মাঠের অর্ধেকও তখন পরিপূর্ণ হয়নি। পাক্কা সওয়া এক ঘণ্টা দেরি করেও শেষরক্ষা হল না। মাঠ ভরানোর জন্য জোগাড় করা গেল না কর্মী, সমর্থক। অর্ধেক ফাঁকা মাঠেই বক্তব্য রাখলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। 
বিজেপির প্রকাশ করা নির্ঘণ্টে বলা হয়, মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটায় বিধাননগরের প্রার্থী সব্যসাচী দত্তের সমর্থনে একটি জনসভা করবেন অমিত শাহ। সেখানে বিধাননগর সহ রাজারহাট-নিউটাউন এবং রাজারহাট-গোপালপুরের বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনেও প্রচার করবেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী। সুতরাং, তিনটি বিধানসভা কেন্দ্র থেকেই বিজেপি কর্মী-সমর্থকরা দুপুর থেকে এফ ডি ব্লকে জমায়েত শুরু করেন। তবে দেখা যায়, নির্ধারিত সময় পার হয়ে গেলেও সভাস্থল প্রায় খাঁ খাঁ করছে। বিকেল সাড়ে পাঁচটা নাগাদ রাজারহাট-গোপালপুর এবং নিউটাউন থেকে দু’টি মিছিল সভাস্থলে প্রবেশ করে। তাতে মাঠের একাংশ ভর্তি হয়। সেই দু’টি ছাড়া শাহ আসার আগে পর্যন্ত আর কোনও বড় মিছিল সভাস্থলে প্রবেশ করতে দেখা যায়নি। 
এফ ডি ব্লক পুজো কমিটির সঙ্গে কথা বলে জানা গিয়েছে, মাঠটির আয়তন প্রায় ২২ হাজার বর্গমিটার। যার মধ্যে ১২২৫ বর্গমিটার এলাকা জুড়ে পুজো মণ্ডপ তৈরি করা হয়ে থাকে। এদিনের সভায় অমিত শাহের জন্য বাঁধা মঞ্চের আয়তনও পুজো মণ্ডপ এলাকার প্রায় সমান ছিল। মঞ্চের এলাকা বাদ দিলে সাধারণ মানুষের জন্য তিনটি জোন করা হয়। ‘এ’ জোনে সংবাদমাধ্যম এবং দলীয় নেতাদের বসার ব্যবস্থা রাখা হয়। ‘বি’ জোন সংরক্ষিত রাখা হয় গেরুয়া শিবিরের কর্মী এবং সদস্যদের জন্য। ‘সি’ জোন সাধারণ মানুষের জন্য বরাদ্দ রাখা হয়। এফ ডি ব্লকের মাঠটির প্রায় অর্ধেক এলাকা জুড়ে এই ‘সি’ জোনটি তৈরি করা হয়। এদিনের সভায় সেটি প্রায় পুরোটাই ফাঁকা ছিল। বক্তৃতা শোনার লোক তো নেই-ই। বরং সেই জোনে ঘোরাফেরা করতে দেখা গিয়েছে ঘটিগরম, চা, চিপস, আইসক্রিম ব্যবসায়ীদের। তাঁদের দেখতে পেয়ে ‘বি’ জোন থেকে বেরিয়ে এসে সেখানেই গেরুয়া শিবিরের সদস্যরা চা-নোনতা খাওয়া করেন। সেখানে এক বিজেপি কর্মীর বক্তব্য, অমিত শাহের আসার কথা ছিল পাঁচটার সময়। তিনি এলেন সোওয়া এক ঘণ্টা বাদে। এত সময়ে তেষ্টা মেটাতে চা না খেলেই নয়। রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞমহলের মতে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর সভায় সল্টলেক এফ ডি ব্লকের মতো ছোট মাঠও সম্পূর্ণ ভরলো না। এটা বিজেপির পক্ষে ভালো ইঙ্গিত নয়। 

14th     April,   2021

মুখ্যমন্ত্রীর ৪টি চিঠি নিয়ে মুখে কুলুপ
মমতাকে এড়িয়ে ডিএমদের সঙ্গে
কোভিড-বৈঠক ‘উদ্বিগ্ন’ মোদির

রাজ্যে রাজ্যে বাড়ছে সংক্রমণ এবং মৃত্যু। টিকা, অক্সিজেন, হাসপাতালে বেডের আকাল দেশজুড়ে। এই সঙ্কটকালে সার্বিক টিকাকরণ এবং অক্সিজেনের দাবিতে বারবার প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন একাধিক অবিজেপি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা। এদিনও ১২ জন বিরোধী নেতা মিলিতভাবে চিঠি দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদিকে। যদিও পত্রাঘাত পর্বে অন্যতম অবশ্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বিগত কয়েকদিনে নরেন্দ্র মোদিকে চারটি চিঠি পাঠিয়েছেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন অনুভব করেননি।

 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021