বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

ভিড়ে ঠাসা জনসভায়
অধীরকে তুলোধোনা ফিরহাদের
নওদা

নিজস্ব প্রতিনিধি, বহরমপুর: অধীর চৌধুরীর সঙ্গে বিজেপির গটআপ আছে। সিবিআই সবাইকে নোটিস দিচ্ছে। কংগ্রেসের রাহুল গান্ধী বা সোনিয়া গান্ধীকেও নোটিস দিতে ছাড়েনি। কিন্তু অধীরবাবুকে সিবিআই নোটিস দেয় না। কারণ মোদির সঙ্গে যাদের সখ্য আছে তাদেরকে সিবিআই নোটিস দেয় না। মঙ্গলবার নওদার জনসভা থেকে এভাবেই কংগ্রেসের ওই নেতাকে তুলোধোনা করেন তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম। এদিন তিনি নওদার পর ডোমকলে জনসভা করেন। দু’টি সভাতেই ভিড় উপচে পড়ে। নওদায় সভামঞ্চের সামনে ছাউনি ছিল না। কড়া রোদের মধ্যেই কর্মী-সমর্থকরা ঠায় বসেছিলেন।
ফিরহাদ সাহেব অধীরবাবুকে আক্রমণ করার পাশাপাশি নির্বাচন কমিশন ও বিজেপিকে একযোগে তোপ দাগেন। তিনি বলেন, এভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখ বন্ধ করা যায় না। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মানে একটা ঝড়। এই ঝড় আটকানোর ক্ষমতা নির্বাচন কমিশন বা বিজেপির নেই। নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে বিজেপির গটআপ হয়েছে। বিজেপি নেতারা বুথে গিয়ে উস্কানি দিচ্ছে। তাই ওদের উস্কানিতে পা দেবেন না। তিনি নির্বাচন কমিশনকে আক্রমণ করে আরও বলেন, বিজেপি জানে মুর্শিদাবাদের ২২টি আসনের সবগুলিতে তৃণমূল জিতবে। সেই কারণেই ইচ্ছাকৃতভাবে রমজান মাসে এই জেলার নির্বাচন করা হয়েছে।
এদিনের সভায় তৃণমূল প্রার্থী শাহিনা মমতাজ খান, দলের জেলা সভাপতি আবু তাহের খান সহ অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন। নওদা বিধানসভা কেন্দ্র এবার জেলার বাসিন্দাদের নজরে রয়েছে। এখানে প্রার্থী হয়েছেন মুর্শিদাবাদ জেলা পরিষদের সভাধিপতি মোশারফ হোসেন মণ্ডল। তিনি নির্বাচন ঘোষণার আগে তৃণমূল ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দেন। তারপরে টিকিটও পেয়ে যান। নওদাতেই তৃণমূলের জেলা সভাপতির বাড়ি। তাঁর সঙ্গে মোশারফ হোসেনের দ্বন্দ্ব বহুদিনের। তাই এবারের নির্বাচনে জয়ী হওয়া জেলা সভাপতির কাছে প্রেস্টিজ ইস্যু হয়ে উঠেছে। ফিরহাদ হাকিম কংগ্রেস প্রার্থীর উদ্দেশে বলেন, এই জেলায় বারেবারেই মীরজাফররা ফিরে এসেছে। আমার আগে এই জেলায় যিনি আসতেন তিনি বিজেপিতে চলে গিয়েছেন। আর এখানকার কংগ্রেস প্রার্থীকে তিনি স্যাটেলাইট হিসেবে ছেড়ে গিয়েছেন। তিনি সরাসরি বিজেপিতে গেলে জিততে পারতেন না। সেই কারণে তাঁকে বিজেপি ঘনিষ্ঠ অধীরবাবুর দলে পাঠানো হয়েছে। বিজেপিকে নিয়ে আসতে কংগ্রেসের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। কংগ্রেস না চাইলে বিজেপি আসতে পারত না।
এদিন অধীরবাবুকে সবচেয়ে বেশি ফিরহাদ সাহেবের আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছিল। তিনি বলেন, অধীরবাবু দিল্লিতে গিয়ে বিজেপি নেতাদের সঙ্গে সখ্যতা করেন। লকডাউনের সময় তিনি জেলায় ছিলেন না। দিল্লিতে সংসার করছিলেন। তারপরে জেলায় ফিরে এসে বড় বড় কথা বলছেন। তাঁকে বিশ্বাস করবেন না। তবে কংগ্রেসও ফিরহাদ সাহেবকে তোপ দাগতে ছাড়েনি। কংগ্রেস নেতা মহফুজ আলম ডালিম বলেন, বিজেপির সঙ্গে সবচেয়ে বেশি লড়াই করেন অধীরবাবু। সেটা সবাই জানে। তাই উনি কী বললেন তাতে কিছুই আসে যায় না। আর লকডাউনের সময় পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য অধীরবাবু কী করেছেন তা এই জেলার বাসিন্দারা জানেন। নতুন করে কাউকে বলার দরকার নেই। 
ফিরহাদ সাহেব বলেন, নন্দীগ্রামের দিদি ৫০হাজারের বেশি ভোটে জিতে গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত যতগুলি আসনের নির্বাচন হয়েছে তার মধ্যে ৯৯টিতে তৃণমূল জিতে গিয়েছে। সেই কারণেই বিজেপি নেতারা ভুল বকছেন। মোদিকেও দিদি দিদি করতে হচ্ছে। আসলে উনি অনেক অন্যায় করেছেন। তাই দিদির নাম নিয়ে বাল্মিকী হতে চাইছেন। 

14th     April,   2021

মুখ্যমন্ত্রীর ৪টি চিঠি নিয়ে মুখে কুলুপ
মমতাকে এড়িয়ে ডিএমদের সঙ্গে
কোভিড-বৈঠক ‘উদ্বিগ্ন’ মোদির

রাজ্যে রাজ্যে বাড়ছে সংক্রমণ এবং মৃত্যু। টিকা, অক্সিজেন, হাসপাতালে বেডের আকাল দেশজুড়ে। এই সঙ্কটকালে সার্বিক টিকাকরণ এবং অক্সিজেনের দাবিতে বারবার প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন একাধিক অবিজেপি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা। এদিনও ১২ জন বিরোধী নেতা মিলিতভাবে চিঠি দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদিকে। যদিও পত্রাঘাত পর্বে অন্যতম অবশ্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বিগত কয়েকদিনে নরেন্দ্র মোদিকে চারটি চিঠি পাঠিয়েছেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন অনুভব করেননি।

 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021