বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

কৃত্তিবাসের শহরে উপেক্ষার ছাপ
মমতার উন্নয়নই ভরসা অজয়ের

দীপন ঘোষাল, শান্তিপুর: একাধিক ইস্যুতে উপেক্ষিত শান্তিপুর একুশের ভোটে কোন পথে? নদীয়ার এই ঐতিহাসিক শহর কেন্দ্রে রাজনৈতিক দলগুলির কাছে এটাই লাখ টাকার প্রশ্ন। রামায়ণের বাংলা রচয়িতা কৃত্তিবাসের জন্মস্থান প্রয়োজনীয় উন্নয়ন পায়নি আগের বছরগুলিতে। তেমনই দীর্ঘদিনের দাবি অনুযায়ী শান্তিপুর-নবদ্বীপ রেল যোগাযোগও বিশ বাঁও জলে। উদাসীনতা রয়েছে রয়েছে গঙ্গার ভাঙনের ব্যাপারে, তাঁত শিল্পীদের নিয়েও। ফলে এই ভোটযুদ্ধে এরকম একাধিক উপেক্ষার জবাব দিতে কোমর বাঁধছে তারা। সব মিলিয়ে ত্রিমুখী প্রতিদ্বন্দ্বিতার এই আসনে এখন হাড্ডাহাড্ডি লড়াই। 
শান্তিপুর শহরের ডাকঘর মোড়ের কাছে বাসের জন্য প্রতীক্ষারত বছর চল্লিশের শুভেন্দু দে’র গলায় একরাশ ক্ষোভ। তিনি বলেন, শান্তিপুর থেকে নবদ্বীপ পর্যন্ত একটা ন্যারোগেজ ছিল। সেটা উঠিয়ে ব্রডগেজ রেল স্থাপনের করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রেলমন্ত্রী থাকাকালে। কৃষ্ণনগর পর্যন্ত সেই লাইন পাতা হলেও, যুক্ত হয়নি নবদ্বীপ। সারাদিনে একজোড়া ট্রেন। এটা আমাদের অনেকদিনের দাবি ছিল। কবে যে কেন্দ্রের নজরে পড়বে সেই আশায় আজও দিন গুনতে হচ্ছে। কেন্দ্রে বিজেপি ক্ষমতায়। আমাদের রানাঘাট কেন্দ্রেও বিজেপির এমপি দু’বছর ধরে। তিনিও চুপ। শান্তিপুরে একটা সাংসদের অফিস পর্যন্ত নেই। আবার তিনিই বিধানসভায় প্রার্থী হয়েছেন। ভোট তো ভেবে দিতেই হবে। 
একাধিক সরকার বদলেও কেউ রা কাড়েনি মহাকবি কৃত্তিবাসের জন্মস্থান ফুলিয়ার সামগ্রিক উন্নয়ন নিয়ে। দাবদাহ থেকে বাঁচতে বয়ড়ার বাসিন্দা কার্তিক হালদার মহাকবির সমাধির পাশে বেদিতে বসেছিলেন। প্রশ্ন করতেই একরাশ ক্ষোভ উগরে দিয়ে বলেন,  কৃত্তিবাসের সমাধি, হরিদাস ঠাকুরের মন্দির, কৃত্তিবাস মিউজিয়াম, কৃত্তিবাস কূপ ও বটবৃক্ষ, যার নীচে বসেই সংস্কৃত থেকে রামায়ণ বাংলায় অনুবাদ করেন মহাকবি কৃত্তিবাস তা নিয়ে পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তা প্রচারের আলোয় আনার ব্যাপারে উদ্যোগী হয়নি কেন্দ্র বা রাজ্য সরকার। কৃত্তিবাসের জন্মোৎসব জৌলুস হারিয়েছে। পর্যটকরা আগে আসত। থাকার একটা জায়গা নেই। তাই তারাও আসে না আর। মিউজিয়াম নিয়ে চূড়ান্ত উদাসীন প্রশাসন।
রানাঘাটের এমপি তথা এবারে শান্তিপুর বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী জগন্নাথ সরকারকে নিয়ে বিস্তর অভিযোগ শোনা গেল প্রমোদনগরের ব্যবসায়ী স্মরজিৎ দে’র গলায়। তিনি বলেন, দিদি তো বাড়ি বাড়ি স্বাস্থ্যসাথী কার্ড করে দিয়েছেন। পাড়ার ছেলেমেয়েরা সাইকেল ও পড়ার খরচ পাচ্ছে। রাস্তা, পানীয় জলের সুবন্দোবস্ত করেছে। বিজেপির প্রতীকে জিতে জগন্নাথবাবু তো দু’বছর এ-মুখোই হননি। এখন আবার বিধানসভায় দাঁড়িয়েছেন। তাই রোজ রোজ আসছেন। আগেরবার বিক্ষুব্ধ তৃণমূলীদের কিছু ভোট আর সিপিএমের ভোট পেয়েছিলেন বলে লোকসভা নির্বাচনে জিতেছেন। এবার তিনি কতটা সমর্থন পাবেন তা নিয়ে সন্দেহ আছে।
শান্তিপুর বড়বাজার ফেরিঘাটে দাঁড়িয়েছিলেন বিভাস বিশ্বাস। তাঁর বক্তব্য, শান্তিপুরের নৃসিংহপুর থেকে কালনাঘাট পর্যন্ত গঙ্গার ওপর দিয়ে ব্রিজ হওয়ার কথা ছিল। যাতে ট্রেন আর গাড়ি সব যেতে পারে। আর এই ব্রিজ হলে কালনা যেতে শান্তিপুরবাসীকে প্রায় ৩৫ কিমি কম ঘুরতে হতো। কেন্দ্রীয় শাসক দল দীর্ঘদিন যাবৎ ‘আচ্ছে দিনের’ কথা প্রচার করছে। কিন্তু এই ব্রিজ নিয়ে তাদের উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ টের পাওয়া না।
এই কেন্দ্রের ত্রিমুখী লড়াইয়ে তৃণমূলের অজয় দে দীর্ঘদিনের পরিচিত মুখ এবং অভিজ্ঞ। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একাধিক জনমুখী প্রকল্প তাঁর জন্য অ্যাডভান্টেজ। প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে সংযুক্ত মোর্চার কংগ্রেস প্রার্থী ঋজু ঘোষালের প্রচারও যথেষ্ট প্রভাব ফেলেছে শান্তিপুরে। একাংশ চাইছেনও তাঁকে। উল্টোদিকে, বিজেপি প্রার্থী এগিয়ে পরিসংখ্যানে। ফলে জমজমাট শান্তিপুরে একুশের যুদ্ধ।

14th     April,   2021

মুখ্যমন্ত্রীর ৪টি চিঠি নিয়ে মুখে কুলুপ
মমতাকে এড়িয়ে ডিএমদের সঙ্গে
কোভিড-বৈঠক ‘উদ্বিগ্ন’ মোদির

রাজ্যে রাজ্যে বাড়ছে সংক্রমণ এবং মৃত্যু। টিকা, অক্সিজেন, হাসপাতালে বেডের আকাল দেশজুড়ে। এই সঙ্কটকালে সার্বিক টিকাকরণ এবং অক্সিজেনের দাবিতে বারবার প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন একাধিক অবিজেপি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা। এদিনও ১২ জন বিরোধী নেতা মিলিতভাবে চিঠি দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদিকে। যদিও পত্রাঘাত পর্বে অন্যতম অবশ্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বিগত কয়েকদিনে নরেন্দ্র মোদিকে চারটি চিঠি পাঠিয়েছেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন অনুভব করেননি।

 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021