বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

সোজা-সাপ্টা
ঠুলি পরা গণতন্ত্র!
শান্তনু দত্তগুপ্ত

 

গণতন্ত্র বিক্রি হচ্ছে। কোথায়? দর কী? সেটা জানাটাই এখন মুন্সিয়ানা। সংবিধানকে সামনে রেখেও কীভাবে গণতন্ত্রকে বাজারি করে দেওয়া যায়, আজ সেই চিত্র দেখছে বাংলা। দেখছে দেশ। নির্বাচন মানে তো একটা সুস্থ প্রতিযোগিতা! দেশের সামনে বায়ো ডেটা ফেলা কিছু দল, আর তাদের কয়েকজন প্রার্থী! সেই প্রতিযোগিতা বদলেছে নোংরা লড়াইয়ে, শক্তি প্রদর্শনে, আর গণতন্ত্রকে কে কতটা দুমড়ে মুচড়ে ক্ষমতার পাহাড়চূড়ায় উঠে বসা যায়, তার ফিকিরে। 
সরকার নয়, ভোটের প্রতিযোগিতার চালিকাশক্তি থাকবে নির্বাচন কমিশনের হাতে। এটাই নিয়ম। ওই বিশেষ সময়টুকু পুলিস, প্রশাসন, বাহিনী—সব তাদের নিয়ন্ত্রণে। তাদের হুকুমই শিরোধার্য। প্রত্যেক ভোটার এবং প্রত্যেক প্রার্থী ভরসা রাখবেন কমিশনের উপর। বাংলার এই ভোটপর্বে এক অদ্ভুত অভিজ্ঞতা হচ্ছে। নিরপেক্ষ বলে কি আর আদৌ কিছু আছে? নিরপেক্ষ ভোট করানোর নামে চার দফার বাঁদরনাচ দেখার পর এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন। কারণ, আইন সবার জন্য এক কথা বলছে না। দোষ যাই হোক না কেন... সেই অনুযায়ী সাজা হচ্ছে না। এই ‘অভ্যেস’ আজকের নয়। কয়েক বছর ধরেই সুয়োরানি-দুয়োরানি ভাগাভাগিটা কমিশনের অন্দরে চলছে। সুয়োরানি একটিই পার্টি। আর দুয়োরানি বাকি সবাই। অসমে হিমন্ত বিশ্বশর্মা হুমকি দেন, বিজেপি ক্ষমতায় ফিরলে বোরোল্যান্ড পিপলস ফ্রন্টের প্রধানকে এনআইএ কেস দিয়ে জেলে পুরবেন। কমিশন তাঁর প্রচার ৪৮ ঘণ্টার জন্য নিষিদ্ধ করে। কিন্তু বিশ্বশর্মা ‘নিঃশর্ত ক্ষমা’ চাওয়া মাত্র তাঁর সাজার মেয়াদ কমিয়ে ২৪ ঘণ্টা করে দেওয়া হয়। কেন? তিনি বিজেপির প্রার্থী। তামিলনাড়ুর এ রাজার পার্টির নাম ডিএমকে। তাই ‘ক্ষমা’ চাইলেও তাঁর সাজায় হেরফের হয় না। কেন? গণতন্ত্রে তো দু’জনের ক্ষেত্রে একই নিয়ম হওয়া উচিত ছিল! তা হয়নি। 
শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথটা আজ অভিশপ্ত। কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে মৃত্যু হয়েছে চার ‘ভোট লুটেরা’র। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছে, তারা ছিল নিরীহ ভোটার। তবু মরতে হয়েছে। আর দায় চেপেছে মমতার উপর। তাঁকে ২৪ ঘণ্টার জন্য নিষিদ্ধও করা হয়েছে। দিলীপ ঘোষ বলেছেন, ‘আরও শীতলকুচি হবে।’ তাঁর জন্য নোটিস। শুভেন্দু অধিকারী লাগাতার সাম্প্রদায়িক বিভাজনমূলক মন্তব্য করে যাচ্ছেন, তাঁর জন্য ‘সতর্কবার্তা।’ আর প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, দোষীরা শাস্তি পাবে। কারা দোষী? গ্রামবাসীরা? সেই জওয়ানরা নয়, যারা গুলি চালিয়েছে? দিলীপ ঘোষ দোষী নন? শুভেন্দুবাবু নন? শুধুই মমতা? কেন? তিনি বিরোধী বলে? এটাই তাহলে গণতন্ত্র? 
মাসের পর মাস কেন্দ্রীয় এজেন্সির মাধ্যমে নাজেহাল হতে হয়েছিল অশোক লাভাসাকে। কেন? ২০১৯ সালে লোকসভা ভোটে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের জন্য একের পর এক অভিযোগ দায়ের হয়েছিল নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহের বিরুদ্ধে। মোদি-শাহকে ক্লিনচিট দিয়েছিলেন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক সুনীল অরোরা। প্রতিবাদ ছিল নির্বাচন কমিশনার অশোক লাভাসার। জানিয়েছিলেন, এই ক্লিনচিটে তাঁর মত নেই। ফল? আছড়ে পড়েছিল ইডি এবং আয়কর দপ্তরের হানা।
স্বাধীনতার মুহূর্তে জওহরলাল নেহরু বলেছিলেন, ‘আমরা আজ স্বাধীন, স্বার্বভৌম। আর আমি দেশের মানুষের প্রথম ভৃত্য।’ সেই অর্থে নরেন্দ্র মোদি ভারতের চতুর্দশ ভৃত্য। মালিক নন, রাজাও নন। কিন্তু সেবকের মতো ভূমিকা কি তাঁর দেখা যাচ্ছে? না। বরং, দাম-দণ্ড-ভেদ... যার জন্য যে ওষুধ, তাকে সেটাই দিতে জানেন গেরুয়া পার্টির দণ্ডমুণ্ডের কর্তারা। অশোক লাভাসা... পদত্যাগ করেছিলেন তিনি। সব মেনে চললে আজ সুশীল চন্দ্রা নন, লাভাসাই হতেন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক। আর সবকিছু মেনে নিয়ে শাসকের কথামতো ডুগডুগি বাজালে? রঞ্জন গগৈ এক্ষেত্রে মোক্ষম উদাহরণ হতে পারেন বলে নিন্দুকে বলছে। অযোধ্যা মামলার রায়ের পর অবসর। আর তার পরপরই রাজ্যসভার সদস্য। সুনীল অরোরা হয়তো রঞ্জন গগৈয়ের পথের পথিক হবেন! জানা নেই। স্লোগান এখন একটাই, ‘জয় নরেন রাজার জয়...।’ 

14th     April,   2021

মুখ্যমন্ত্রীর ৪টি চিঠি নিয়ে মুখে কুলুপ
মমতাকে এড়িয়ে ডিএমদের সঙ্গে
কোভিড-বৈঠক ‘উদ্বিগ্ন’ মোদির

রাজ্যে রাজ্যে বাড়ছে সংক্রমণ এবং মৃত্যু। টিকা, অক্সিজেন, হাসপাতালে বেডের আকাল দেশজুড়ে। এই সঙ্কটকালে সার্বিক টিকাকরণ এবং অক্সিজেনের দাবিতে বারবার প্রধানমন্ত্রীর দ্বারস্থ হয়েছেন একাধিক অবিজেপি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা। এদিনও ১২ জন বিরোধী নেতা মিলিতভাবে চিঠি দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদিকে। যদিও পত্রাঘাত পর্বে অন্যতম অবশ্যই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী বিগত কয়েকদিনে নরেন্দ্র মোদিকে চারটি চিঠি পাঠিয়েছেন। অথচ প্রধানমন্ত্রী উত্তর দেওয়ার প্রয়োজন অনুভব করেননি।

 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021