বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

জালনোট কাণ্ড: বিহার থেকে
টাকা এসেছিল কুলটিতে 

নিজস্ব প্রতিনিধি, আসানসোল: ভোটের আগেই বাংলায় জাল টাকা ছড়ানোর আন্তঃরাজ্য চক্রের হদিশ পেল পুলিস। কুলটি থানা এলাকা থেকে ৭৮ হাজার টাকার জাল নোট উদ্ধারের ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিস জানতে পেরেছে, বিহার থেকে ওই টাকা এসেছিল। ৬০-৪০ অনুপাতেই টাকা ছড়ানোর টোপ দেওয়া হয়েছিল। সেই টাকা ছড়িয়ে দেওয়ার কাজ চলছিল। পুলিসি সক্রিয়তায় যা দ্রুত ধরা পড়েছে। পুলিস এই চক্রের হদিশ পেতে ভিন রাজ্যে পাড়ি দেওয়ারও প্রস্তুতি নিচ্ছে। ভোটের আগে বিজেপি শাসিত বিহার থেকে বাংলায় জাল টাকা ছড়ানো নিয়ে রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পড়েছে।
তৃণমূল অবশ্য এনিয়ে গভীর ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলছে। তাঁদের দাবি, জালনোট সাধারণত ভিন দেশের সীমান্ত দিয়ে পাচারের অভিযোগ ওঠে। কিন্তু এক রাজ্য থেকে অন্য রাজ্যে ভোটের আগে কেন এই কৌশল তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে তারা। ভোটের আগে বাংলা থেকে ব্যাপক জাল টাকা উদ্ধার করে বিজেপি এরাজ্যের বদনামের ছকও করতে পারে বলে তৃণমূলের অভিযোগ। বিজেপি অবশ্য জাল টাকা নিয়ে তৃণমূলকেই আক্রমণের নিশানা করেছে।
ডিসি(পশ্চিম) অভিষেক গুপ্তা বলেন, জাল টাকা উদ্ধারের ঘটনায় ভিন রাজ্যের যোগসূত্র পাওয়া গিয়েছে। আমরা পুরো বিষয়টি তদন্ত করে দেখছি। প্রসঙ্গত, শুক্রবার রাতে কুলটি থানার লছিপুরে নিষিদ্ধপল্লিতে কয়েকজন সন্দেহভাজনকে ঘোরাঘুরি করতে দেখা যায়। পুলিস তাদের উদ্ধার করতেই ২০০ টাকার বেশ কিছু জাল নোট পায়। এরপরই শনিবার দিনভর তল্লাশি চালিয়ে ৭৮ হাজার টাকার জাল নোট উদ্ধার হয়। পুলিসি তদন্তে উঠে এসেছে বেশ কিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য। গ্রেপ্তার হওয়া ছ’জনের মধ্যে পাণ্ডা শিবম কুমারের আদি বাড়ি বিহারের পাটনায়। বাবার চাকরি সূত্রে সে কুলটি থানা এলাকায় দীর্ঘদিন থাকে। সে বিহার থেকে জাল টাকা এনে স্থানীয় এজেন্টদের মাধ্যমে ছড়ানো শুরু করেছিল। ৬০-৪০ রেসিওতে এই কাজ হতো। অর্থাৎ এক লক্ষ টাকার জাল নোট দিয়ে ৬০ হাজার টাকা দিলেই হবে। এই কমিশনের ভিত্তিতেই নিচুতলার লোকজন নিষিদ্ধ পল্লি সহ বিভিন্ন জায়গায় জাল টাকা ছড়ানো শুরু করে। এই চক্রের সঙ্গে আর কে কে যুক্ত রয়েছে, কোথায় কোথায় জাল টাকা কীভাবে ছড়িয়ে পড়ছে, তা নিয়ে জোর তদন্ত চলছে। ভোটের সময় এমনিতেই আর্থিক লেনদেন নিয়ে বাড়তি সতর্ক থাকতে হয় পুলিসকে। তার উপর ভোটের আগে যদি অন্য রাজ্য থেকে জাল টাকা ঢুকতে থাকে তাহলে তা মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়াবে।
এনিয়ে রাজনৈতিকভাবে আলোড়নও পড়েছে। বাংলায় মাটিকে ব্যবহার করে দেশবিরোধী কার্যকলাপ হওয়ার একাধিক অভিযোগ তুলছে বিজেপি। রাজ্যে জঙ্গি গ্রেপ্তার বা গোরু, কয়লা পাচার সব ইস্যুতেই তৃণমূল সরকারকে তুলোধনা করেছে তারা। ভিন দেশ থেকে বাংলায় অনুপ্রবেশ নিয়েও নানা অভিযোগ রয়েছে। এই অবস্থায় জালনোটও ভোটের ইস্যু হতে পারে। তাই সীমান্ত পেরিয়ে না এসে বিহার থেকে টাকা ঢোকা নিয়ে সিঁদুরে মেঘ দেখছে তৃণমূল।
তৃণমূলের জেলা সহ সভাপতি মহেশ্বর মুখোপাধ্যায় বলেন, বাংলা দখলের জন্য বিজেপি নানা ষড়যন্ত্র করছে। শুনেছি জাল টাকা সীমান্ত পেরিয়ে দেশে ঢোকে। কিন্তু এভাবে বিজেপি শাসিত রাজ্য থেকে বাংলায় জাল টাকা আসা নিয়ে সন্দেহ বাড়ছে। পুলিসকে বলব প্রকৃত ঘটনা ও উদ্দেশ্য খুঁজে বের করুক। বিজেপি জেলা সহ সভাপতি শিবরাম বর্মন বলেন, কয়লা, গোরু থেকে লোহা সব পাচারেই তৃণমূল জড়িত। হয়তো দেখা যাবে জালনোট পাচারেও তাদের হাত রয়েছে।  

9th     March,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
10th     April,   2021