বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

হঠাৎ লক্ষ টাকার বেশি লেনদেন,
কমিশনের নজরে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ভোটে কালো টাকার ব্যবহার রুখতে তৎপর নির্বাচন কমিশন। কোনও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে হঠাৎ এক লক্ষ টাকার বেশি লেনদেন হলেই তার রিপোর্ট পাঠাতে হবে প্রশাসনের কাছে। ইতিমধ্যেই জেলার নির্বাচন আধিকারিক (ডিইও)’দের কাছে সাধারণ কার্য বিধি (স্ট্যান্ডার্ড অপারেটিং প্রসিডিওর) পাঠিয়ে দিয়েছে কমিশন। তাতে বলা হয়েছে, লক্ষ টাকার বেশি লেনদেনের উপর কড়া নজর রাখতে। ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করে তাদের এই সব বিষয়ে জানাতে বলা হয়েছে। কোন ধরনের অ্যাকাউন্ট নজরে থাকবে, সেটাও স্পষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। গত দুই মাসের মধ্যে কোনও অ্যাকাউন্টে ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জমা বা তোলা হয়নি, কিন্তু ভোট ঘোষণার পর ওই পরিমাণ টাকার লেনদেন শুরু হয়েছে সেক্ষেত্রেই রিপোর্ট পাঠাতে হবে।
এরই পাশাপাশি, কোনও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সন্দেহজনকভাবে ১০ লক্ষ টাকার বেশি লেনদেন হলে তাও জানাতে হবে প্রশাসনকে। প্রতিটি ভোটে প্রার্থীদের খরচ ও কালো টাকার ব্যবহারের উপর নজর থাকে কমিশনের। সেক্ষেত্রে ব্যাঙ্কের লেনদেনকেই তারা পাখির চোখ করে। শুধু তাই নয়, প্রার্থীদের জন্য নতুন অ্যাকাউন্ট খুলে দেওয়ারও কথা বলা হয়েছে ওই কার্য বিধিতে। কমিশন চাইছে, নির্বাচনী খরচের স্বচ্ছতা বজায় রাখতে প্রার্থীরা একটি বিশেষ অ্যাকাউন্ট
খুলুন। সেই অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা তুলে ভোটের খরচ করা হোক।
বিধানসভা ও লোকসভা নির্বাচনে একজন প্রার্থী সর্বোচ্চ কত টাকা খরচ করতে পারবেন তা বেঁধে দেয় কমিশন। ভোট পর্ব মিটে যাওয়ার ৩০ দিনের মধ্যে খরচের বিস্তারিত হিসেব জমা দিতে হয় প্রার্থীদের। আর রাজনৈতিক দলগুলিকে পেশ করতে হয় ফল প্রকাশের ৭৫ দিনের মধ্যে। প্রচার পর্ব চলার সময় প্রতিদিনের হিসেব জমা দিতে হয় সবাইকে। কমিশন নিজস্ব ব্যবস্থার মাধ্যমে প্রার্থীদের খরচের উপর নজর রাখে। প্রতি কেন্দ্রের জন্য হিসেব সংক্রান্ত একজন পর্যবেক্ষক থাকেন। রাজ্যের জন্য এবার একজন বিশেষ হিসেব পর্যবেক্ষককে নিয়োগ করা হয়েছে। প্রার্থীদের মিটিং, মিছিলের ভিডিও করে কমিশন নিযুক্ত একটি দল । কত সংখ্যক চেয়ার, ব্যানার, পোস্টার প্রভৃতির খরচের হিসেব রাখতে এই উদ্যোগ কমিশনের।
প্রার্থীদের খরচের উপরও নজর রাখতে একাধিক বিশেষ টিম গঠন করতে জেলা নির্বাচনী আধিকারিকদর নির্দেশ দিয়েছে কমিশন। ঘুরে ঘুরে অভিযান চালাবে এমন ‘ফ্লাইং স্কোয়াড’ গঠন করতে হবে। বেআইনি টাকার লেনদেন, বিভিন্ন সামগ্রী কিংবা মদ বিলি প্রভৃতির উপর কড়া নজর রাখবে টিমের সদস্যরা। এই প্রক্রিয়ায় সঙ্গে যুক্ত থাকে কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের বিভিন্ন এজেন্সি। এর মধ্যে পুলিস ছাড়াও আয়কর, ইডি, ফিনান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট, রেভিনিউ ইন্টেলিজেন্স ইউনিট, আরপিএফ, নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো প্রভৃতি রয়েছে।
রাজ্যের আবগারি বিভাগকে ভোটের সময় মদের উৎপাদন, বিক্রি ও বিপণনের উপর বিশেষ নজর রাখতে বলা হয়েছে। ফ্লাইং টিমের গতিবিধি জিপিএস ও বিশেষ ই-ভিজিল অ্যাপের মাধ্যমে নজর রাখা হবে। বিমানবন্দরে আয়কর দপ্তরের এয়ার ইন্টেলিজেন্স উইংকে সতর্ক থাকার নির্দেশও দেওয়া হয়েছে। বিমান পথে বেআইনি টাকা নিয়ে আসা ঠেকাতেই এই ব্যবস্থা। তবে টাকার লেনদেনের উপর নজরদারির জেরে সাধারণ মানুষ যাতে অসুবিধায় না পড়েন, সেটাও দেখতে বলেছে কমিশন। এর জন্য প্রতি জেলায় তিন জন প্রশাসনিক আধিকারিকদের নিয়ে বিশেষ টিম গঠন করতে বলা হয়েছে। টাকা আটকের বিষয়টি এই টিম খতিয়ে দেখবে। সাধারণ মানুষ তাদের কাছে অভিযোগ জানাতে পারবেন। পর্যালোচনা করে যদি দেখা যায় আটক হওয়া টাকার সঙ্গে ভোটের কোনও সম্পর্ক ঩নেই, তবে তা দ্রুত ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে বলেছে কমিশন। 

8th     March,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
10th     April,   2021