বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
রাজ্য
 

হ্যাটট্রিকের লক্ষ্যে তালিকা মমতার
জোর নবীন ও নতুন মুখে, টিকিট বহু তারকাকে, ৫১ মহিলা প্রার্থী

দেবাঞ্জন দাস, কলকাতা: হ্যাটট্রিকের লক্ষ্যে যুদ্ধে তিনি একা। অন্যদিকে বাংলা দখলের স্বপ্নে বিভোর গেরুয়া শিবিরের তাবড় নেতা-মন্ত্রী সহ গোটা রাষ্ট্রশক্তি। তাঁর নিজের কথাতেই লড়াইটা এবার ‘এক বনাম একশো’। তাই অভীষ্ট লক্ষ্যে পৌঁছতে সেরাটা উজাড় করে দেওয়ার পণ নিয়েছেন। সেই প্রেক্ষিতকে সামনে রেখেই শুক্রবার একলপ্তে সব আসনের (তিনটি বাদে) প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কৃষ্টি, সংস্কৃতি আর অসাম্প্রদায়িক ঐতিহ্য রক্ষার এই সংগ্রামে তৃণমূল সুপ্রিমোর ঘোষণা যেন গোটা বাংলার খণ্ডচিত্র! চা-বাগানের মজদুর থেকে সাধারণ কৃষক, শিক্ষক, সমাজ কর্মী, দলিত সাহিত্যিক, স্বনামধন্য চিকিৎসক, বিশিষ্ট অভিনেতা-অভিনেত্রী—কে নেই সেই তালিকায়! প্রত্যয়ী মমতা আঙুল উঁচিয়ে ‘ভিকট্রি’ দেখালেন, মুখে বললেন, ‘আমরাই প্রথম রাজনৈতিক দল, যারা বিধানসভা নির্বাচনের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করলাম। এবারের নির্বাচনটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। মা-মাটি-মানুষের কাছে আর্শীবাদ চাইছি। বিশ্বাস আর ভরসা রাখুন এবারও। বাংলা শাসন তারাই করবে, যারা বাংলাকে চেনে, জানে, যারা বাংলার জন্য কাজ করে। জানবেন, এবারের লড়াই বাংলার অস্তিত্বরক্ষার জন্য। জনগণের উপর ভরসা আছে। তাঁরা জানেন, বিজেপি এলে কী সর্বনাশ হবে রাজ্যের!’ একুশের নির্বাচনে জোড়াফুল শিবিরের থিম সং হয়ে ওঠা ‘খেলা হবে’ ফের শোনা গিয়েছে মমতার মুখে। প্রথমে বাংলায় বললেন, ‘খেলা হবে, দেখা হবে, জেতা হবে।’ এবার হিন্দিতে—‘খেলেঙ্গে, লড়েঙ্গে, জিতেঙ্গে’। 
দলীয় প্রার্থী তালিকার ‘খোলনলচে’ এবার পাল্টে দিয়েছেন মমতা। দুঁদে রাজনীতিবিদ প্রবীণদের সঙ্গেই ঝকঝকে মুখের নবীনদের প্রার্থী তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করে ‘ভারসাম্য’ বজায় রেখেছেন। বাদ পড়েছেন গত নির্বাচনে জিতে আসা এক ঝাঁক বিধায়ক। তৃণমূল আগেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল, ৮০ বছরের বেশি কাউকে টিকিট দেওয়া হবে না। সেই সূত্রে বাদ গিয়েছেন রবীন্দ্রনাথ ভট্টাচার্য, ব্রজমোহন মজুমদার, জটু লাহিড়ী প্রমুখ। অসুস্থতার কারণে রাখা হয়নি সোনালি গুহ এবং মালা সাহাকে। মোট পাঁচ মন্ত্রী এবং ২৯ বিধায়কের নাম এবার প্রার্থী তালিকায় নেই।
বলাগড়ে অসীম মাঝির পরিবর্তে মমতা এবার প্রার্থী করেছেন মনোরঞ্জন ব্যাপারীকে। স্কুলের চৌকাঠ পার না করা এই দলিত সাহিত্যিক এখনও পর্যন্ত লিখে ফেলেছেন ২১টি গ্রন্থ। এহেন ব্যক্তিকে প্রার্থী হিসেবে পরিচয় করাতে গিয়ে সাংবাদিকদের তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, ‘জানেন, উনি রিকশ চালাতেন। সেখান থেকেই তো মহাশ্বেতাদির (সাহিত্যিক মহাশ্বেতা দেবী) সংস্পর্শে এসে লেখালেখি শুরু করেন।’ যাঁদের টিকিট দিতে পারলেন না, তাঁদের জন্য আশ্বাসও দিয়েছেন ক্ষমতায় ফেরার বিষয়ে ১০০ ভাগ নিশ্চিত মমতা। জানিয়েছেন, দীর্ঘদিনের বহু সহকর্মীকে এবার টিকিট দিতে পারিনি। তাঁরা দীর্ঘদিন ধরে দলের হয়ে কাজ করেছেন। আমরা তাঁদের কাছে কৃতজ্ঞ। প্রবীণদের প্রণাম। এবার আমরা বিধান পরিষদ করব বলে ঠিক করেছি। সেখানে তাঁদের নিয়ে আসব। বাকিদের দলের কাজে ভালোভাবে ব্যবহার করা হবে।’ সেই সঙ্গে রাজ্যবাসীকে আশ্বস্ত করে তৃণমূলনেত্রী আরও বলেন, ‘বিনা পয়সায় রেশন, স্বাস্থ্য পরিষেবা ছাড়াও কন্যাশ্রী, সবুজসাথী, শিক্ষাশ্রী, কৃষক ভাতা, দুয়ারে সরকার, দ্বাদশ শ্রেণীর পড়ুয়াদের স্মার্ট ফোন দেওয়ার মতো সব প্রকল্প চালু থাকবে।’
এদিন বেলা সাড়ে ১২টায় দলের নির্বাচন কমিটির সঙ্গে কালীঘাটের বাড়িতে বৈঠকে বসেন মমতা। এরপর পৌনে দুটো নাগাদ প্রবীণ নেতা সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, পার্থ চট্টোপাধ্যায়, সুব্রত বক্সি এবং ফিরহাদ হাকিমকে সঙ্গে নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে আসেন। তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, ‘সমাজের সর্বস্তরের মানুষের প্রতিনিধিত্ব রাখার চেষ্টা করা হয়েছে প্রার্থী তালিকায়। তালিকায় এবার রয়েছেন ৫১ জন মহিলা, সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের ৪২ জন প্রতিনিধি, ৭৯ জন তফসিলি জাতি এবং ১৭ জন তফসিলি উপজাতিভুক্ত প্রার্থী। বেশ কয়েকজন ডাক্তারও রয়েছেন আমাদের তালিকায়।’ 
পাহাড়ের তিনটি (দার্জিলিং, কালিম্পং, কার্শিয়াং) আসন বাদ রেখে মোট ২৯১টি আসনের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে তৃণমূল। এই প্রসঙ্গে মমতা বলেন, পাহাড়ের তিনটি আসনে আমরা লড়ছি না। ‘বন্ধুরা’ লড়বেন। নির্বাচনে জিতে তাঁরা আমাদের সঙ্গেই আসবেন। এবার গোটা দেশের বিরোধী শিবির মমতার পাশে। সেই লিস্টে এদিন সংযোজিত হয়েছেন ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেন। মমতা বলেন,‘হেমন্ত ফোন করেছিলেন! বললেন, দিদি, আপনাকে পূর্ণ সমর্থন দেবে ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা।’ এদিনই আবার চিঠি লিখে মমতাকে সহমর্মিতা জানিয়েছেন গ্রেটার কোচবিহার পিপলস অ্যাসোসিয়েশনের নেতা বংশীবদন বর্মন। ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’, তৃণমূলের ক্যাচওয়ার্ড ইতিমধ্যেই জনপ্রিয়। প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতে এদিন সেই ‘বাংলার মেয়ে’ এসেছিলেন আটপৌরে শাড়ি পরে। তালিকা পর্ব সাঙ্গ করে আন্তরিকভাবে বললেন, ‘প্রতিপক্ষের সবাই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। তাঁদের পরিবার পরিজনরাও যেন ভালো থাকেন।’

6th     March,   2021
 
 
কলকাতা
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
13th     April,   2021