বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

নুঙ্গিতে প্ল্যাটফর্ম ও ট্রেনের
মাঝখানে অস্বাভাবিক ফাঁক
ঘটছে দুর্ঘটনা, হুঁশ নেই পূর্ব রেলের

 

সংবাদদাতা, বজবজ: দক্ষিণ-পশ্চিম শহরতলির শিল্প ও বাণিজ্য শহর বলে পরিচিত মহেশতলার বাটানগর। এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে আবাসন নগরীর তকমা। বিশাল বিশাল বহুতলে ছেয়ে গিয়েছে বাটানগর। এই গুরুত্বপূর্ণ জনপদের অন্যতম ভরসা নুঙ্গি রেল স্টেশন। বজবজ ট্রাঙ্ক রোড থেকে নুঙ্গি রেল স্টেশনের দূরত্ব হাঁটা পথে ১০ মিনিট। সড়ক ও রেললাইন পাশাপাশি থাকলেও এখানকার বাসিন্দা ও কর্মসূত্রে আসা মানুষরা ট্রেন পথে যাতায়াত করেন বেশি। ফলে প্রতিদিন নুঙ্গি স্টেশনে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত থিকথিকে ভিড় লেগেই থাকে। প্রচুর টিকিট বিক্রি হয়। কিন্তু সেই তুলনায় নুঙ্গি স্টেশনের রক্ষণাবেক্ষণ হয় না বলেই অভিযোগ। প্ল্যাটফর্মের ভগ্নদশা, ফুটব্রিজেরও একই হাল, স্বাস্থ্যসম্মতভাবে জল পান করার উপায় নেই, সাফসুতরো শৌচাগার একেবারেই নেই। সবমিলিয়ে যাত্রী পরিষেবার দশা রীতিমতো বেহাল বলে অভিযোগ। এ নিয়ে যাত্রীদের ক্ষোভের অন্ত নেই। তাঁদের বক্তব্য, রেল কর্তৃপক্ষকে বারবার বলেও কোনও লাভ হয়নি।  
স্টেশনের উত্তরে গঙ্গার দিকে বাড়ি বছর সত্তরের সুকোমল বসাকের। তাঁর বক্তব্য, যাত্রীদের আন্দোলনের জেরে দুই এবং তিন নম্বর প্ল্যাটফর্ম উঁচু করেছে রেল। এখন প্ল্যাটফর্মের সঙ্গে ট্রেনের মধ্যেকার অংশের অনেকটা ফাঁক থেকে যাচ্ছে। বয়স্ক, প্রতিবন্ধী ও মহিলারা ট্রেনে নামা এবং ওঠার সময় দেহের ভারসাম্য রাখতে পারছেন না। মাঝে মাঝেই পড়ে গিয়ে দুর্ঘটনা ঘটছে। বড়সড় দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে যে কোনওদিন। রেল ত্রুটিপূর্ণ কাজ করে যাত্রীদের অসুবিধায় ফেলেছে। নুঙ্গি রেল ক্রশিং থেকে সামান্য তফাতে প্রিন্টিং এর দোকান সুশান্ত সাউয়ের। তিনি বজবজ-শিয়ালদহ নাগরিক প্রতিরোধ কমিটির সহ-সভাপতি। স্বাভাবিকভাবে হাঁটাচলা করতে অক্ষম। ক্র্যাচে ভর করে তাঁকে সপ্তাহে বারকয়েক নুঙ্গি থেকে শিয়ালদহ যাতায়াত করতে হয়। তাঁর কথায়, এই শাখার সবথেকে ব্যস্ততম স্টেশন নুঙ্গি। কিন্তু ২ এবং ৩ নম্বর প্ল্যাটফর্মে যাত্রীদের মাথার উপর কোনও শেড নেই। বৃষ্টিতে রোজ ভিজতে হয় যাত্রীদের। তথাগত সাহা রোজ যাতায়াত করেন এই স্টেশন দিয়ে। তাঁর বক্তব্য, এক নম্বর প্ল্যাটফর্মের মাঝখানে রয়েছে টিকিট কাউন্টার। তার কাছে একটি মাত্র শৌচালয়। সেটি খুবই অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় রয়েছে। শেষ কবে পরিস্কার হয়েছে কেউ জানে না। দু’নম্বর প্ল্যাটফর্মের দিকে অবিলম্বে আরও একটি টিকিট কাউন্টার ও শৌচাগার করার দরকার। অধিকাংশ মানুষ এখন বাধ্য হয়ে রেললাইনের উপরই শৌচকাজ করছেন। এজন্য জরিমানা করছে পুলিশ। কিন্তু মানুষ নিরুপায় হয়েই এই কাজ করতে বাধ্য হচ্ছেন। অনিরুদ্ধ হালদার নামে এক যাত্রীর বক্তব্য, বজবজ ট্রাঙ্ক রোড দিয়ে নুঙ্গিতে ট্রেন ধরতে আসেন হাজার হাজার মানুষ। তাঁদের জন্য ২ ও ৩ নম্বর প্ল্যাটফর্মের দিকে আরও একটা টিকিট কাউন্টার করার দরকার। এছাড়া একটা ফুটব্রিজও প্রয়োজন। এটা না থাকার জন্য চরম অসুবিধার মুখে পড়ছেন মানুষ। দক্ষিণ দিকের রেললাইন ঝুঁকি নিয়ে পার হয়ে ৩ নম্বরে ফুটব্রিজে উঠে তারপর ১ নম্বরে নেমে অনেকটা হেঁটে গিয়ে টিকিট কাটতে যেতে হচ্ছে। ধীমান চক্রবর্তী নামে এক নিত্যযাত্রীর অভিযোগ, প্ল্যাটফর্মে পানীয় জল নেওয়ার জায়গাটা খুবই অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় রয়েছে। ওখানে জল খেতে গেলে বমি আসে। সব কথা শোনার পর নুঙ্গি স্টেশনের এক রেল আধিকারিক বলেছেন, ‘বিষয়গুলি উপরমহলকে জানানো হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশের অপেক্ষায় রয়েছি।’    

15th     August,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ