বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

একই বিভাগে ৩ বছরের বেশি নয়,
ঘুঘুর বাসা ভাঙতে তৎপর পুরসভা

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মিউটেশনের কাজে বরো অফিসে বছর খানেক হত্যে দিয়েও কাজ গুটিয়ে আনতে পারেননি মুকুন্দপুরের বাসিন্দা হলধর দত্ত। অবশেষে ‘লোক’ ধরে হাজার দশেক টাকা খরচ করে মিউটেশন করাতে হয়েছিল তাঁকে। আবার কসবার এক বাসিন্দা বছর দু’য়েক ধরে বাড়ি সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে একাধিকবার বরো থেকে কলকাতা পুরসভার মূল অফিসে ঘুরলেও কাজ হয়নি। অগত্যা ‘টক টু মেয়র’-এ ফোন করে সাহায্য চেয়েছেন। এই উদাহরণ প্রতীকী মাত্র। পুরসভার অফিসে নানা কাজে এসে জুতো ক্ষয়ে গিয়েছে, এমন অভিযোগও নতুন নয়। পুরকর্মীদের কর্মসংস্কৃতি নিয়ে বারবার প্রশ্ন উঠেছে। অভিযোগ, একই বিভাগে বছরের পর বছর থেকে যাওয়ার সুবাদে ‘চর্বি’ জমে গিয়েছে কর্মী-আধিকারিকদের একাংশের। অনেকেই আবার বেআইনি আর্থিক লেনদেনেও জড়িয়েছেন। তৈরি হয়েছে মৌরসিপাট্টা। যা ভাঙতে ইতিমধ্যেই পুরসভার বিভিন্ন কাজ অনলাইনে চালু করেছে কর্তৃপক্ষ। এবার আরও একধাপ এগিয়ে শক্তপোক্ত বদলি নীতি চালু হল।
কোনও বিভাগে তিন বছরের বেশি কাজ করলে সংশ্লিষ্ট কর্মী-আধিকারিককে এবার বদলি করা যাবে। এই মর্মে সম্প্রতি নতুন বদলি নীতি চালু হয়েছে পুরসভায়। মূলত, দুর্নীতি রুখে ঘুঘুর বাসা ভাঙতেই এই ব্যবস্থা, মত ওয়াকিবহাল মহলের।
নতুন পুরবোর্ড তৈরির পর পুরসভার অন্দরে একাধিক পদে বড় সংখ্যায় বদলি করা হয়। মেয়র ফিরহাদ হাকিম স্পষ্ট জানিয়েছেন, কোনও বিভাগে কাউকে বেশিদিন রাখা হবে না। বিভিন্ন বিভাগে কাজের অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করতেই সবাইকে ধাপে ধাপে বদলি করা হবে। এই ভাবনাকে সামনে রেখে তিনি পুর কমিশনার বিনোদ কুমারকে একটি সুস্পষ্ট বদলি নীতি তৈরি করতে বলেন। যার পরিপ্রেক্ষিতে কর্মিবর্গ বিভাগ একটি নির্দেশিকা জারি করেছে। এক কর্তা বলেন, ধাপে ধাপে হবে এই বদলি প্রক্রিয়া। নীচের স্তরে কোনও কোনও বিভাগে কোনও কর্মী বা আধিকারিক বছরের পর বছর কাজ করছেন। তাঁদের অনেকেই নিজেদের ‘অত্যাবশ্যকীয়’ ভাবতে শুরু করেছেন। অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যাচ্ছে, এই অংশের কর্মী-আধিকারিকদের একাংশ নানা ধরনের আর্থিক দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছেন। তৈরি হয়েছে ঘুঘুর বাসা। যা ভাঙতেই এবার কড়া হচ্ছে বদলি নীতি।
পুর কর্তৃপক্ষ জানাচ্ছে, খুব দ্রুত বড় সংখ্যায় কর্মী-আধিকারিক বদলি হবেন। সেই তালিকা তৈরি। যা শীর্ষকর্তাদের সিলমোহরের অপেক্ষায় রয়েছে। ঠিক হয়েছে, বিভিন্ন বিভাগে বদলি করা হবে তাঁদের। এমনকী রাজস্ব বা সমগোত্রীয় বিভাগের কর্মীদেরও অন্য বিভাগে পাঠানো হবে এবং অন্য বিভাগের আধিকারিকদের রাজস্ব বিভাগে নিয়ে আসা হবে। জানা গিয়েছে, এই বদলি নীতি কার্যকর হলে প্রায় আড়াই দশক পর পুরসভায় বড় মাত্রায় বিভাগীয় বদলি হবে।

15th     August,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ